Category: স্পোর্টস

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ দল ঘোষণা

ওয়ানডে দলে প্রথমবারের মত ডাক পেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ, শুভাশিষ রায় ও তানবীর হায়দার। এছাড়া দলে আছেন পেসার মুস্তাফিজুর রহমানও।
আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। তার আগে ২২ ডিসেম্বর একটি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচও খেলবে টাইগাররা। তাই একমাত্র প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ ও প্রথম ওয়ানডের জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য আগেই ২৩ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াড ঘোষণা করেছিলো বিসিবি।
সেই ২৩ সদস্যের স্কোয়াড থেকে প্রস্তুতিমূলক ও প্রথম ওয়ানডের জন্য ঘোষিত করা হলো ১৫ সদস্যের দল।
গেল অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজে চমৎকার নৈপুণ্য করেন মিরাজ। অভিষেক টেস্ট সিরিজে ২ ম্যাচে ১৯ উইকেট নেন তিনি। তাই তাকে প্রথমবারের মত ওয়ানডে দলেও সুযোগ দেয়া হলো মিরাজকে।
এ ব্যাপারে নিবার্চক প্যানেলের প্রধান মিনহাজুল আবেদিন বলেন, ‘মিরাজ ওয়ানডে খেলেনি। তবে সীমিত ওভারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অলরাউন্ডার মিরাজ। আমরা বিশ্বাস করি, ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই ভবিষ্যতে বাংলাদেশকে ভালোভাবে সার্ভিস দিতে পারবে সে। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের সিমিং কন্ডিশনে ভালো পারফরমেন্স করতে পারবে শুভাশিষ। আর ঘরোয়া আসরে ধারাবাহিকভাবেই ভালো পারফরমেন্স করে যাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনিং ক্যাম্পেও সে ভালো করেছে।’
স্কোয়াড : মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শুভাশিস রায় ও তানভীর হায়দার। বাসস

সিডনী সিক্সার্সের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ দলের বিজয় লাভ

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ সামনে রেখে অস্ট্রেলিয়ায় আজ প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে সিডনি সিক্সার্সের বিপক্ষে কাঙ্খিত জয় তুলে নিয়েছে মাশরাফি বাহিনী। প্রতিপক্ষের দেওয়া ১৬৯ রানের টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টাইগাররা।

 বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ৩ উইকেট নিয়ে সবচেয়ে সফল সৌম্য সরকার। এছাড়া তাইজুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ নিয়েছেন ২টি করে উইকেট।

আজ বুধবার বাংলাদেশ সময় দুপুরে শুরু হওয়া এই ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় মাশরাফি বাহিনী। ব্যাটিং শুরুটা ভালো করলেও বাংলাদেশের বোলিং তোপে পড়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৬৯ রান তুলতে সমর্থ হয় সিক্সার্স। তবে বাংলাদেশের ইনিংসের সময় বৃষ্টি হানা দেয় মাঠে। ঘন্টাখানেক খেলা বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশের সামনে নতুন টার্গট দাঁড়ায় ৮ ওভারে ৮৪ রান। তবে ১ ওভার বাকী থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টিম টাইগার।

শুরুতে ভালো ওপেনিং জুটি উপহার দেন সৌম্য সরকার এবং ইমরুল কায়েস। প্রথম ওভারে ১৭ রান তুলে ফেললে সিক্সার্সদের মনোবলে চিড় ধরে। ২৯ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়ে ফিরে যান ইমরুল। এরপর দলীয় ৩৭ রানের মধ্যেই ফিরে যান সাব্বির এবং অপর ওপেনার সৌম্য। তবে মি. ডিপেন্ডবল খ্যত মুশফিক এবং নির্ভরতার প্রতিশব্দ মাহমুদ উল্লাহ মিলে হেসেখেলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নর্থ সিডনি ওভালে আক্রমণাত্বক ব্যাটিং শুরু করেন সিক্সার্সের দুই ওপেনার। শেষ পর্যন্ত কাঙ্খিত ব্রেক থ্রু এনে দেন অধিনায়ক মাশরাফি। ম্যাশের বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়ে ফিরে যান হিউজ (৪৭)। এরপর থেকেই বাংলাদেশি বোলারদের আধিপত্য বহাল থাকে। তাইজুল ইসলাম তুলে নেন ব্রাড হ্যাডিনের উইকেট। টাইগারদের বোলিং তোপে ১১৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে সিক্সার্স।

তরুণ স্পিডস্টার তাসকিন তুলে নেন জেসন রয়ের উইকেটটি (৪২)। তাসকিনের দ্বিতীয় শিকার হন স্যাম বিলিংস। শেষে টেল এন্ডারদের ব্যাটে ভর করে লড়াই করার মত স্কোর গড়ে সিক্সার্স। বিগ ব্যাশের এই দলটিতে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার খেলেছেন। মাঠে প্রবাসী বাংলাদেশি দর্শকরা পতাকা নিয়ে চিৎকার-উল্লাসধ্বনির সাথে ম্যশদের উৎসাহিত করেছেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে অনেক উচ্চসিত সাঙ্গাকারা

বর্তমানে বাংলাদেশের ক্রিকেটের সামগ্রিক উন্নয়ন ও ধারাবাহিক সফলতা পাশাপাশি তরুণ ক্রিকেটারদের প্রতিভা ও সামর্থ্য সমীহ করার মতো। প্রতিপক্ষের জন্য শঙ্কারও বটে। নিজের দেশের জন্য এই শঙ্কার কথা চেপেও রাখলেন না শ্রীলঙ্কান ব্যাটিং কিংবদন্তী কুমার সাঙ্গাকারা। বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভূয়সী প্রশংসার পাশাপাশি নিজের দেশের জন্য শঙ্কার কোথাও জানিয়ে দিলেন অকপটে।

সামনের বছর বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফর। আর এই উজ্জীবিত বাংলাদেশের সামনে শ্রীলঙ্কা দল অসুবিধায় পড়তে পারে এমনটাই মনে করেন এই সাবেক শ্রীলঙ্কান ওপেনার।

শুক্রবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফাইনালে রাজশাহী কিংসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় সাঙ্গাকারার ঢাকা ডায়নামাইটস। ফাইনালে ম্যাচ সেরাও হন এই ব্যাটিং গ্রেট। ম্যাচসেরার পুরস্কার নিতে এসে বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে তার উচ্ছ্বাস ও শ্রীলঙ্কা দল নিয়ে শঙ্কার কথা জানালেন সাঙ্গাকারা।

দীর্ঘ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে বাংলাদেশকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছেন অনেকবার। বাংলাদেশের ক্রিকেটের খারাপ সময় যেমন দেখেছেন, তেমনি দেখেছেন উন্নতির দিনগুলোও। বিপিএলে খেলতে এসে আরো কাছ থেকে দেখছেন এদেশের তরুণ ক্রিকেটারদেরও। নিজের ক্রিকেটীয় জ্ঞান দিয়েই বললেন, ‘বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটাররা কতটা দারুণ, এটা দেখে আমি খানিকটা শঙ্কিত। আমি জানি, কিছুদিন পরই বাংলাদেশ যাবে শ্রীলঙ্কা সফরে। আমাদের জন্য সিরিজটি হবে খুব কঠিন। বাংলাদেশের গভীরতা অনেক বেড়েছে। ফাস্ট বোলার ও স্পিনারদের রসদ সবই অনেক সমৃদ্ধ। দারুণ সব তরুণ ব্যাটসম্যানও আছে।’

শুধু কাঠামো নয়, সাঙ্গাকারাকে অবাক করেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ফিটনেসের উন্নতিও। বিশেষ করে তরুণ ক্রিকেটারদের ফিটনেস উদাহরণ দেওয়ার মতো, এমনটা মনে করেন সাঙ্গাকারা।

তিনি বলেন,  ‘বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ফিটনেসে অনেক পরিবর্তন এসেছে। ছেলেদের অনেককেই দেখছি দারুণ ছিপছিপে হয়ে উঠেছে, অনেক শক্তিশালী এখন। বিশেষ করে সীমিত ওভারের জন্য দারুণ সব ক্রিকেটার আছে এখন। আশা করি আরও অনেক ইতিবাচক কিছু হবে বাংলাদেশের ক্রিকেটে।’

টুর্নামেন্টের শুরুতে টানা ৫ হার। মাঝে লড়াই।

%e0%a6%ae%e0%a6%bf%e0%a6%be

আর টুর্নামেন্ট শেষ টানা ৪ ম্যাচ জিতে। গেলবারের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের এবারের বিপিএলটা কি আক্ষেপ নিয়েই শেষ হলো না? আর একটি-দুটি জয়ই তো তাদের তুলে দিতে পারতো এই আসরের প্লে অফ বা শেষ চারে। তাতে শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে থাকা যেত। কিন্তু রবিবার জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করা কুমিল্লার অধিনায়ক ওই পথে ভাবতে নারাজ। আফসোস করছেন না মাশরাফি।

১২ ম্যাচে ৫ জয়। ১০ পয়েন্ট। ৭ দলের মধ্যে ষষ্ঠ অবস্থান শেষে। এই যখন শেষের অবস্থা তখন রংপুর রাইডার্সকে হারানোর পর প্রশ্নটা আসে। টানা চার জয়। আরেকটি জিতলেই সুযোগ থাকতো। আফসোস হচ্ছে?

মাশরাফির জবাব, “এটা পরিস্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে যে একটা জিততে পারলে হতো। আবার দেখা যেতো ওখানে একটা জিতলে এখানে চারটা জিততাম না। তো আফসোস করে তো কোনো লাভ নেই। যেটা ছিলো কপালে সেটাই হয়েছে। যদি বলেন যে কেন পারিনি, সেটা অবশ্যই হতাশার।   আর যেটা পেরেছি, যতটুকু পেরেছি সেটা অবশ্যই ভালো। “

তার আগেই বলে দিয়েছেন নির্মম সত্য কথাটা, “আমরা টুর্নামেন্টে কোথাও ছিলাম না। আমরা পাঁচ-ছয়টা ম্যাচ অবধি সবার নিচে ছিলাম। সেখান থেকে কিছুটা হলেও উন্নতি করতে পেরেছি। “

সেই তো। যে দল শুরুতে একের পর এক ম্যাচ হেরে তলানিতে চলে যায় তাদের জন্য এই তো অনেক ভালো। আগের তিনবারের বিপিএলের চ্যাম্পিয়ন অধিনায়ক মাশরাফি। প্রথম দুবার ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে। আর শেষবার কুমিল্লার। বিপিএল এবার নতুন অধিনায়ক পেতে যাচ্ছে।

মাশরাফি উপভোগের মন্ত্র মনে আসরের শেষ দিক তাকিয়ে। বলেছেন, “এবার দেখে শান্তি পাবো। শেষ তিনবার চ্যাম্পিয়ন হযেছি। এবার আমাদেরই সতীর্থ কেউ হবে। অবশ্যই উপভোগ করবো। বিশেষ করে সেমি ফাইনাল, ফাইনাল। তিনটি সেমিফাইনাল হবে, একটা ফাইনাল হবে। তো উপভোগ করবো। “

কুমিল্লার শেষ চারে খেলার আশা শেষ

%e0%a6%a4%e0%a6%be

আজ দিনের প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের কাছে ২৯ রানে হেরেছে বরিশাল বুলস। লীগ পর্বে নিজেদের ১২তম ও শেষ ম্যাচ হেরে যাওয়ায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটের চতুর্থ আসর থেকে বিদায় নেয় বরিশাল। তাদের হারে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হলো গতবারের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকেও।
পয়েন্ট টেবিলের শেষ দুই দল হবার পরও প্লে-অফে খেলার কিঞ্চিৎ সম্ভাবনা ছিলো বরিশাল ও কুমিল্লার। তবে অনেক সমীকরণের উপর নির্ভর করতে হতো তাদের। তারপরও সেই সব সমীকরনের উপর নির্ভর করে প্লে-অফে খেলার স্বপ্নে ছিলো বরিশাল ও কুমিল্লার। তবে লীগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে জিততে হতো তাদের। পাশাপাশি অন্য দলগুলোর হারও কাম্য ছিলো বরিশাল ও কুুমিল্লার। কিন্তু রংপুরের কাছে হেরে সব সমীকরণের মৃত্যু ঘটায় বরিশাল। নিজেদের বিদায়ের পাশাপাশি কুমিল্লার বিদায়ও নিশ্চিত করে দেয় তারা।
আজ রংপুরের বিপক্ষে বরিশাল জিতলে ও রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে (চলমান ম্যাচ) চিটাগাং ভাইকিংস জিতলে এবং আগামীকাল রংপুরকে কুমিল্লা হারালে চার দলের পয়েন্ট হতো সমান। অর্থাৎ বরিশাল-কুমিল্লা-রাজশাহী-রংপুরের পয়েন্ট হতো ১০ করে। সেক্ষেত্রে রান রেটের হিসাবে চলে আসতো।
কিন্তু রংপুর আজ জিতে যাওয়ায় তাদের পয়েন্ট হয়ে গেছে ১২। ফলে শেষ ম্যাচে কুমিল্লা জিতলেও, ১২ পয়েন্টে থাকা অন্য তিন দলের (চিটাগাং-রংপুর-খুলনা) সমান হতে পারবে না। আর বর্তমানে ৮ পয়েন্ট রয়েছে কুমিল্লার। তাই বরিশালের সাথে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলো কুমিল্লাও।
গত আসরের দুই ফাইনালিষ্টের এমন বিদায়ে এখন প্লে-অফের দৌড়ে রয়েছে চিটাগাং, রংপুর, খুলনা ও রাজশাহী। এই চার দলের তিনটি দল প্লে-অফে জায়গা করে নিবে। ১১ খেলায় ১৬ পয়েন্ট নিয়ে গতকালই প্লে-অফ খেলা নিশ্চিত করে ফেলে ঢাকা ডায়নামাইটস।

ছেলেটি মূলত মারকুটে ব্যাটসম্যান আর খেল দেখালো বলিংএ

%e0%a6%ae%e0%a6%be

অভিষেক ম্যাচ খেলতে নেমে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেটে চমক দেখালেন ডান-হাতি অফ-স্পিনার রাজশাহী কিংসের আফিফ হোসেন। বিপিএলে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই বাজিমাত করলেন আফিফ হোসেন। মারাত্মক বোলিংয়ে একা ধসিয়ে দিয়েছেন চিটাগং ভাইকিংসের ব্যাটিং লাইন। শনিবারের ম্যাচে আফিফের ৪ ওভারে একটি মেডেনসহ ২১ রানে ৫ উইকেট শিকারের সুবাদে চিটাগাং ভাইকিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে রাজশাহী।

আসলে ১৭ বছর বয়সী আফিফের ঘূর্ণিতে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন চট্টগ্রামের স্বীকৃত ব্যাটসম্যানরা। জহুরুল ইসলামকে ফিরিয়ে উইকেট উৎসবের শুরু। এরপর একে একে ফিরিয়েছেন ক্রিস গেইল, জাকির হাসান, সাকলাইন সজীব ও ইমরান খানকে। ফলে এক শ’র নিচে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়ে চিটাগাং। রাজশাহী কিংসের জয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কারও জেতেন স্বভাবত আফিফই।

এর চেয়ে ভালো শুরু আর কী হতে পারে? বয়স মাত্র ১৭ বছর। আগের ১১ ম্যাচে দলে ছিলেন না আফিফ। শেষ ম্যাচে স্যামি ট্রাম্পকার্ড হিসেবে আফিফকে দলে নেন। অধিনায়কের আস্থার যথেষ্ট প্রতিদানই দিয়েছেন তিনি। ব্যক্তিগত রেকর্ড গড়ে দলের প্রয়োজনীয় মুহূর্তে দারুণ এক জয় এনে দিয়েছেন আফিফ। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ইতিহাসে অভিষেকে এবং কম বয়সী হিসেবে ৫ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের লাহোর লায়ন্সের বাঁ-হাতি পেসার জিয়াউল হকে পেছনে ফেলেছেন খুলনার সন্তান আফিফ।

বিপিএলের এ আসরে তার আগে মাত্র দু’জন বোলার ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। একজন তার নিজ দলের পেসার আবুল হাসান রাজু ও অপরজন চিটাগং ভাইকিংসের পেসার তাসকিন আহমেদ। বিপিএলে অভিষেক ম্যাচে ৫ উইকেট পাওয়ার কৃতিত্ব আফিফেরই প্রথম।

“প্রত্যাশা বোলিংয়ে বেশি থাকবে না। আমি মেইনলি ব্যাটসম্যান। ব্যাটিং আগে, তারপর আমার বোলিং” …সংবাদ সম্মেলনে যখন বলছেন আফিফ হোসেন, পাশে বসে চোখ বড় বড় করে তাকিয়ে জেমস ফ্র্যাঙ্কলিন। আফিফ কথা বলছিলেন বাংলায়, তবে ‘মেইনলি ব্যাটসম্যান’ শুনেই অবাক কিউই অলরাউন্ডার। আফিফের বিপিএল সতীর্থের জন্যও কথাটি চমক। ফ্র্যাঙ্কলিন যেন আকাশ থেকে পড়লেন, “তুমি মূলত ব্যাটসম্যান।”

শুধু ফ্র্যাঙ্কলিন নয়, আরো অনেকেরই এরকম ধন্দে পড়ে যাওয়াই স্বাভাবিক। টি-টোয়েন্টি অভিষেকে ৫ উইকেট নিয়ে আলো ছড়িয়েছেন, নাম লিখিয়েছেন রেকর্ডের পাতায়। সেই আফিফ আসলে ব্যাটসম্যান, না জানা থাকলে এটা কে ধারণা করতে পারবে! আদতে তিনি বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। সহজাত আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান। বিকেএসপিতে ও বয়সভিত্তিক দলগুলির কোচরা তার ব্যাটিংয়ে দেখেন তামিম ইকবালের ছায়া। রাজশাহী কিংস দলে জায়গাও পেয়েছেন ব্যাটিং দিয়েই

বিপিএলে বরিশালের কাছে রাজশাহীর হার

%e0%a6%ac

বরিশাল বুলসের বিপক্ষে ম্যাচটা রাজশাহী কিংসের জন্য ছিল মহা গুরুত্বপূর্ণ। সেই ম্যাচ ১৭ রানে হেরে গিয়ে বিপদে পড়ে গেল তারা। টানা ৫ হারের পর বিপিএলে জয়ে ফিরল মুশফিকুর রহীমের বরিশাল। কিন্তু তাদের শেষ চারে থেকে প্লে অফে খেলার সম্ভাবনা প্রায় শূণ্যের কোঠায়। তবে তাদের কাছে হেরে রাজশাহীর প্লে অফে খেলার সম্ভাবনা এখন শঙ্কায় রূপ নিল। ১১ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ১০ থাকলো। রংপুর রাইডার্সের ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট। দুই ম্যাচ বাকি। চতুর্থ স্থানের জন্য রংপুরের সাথে লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়ল রাজশাহী।

বিপিএলে বৃহস্পতিবার একটি ম্যাচই ছিল। টুর্নামেন্টের হিসেব করলে খুব বড় ম্যাচ না। কিন্তু মুশফিকুর রহীমের বরিশালের জয়ে ফেরার মরীয়া লড়াই ছিল। সেই লড়াইয়ে টসে হেরে আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ১৬১ রান তুলল তারা। এরপর ম্যাচের মাঝেই কিছুটা ছিটকে পড়ে রাজশাহী। পরে আর ফিরে আসতে পারেনি তারা। শেষ পর্যন্ত ড্যারেন স্যামির দলকে ৭ উইকেটে ১৪৪ রানে থামতে হয়েছে।

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ১৬২ রানের লক্ষ্যে নেমে প্রথম ১৪ বলে ২৭ রান তোলে রাজশাহী। কিন্তু তারপর থেকে উইকেট হারাতে শুরু করে তারা। ১০ ওভারে ৩ উইকেটে ৬৪ রান তাদের। সামিট প্যাটেল হাল ধরেন। জেমস ফ্রাঙ্কলিনকে (১৮) ৪৪ রানের জুটি গড়েন।

শেষে ১২ বলে আর ৩৩ লাগে রাজশাহীর। স্যামি কেবল সামিটের সাথে যোগ দিয়েছেন। কিন্তু ১৯তম ওভারে জোড়া আঘাত হেনে আরেক ক্যারিবিয়ান রায়ান এমরিট ছিটকে ফেলেন রাজশাহীকে। চার বলের মধ্যে তিনি তুলে নেন সামিট ও ফরহাদ রেজাকে (৪)। সামিট ম্যাচ সর্বোচ্চ ৬২ রান করেছেন ৫১ বলে। কিন্তু ৪ ওভারে ২৭ রানে মূল্যবান ৩ উইকেট নিয়ে এমরিট ম্যান অব দ্য ম্যাচ। শেষ ওভারে ২৮ রান করা হয়নি রাজশাহীর। স্যামি অপরাজিত থেকেছেন ১১ রানে। মুমিনুল হক (১৬), নুরুল হাসান (১২), সাব্বির রহমানরা (৮) ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়ে বরিশালের বোলারদের কাছে হার মেনেছেন। একটি করে উইকেট নিয়েছেন রাব্বি, এনামুল, মনির ও পেরেরা

রাজশাহীর বিরুদ্ধে কুমিল্লার বিজয়

%e0%a6%a4%e0%a6%be

বিপিএলের শেষ পর্যায়ে এসে জ্বলে উঠেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। তাদের আর শেষ চারে থাকার উপায় নেই। তার মানে গেলবার জেতা শিরোপা ধরে রাখার আশাও নেই। কিন্তু মঙ্গলবার চমৎকার জয়ের পর বুধবারও মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম কাঁপিয়ে চলেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। তাদের বিপক্ষে ৭ উইকেটে ১২৪ রান তুলেছে রাজশাহী কিংস। শেষ দিকে জেমস ফ্রাঙ্কলিন ৩১ বলে অপরাজিত ৪৪ রানের ঝড়ে কুমিল্লাকে পাল্টা কাঁপিয়ে না দিলে রাজশাহীর বলার মতো সংগ্রহই হয় না।

এই রাজশাহীকে হারিয়েই টানা ৫ হারের পর জয়ে ফিরেছিল কুমিল্লা। সেটি চট্টগ্রামে। তারপর আবার টানা দুই ম্যাচে হার। বরিশাল বুলসকে দাপটে ৮ উইকেটে হারিয়ে জয়ে ফেরা আবার। এবং সেই ধারাবাহিকতায় রাজশাহীকে এদিন ৫৯ রানে ৬ উইকেট হারানো দল বানিয়ে দেন মাশরাফি-সাইফুদ্দিনরা। শেষের প্রতিরোধে রান কিছুটা বেড়েছে।

কিন্তু টস জিতে রাজশাহীর শুরুটা ঝড়ের মতোই ছিল। মুমিনুল হক ও নুরুল হাসানের ওপেনিং জুটিতে ৪ ওভারে ৩৭ রান পেয়ে যায় তারা। এরপর কুমিল্লার বোলাররা আঘাত হানতে শুরু করেন। ২০ রান করে মুমিনুল বোল্ড হন রশিদ খানের বলে। কিছুক্ষণের মধ্যে মাশরাফি তুলে নেন ১৭ রান করা নুরুলকে।

৪৬ থেকে ৫৯, মানে ১৩ রান তুলতেই এই পর্যায়ে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে কুমিল্লা। আগের দিন বিশাল অংকের জরিমানার শাস্তি পাওয়া সাব্বির রহমান (৮) ব্যর্থ। তরুণ পেসার সাইফুদ্দিন পর পর ২ ওভারে তুলে নেন সামিট প্যাটেল (৪), মেহেদী হাসান (৭) ও অধিনায়ক ড্যারেন স্যামিকে (০)।

এই ধাক্কা সামলাতে সামলাতেই ফরহাদ রেজা (১৩) হলের মাশরাফির দ্বিতীয় শিকার। শেষ ঝড় তুললেন নিউজিল্যান্ডের জেমস ফ্রাঙ্কলিন। ইনিংসের শেষ ওভারে শাহাদাত হোসেনকে ৩টি ছক্কা ও একটি বাউন্ডারি মেরেছেন। ওই ওভারে এসেছে ২৪ রান। ৩১ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৪৪ রানে অপরাজিত ফ্রাঙ্কলিন।

মেহেদি মারুফ জেতাল নিজ দলকে

dmvfu

ব্যাটিংয়ে এমন জাদু দেখানোর পর ম্যাচটি না জিতলে তা হতো বড় আক্ষেপের কারণ। সেই আক্ষেপ জমতে দিলেন না বোলাররা। রাজশাহীর এই বিজয়ে ব্যাট হাতে ফরহাদ রেজা আর মেহেদী মিরাজের ভূমিকা যেমন, তেমনই বোলার নাজমুল ইসলাম, আবুল হোসেন রাজু আর অলরাউন্ডার মেহেদীর দাপটে মুখ থুবড়ে পড়ল রংপুর। দলের বিপদের সময় ফরহাদ রেজার সাথে দারুণ পারফর্ম করা তরুণ ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ বল হাতেও জ্বলে উঠলেন। জ্বলে উঠলেন নাজমুল ইসলাম। ফলে রংপুর রাইডার্সকে হারিয়ে ৪৯ রানে ম্যাচ জিতে নিল রাজশাহী কিংস। রাজশাহীর টানা চতুর্থ জয়ের বিপরীতে রংপুরের এটি টানা তৃতীয় পরাজয়। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠে মেহেদী মিরাজের হাতে।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ৪৩ রানে ৭ উইকেট হারানো রাজশাহী শেষ পর্যন্ত আর কোনো উইকেট না হারিয়ে ১২৮ রান সংগ্রহ করেছিল! রাজশাহীর দেওয়া এই মাঝারি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় রংপুর। শিকারী মেহেদী হাসান মিরাজ। তার বলে উইকেট কিপার উমর আকমলের হাতে ক্যাচ দেন ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরতে থাকা সৌম্য সরকার (১)। দলীয় ২৫ রানে আবারও উইকেট পতন। ১১ বলে ১২ রান করে মোহাম্মদ শামির বলে ড্যারেন স্যামির হাতে ধরা পড়েন মোহাম্মদ শেহজাদ। এরপর আবারও মেহেদীর আঘাত। নিজের বলে নিজেই দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়ে ফিরিয়ে দেন ১ রান করা নাসির জামসেদকে

অনন্য উচ্চতায় বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তূজা

kdমাশরাফির কুমিল্লাহ হারছে বলে মন খারাপ। আমি কুমিল্লার সমর্থক নই। আমি ম্যাসের কারনে কুমিল্লাকে সমর্থন করি। ম্যাসকে জানাকে চাই তুমি একজন খাঁটি সোনা। তোমার দলগত প্রেম ও দেশ প্রেমের তুলোনা পৃথিবীতে বিরল। তুমি অনন্য, অসাধারন। তুমি হারলেও তোমার প্রতি ভালবাসায় চিড় ধরবে না। তোমার প্রতি ভালবাসা অটুট থাকবে খেলা ছেড়ে দিলেও। কেননা আর একজন মাশরাফি তৈরী হতে শত বছর কেটে যাবে। ম্যাশ সম্পর্কে সাবেক জাতীয় দলের কোচ ডেভ হোয়াট মোর বলেন, পৃথিবীতে মাশরাফির মতো দ্বিতীয় কোন খেলোয়াড় নাই। তার পায়ে ৭টি অপারেশন। সকালে ঘুম থেকে উঠে পা সোজা করতে ১৫ মিনিট সময় লাগে। শুধু কি তাই, তার ফোলা পা থেকে সিরিঞ্জ দিয়ে পানি বের করতে আধাঘন্টা সময় পার হয়ে যায় তার পরেই পা দুটি সচল হয়। ত্রিকেটের প্রতি দেশের প্রতি এমন ভালবাসা বিশ্বে একমাত্র মাশরাফিরেই আছে। তাইতো তাকে আজীবন একজন জনপ্রিয় অপ্রতিদ্বন্দ্বি অতুলনীয় খেলোয়াড় হিসেবে সম্মান করে যাব। যেদিন মাশরাফি অবসগ গ্রহণ করবেন দেখবেন মাঠে ও টিভির পর্দায় দেশ বিদেশের লাখ কোটি দর্শকের চোখে পানিতে ভরা থাকবে।মহান আল্লাহর কাছে ম্যাশের দীর্ঘ ও সুস্থ্য জীবন প্রাথনা করি।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »