Category: শেষ পাতা

নওগাঁর নিয়ামতপুরে যৌতুকের দাবিতে এক গৃহবধু নির্যাতনের শিকার

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর নিয়ামতপুরে এক গৃহবধু যৌতুকের কারণে স্বামীর দ্বারা শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। উপজেলার বাহাদুরপুর ইউপির শ্যামপুর গ্রামের জিন্নাত মন্ডলের মেয়ে শিরিনা আক্তার (২৮) এর সাথে ১৫ বছর পূর্বে একই ইউপির আদমপুর চৌবাড়িয়াপাড়ার আবুল কাশেমের ছেলে এনামুল হক বাবু (৩০) এর বিবাহ হয়। বিয়ের সময় শিরিনার বাবা নগদ ৩০ হাজার টাকা, ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ও স্বর্ণালংকার দিয়েছিলেন। বাবার কুপরামর্শে ছেলে এনামুল হক বাবু ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের দাবী তুলে ও সংসারের সামান্য কিছু হলেও মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন চালায় শিরিনা আক্তারের উপর।এ বিষয়ে গৃহবধুর বাবা জিন্নাত মন্ডল বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
থানা ও অভিযোগকারী সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ জানুয়ারী রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় মোবাইলকে কেন্দ্র করে এনামুল হক বাবু স্ত্রী শিরিনা আক্তারকে বাঁশ দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় বেধড়ক মারপিট করে অজ্ঞান করে দেয়। প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাকে কোন রকমে রক্ষা করে। পরদিন সকালে শিরিনা আক্তার তার বাবাকে খবর দিলে তার বাবা খড়িবাড়ী বাজারে মাতৃ ক্লিনিকে ভর্তি করেন। মাতৃ ক্লিনিকের দায়িত্ব প্রাপ্ত ডাক্তার গণ অপারগতা প্রকাশ করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। গত ১৭ জানুয়ারী শিরিনাকে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে শিরিনা প্রচন্ড যন্ত্রনায় হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছেন।
নির্যাতনের শিকার শিরিনা আক্তার বলেন, আমার স্বামী অনেকবার আমাকে যৌতুকের কারণে মারপিট করে। অনেক সহ্য করেও এতদিন সংসার করে আসছিলাম। কারণ আমার দুটি সন্তান রয়েছে। সন্তানদের মুখের দিকে চেয়ে সব কিছু সহ্য করে আসছিলাম। কিন্তু দিন দিন আমার স্বামীর নির্যাতনের পরিমান বেড়েই চলেছে। সে পরকিয়ায় আসক্ত হয়েছে। তাই সামান্য কারণে আমার উপর নির্যাতন শুরু করে। আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই।

সালের মধ্যে সকলের জন্য ইন্টারনেট — প্রতিমন্ত্রী পলক

ঢাকা, ৫ মাঘ (১৮ জানুয়ারি) :
২০২১ সালের মধ্যে দেশের সকল জনগণকে ইন্টারনেটের আওতায় নিয়ে আসা হবে। গতকাল সুইজারল্যান্ডের দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ৪৭তম বার্ষিক সভার ‘ইনোভেশনস টু কানেক্ট দ্য আনকানেক্টেড’ শীর্ষক এক ফোকাস গ্রুপ ডিসকাসনে অংশ নিয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক এ কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী এ সময় বলেন, ইতোমধ্যে দেশের ৪০ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। এ সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। আগামী ৫ বছরে এ সংখ্যা শতভাগে নিয়ে যেতে আমরা নতুন নতুন উদ্ভাবন নিয়ে কাজ করছি। এ ফোকাস গ্রুপ ডিসকাশনে আরো অংশ নেন রুয়ান্ডার প্রেসিডেন্ট পল কাগামে (চধঁষ কধমধসব), জাপানের ইকোনমি, ট্রেড এন্ড ইন্ডাস্ট্রি মন্ত্রী হিরোশি সেকো (ঐরৎড়ংযরমব ঝবশড়), ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব এর জনক স্যার টিম বার্নস লি, ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের মহাসচিব হাওলিন ঝাও, ইউনেস্কোর মহাসচিব ইরিনা জর্জিয়েভা বোকাভা (ওৎরহধ এবড়ৎমরবাধ ইড়শড়াধ)সহ আরো অনেকে। প্রসঙ্গত গত বছরের ১২ মার্চ ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম জুনাইদ আহ্মেদ পলককে ইয়ং গ্লোবাল লিডার মনোনীত করে।

ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলা, স্টার জলসা, স্টার প্লাস বন্ধের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

১৯শে জানুয়ারী, ২০১৭ইং তারিখে বিশেষ করে জি বাংলা, স্টার জলসা, স্টার প্লাস এই তিনটি ভারতীয় চ্যানেল বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করার রিটের বিষয় মহামান্য হাইকোর্ট রায় দিবেন। আমরা আগ্রহ নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের দিকে তাকিয়ে আছি।
প্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা
১) আপনারা জানেন বাংলাদেশের একটি নিজস্ব সংস্কৃতি ও কৃষ্টি রয়েছে। আছে মজবুত সামাজিক মূল্যবোধ। পারিবারিক ও সামাজিক সম্প্রীতির সার্বজনীন ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আমরা বসবাস করে আসছি। সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের জীবন যাপনে নানা পরিবর্তন এসেছে। সেখানে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতি, কৃষ্টি, মূল্যবোধ গুরুত্ব হারাচ্ছে বিশেষ করে বর্তমান প্রজন্মের কাছে।
২) আমরা অনেক দিন ধরে আকাশ সংস্কৃতির বিরুদ্ধে কোন কথা বলছি না। মনে হতে পারে আকাশ সংস্কৃতি আমাদের জীবন ধারণের সাথে মানিয়ে গেছে। হ্যা, বর্তমান স্যাটেলাইটের যুগে তথ্য প্রযুক্তি সহ বিশে^র খবর জানা আমাদের প্রাত্যাহিক জীবনের চাহিদা হয়ে দাড়িয়েছে। কেননা বিশে^র প্রতিটি দেশেই আমাদের দেশের মানুষ বসবাস করছেন। এবং নানা ক্ষেত্রে তারা দেশের মুখ উজ্জ্বল করে। দেশের অর্থনীতিতে যে রির্জাভের কথা শুনে থাকি তাদের পাঠানো।
৩) কিন্তু সমস্যা দেখা দিয়েছে ব্যক্তি ও পারিবারিক জীবনে আকাশ সংস্কৃতির ব্যাপক কু-প্রভাব। আমরা দুঃচিন্তার সাথে অনুধাবন করছি পারিবারিক ভালবাসার সাবলিল জায়গাগুলো ধীরে ধীরে অনেকখানিক ক্ষয়ে গেছে। এখনই সময় এই কু-প্রভাব থেকে নিজস্ব সংস্কৃতি ও সামাজিক মূল্যবোধ রক্ষা করা।
৪) আপনারা সচেতন ভাবে জানেন জি বাংলা, স্টার জলসা, স্টার প্লাস এই চ্যানেলগুলো সিরিয়াল নির্ভর অনুষ্ঠান প্রচার করে থাকে। একটু খেয়াল করলে দেখতে পাই এরা প্রতিটি সিরিয়ালে নারী প্রধান চরিত্র চিত্রায়িত করে থাকে। পুরুষ চরিত্রগুলো সহায়ক হয়ে থাকে। এই চ্যানেলগুলোর উদ্দেশ্য নারী দর্শকদের তাদের সিরিয়াল দেখতে বাধ্য করা। বানিজ্যিক উদ্দেশ্য তাদের অন্যতম লক্ষ্য। আমরা সচেতনভাবে এই অবক্ষয়ের শিকার হতে পারি না। কিছু  কুফল নিচে তুলে ধরা হলো।
ক) সংসারের কর্ত্রী সিরিয়াল দ্বারা এতোই প্রভাবিত হয়ে থাকেন যে, সব কাজ পড়ে থাকুক কিন্তু সিরিয়াল দেখা মিস করা যাবে না। এতোটাই নেশাগ্রস্থ থাকেন যে, স্বামীর সাথে কলহ করতে তাদের যুক্তির অভাব হয় না।
খ) সন্তানদের লেখাপড়ার খোঁজ রাখার মত বিষয়ে উদাসীন হয়ে থাকে। মাতৃ¯েœহ থেকে শিশুরা বঞ্চিত হয়ে থাকে। শিক্ষিত মা সন্তানদের লেখাপড়ার কোন ভুমিকা রাখতে পারে না। গৃহশিক্ষকের উপর সন্তানদের লেখাপড়ার দায়িত্ব দিয়ে তারা নিশ্চিত। শিশুরা মায়ের স্নেহ-মমতার বদলে শাসন ও নির্যাতনের শিকার হয়ে থাকে।
গ) মেয়েরা পড়ালেখা ভূলে অনৈতিক শিক্ষা দ্বারা প্রভাবিত হয়ে নানা রকম অবাধ্যতা দেখায়। যা পরিবারের জন্য ভয়ের কারন হয়ে যায়।
ঘ) সিরিয়ালে পুরুষ নারীর বাধ্য থাকে সাধারণত। ফলে নারীর ক্ষমতা সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে এদেশের বিবাহিত নারীরা উপলব্ধিতে আনতে পারে না। তাদের অনেকেই পরোকীয়ায় আসক্ত হয়ে পড়ে। গতকাল বাংলাদেশ শিশু ফাউন্ডেশনের রির্পোটে প্রকাশিত হয়েছে। শিশু নির্যাতনের একটি প্রধান কারণ হিসেবে পরোকীয়া উঠে এসেছে।
ঙ) সিরিয়ালের কারণে পরিবারের রান্না-বান্না, শিশুদের স্কুলে নেয়া ইত্যাদি বাড়ির কাজের মেয়ের উপর ন্যাস্ত থাকে। এতেও শিশুদের মানুসিক বিকাশ ভীষণভাবে বাধা গ্রস্থ হয়। শিশুরা বুয়ার আচরনে অভ্যস্থ হয়ে পড়ে। যা খুবই স্পর্শকাতর।
চ) সিরিয়াল কিশোরীদের মানসিক স্বাস্থ্য গঠনে বিরুপ প্রভাব ফেলে। যৌণজীবন সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা তাদের মনে আসন করে নেয়। অনেকই পর্নগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে পড়ে। অনেক সময় অবাধ্য আচরণে অভ্যস্থ হয়ে পড়ে।
ছ) ভারতীয় চ্যানেলের প্রতি টিভি দর্শকরা এতোটাই মোহগ্রস্থ যে দেশীয় টিভি অনুষ্ঠান দেখার রুচিই তাদের নষ্ট হয়ে গেছে। এর ফলে আমাদের টিভি নির্মাতারা পর্যাপ্ত বাজেটের অভাবে ভাল কিছু করতে পারছেন না। টিভিগুলোা বিদেশী সিরিয়াল বাংলায় ডাবিং করে বিজাতীয় সংস্কৃতি দেশী
 টিভিতে চালাচ্ছে। ফলে দেশীয় সংস্কৃতি দুর্দিনে পড়েছে। ভারতীয় সিরিয়ালের কারণে বাংলাদেশে আত্মহত্যার মত ঘটনাও ঘটেছে  যা বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় এসেছে

২য় ড্যাফোডিল প্রিমিয়ার লীগ পুরুষদের ক্রিকেটে ইংরেজী বিভাগ ও মহিলাদের ক্রিকেটে আইন বিভাগ চ্যাম্পিয়ন

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি আয়োজিত ২য় ড্যাফোডিল প্রিমিয়ার লীগ (ডিপিএল) পুরুষ ও মহিলা ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০১৭ এর পুরুষ বিভাগে ইংরেজী বিভাগ চ্যাম্পিয়ন ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ রানার্স আপ হয়েছে। মহিলা বিভাগে আইন বিভাগ চ্যাম্পিয়ন ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ রানার্স আপ হয়েছে । আশুলিয়ায় বিশ^বিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসে ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ অনুষ্ঠিত ফাইনাল খেলায় পুরুষ বিভাগের ফাইনাল খেলায় ইংরেজী বিভাগ ৯ উইকেটে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। অপর দিকে মহিলা ক্রিকেটে আইন বিভাগ ৯ উইকেটে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। পুরুষদের ক্রিকেটে ইংরেজী বিভাগের শাহরিয়ার ম্যান অব দি ম্যাচ ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সৈকত ম্যান অব দি টূর্নামেন্ট বিবেচিত হয় এবং মহিলাদের ক্রিকেটে আইন বিভাগের লাভলী ম্যান অব ুদম্যাচ নির্বাচিত হয়। সকালে আশুলিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস ক্রিকেট মাঠে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউানিভার্সিটির ট্রাষ্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ সবুর খান প্রধান অতিথি হিসেবে ফাইনাল খেলা উদ্বোধন করেন। খেলা শেষে বিশ^বিদ্যালয়ের পরিচালক অনিল চন্দ্র পাল বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করেন। এসময় ভারপ্রাপ্ত একাডেমীক ডিরেক্টর তানজীনা হোসেইন, পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান ড. এ.বি.এম কামাল পাশা, ট’র্নামেন্টের আহ্বায়ক সাফায়াত মনসুর রানা, আরিফুল ইসলাম সহ উধ্বর্তন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
ক্যাপশনঃ ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি আয়োজিত ডিপিএল ২য় মহিলা ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০১৭ চ্যাম্পিয়ন আইন বিভাগের খেলোয়াড়দের হাতে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি তুলে দিচ্ছেন বিশ^বিদ্যালয়ের পরিচালক অনিল চন্দ্র পাল ও ভারপ্রাপ্ত একাডেমীক ডিরেক্টর তানজীনা হোসেইন।

কামরুন নাহার সভাপতি-ড. জিনবোধি মহাসচিব বাংলাদেশ মানবাধিকার এসোসিয়েশন নতুন কমিটি গঠিত

চট্টগ্রামের মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন বাংলাদেশ মানবাধিকার এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন উপলক্ষে আজ ১৭ জানুয়ারী বিকাল ৪টায় নগরীর কোর্ট হিলস্থ আইনজীবি ভবনে সংগঠনের কার্যালয়ে সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বিশিষ্ট নারীনেত্রী অধ্যাপক এডভোকেট কামরুন নাহার বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বার্ষিক রিপোর্ট ও প্রতিবেদন পেশ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কে. এম. ফয়েজ আহমেদ। সংগঠনের সদস্য স.ম. জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু, সাংবাদিক মুহাম্মদ শামসুল হক, অধ্যক্ষ আবদুর রহীম, এডভোকেট লুৎফুন নাহার, এডভোকেট শিখা চক্রবর্তী, ডা: আইরিন সুলতানা, এডভোকেট রফিক উদ্দিন চৌধুরী, প্রকৌশলী সঞ্জয় কুমার দাশ, এডভোকেট শরীফা নার্গিস কণা, এডভোকেট যীশুকৃষ্ণ রক্ষিত, এডভোকেট বীথিকা চৌধুরী, সেহেরিন আফসানা। সভায় বক্তারা বলেন, মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় এবং জাতির নানা সংকট উত্তরনে মানবাধিকার সংগঠন সমূহের রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। সমাজের অনৈতিক ও নিয়ম বহির্ভূত কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখতে মানবাধিকার কর্মীদের এগিয়ে আসা প্রয়োজন। সভায় বক্তারা বলেন, সমাজের আর্ত-পীড়িত মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ মানবাধিকার এসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে চট্টগ্রামে কাজ করে চলেছে। সংগঠনের চলমান অগ্রযাত্রাকে বেগবান করতে সকল সদস্যদের ও মানবাধিকার কর্মীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। সভা শেষে সবার সর্বসম্মতিক্রমে অধ্যাপক এডভোকেট কামরুন নাহার বেগমকে চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষুকে মহাসচিব করে আগামী ২ বছরের জন্য নতুন কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন, ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শামসুল হক, অধ্যাপক কে. এম. ফয়েজ আহমেদ, অধ্যক্ষ আবদুর রহীম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট লুৎফুন নাহার, এডভোকেট শিখা চক্রবর্তী, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: আইরিন সুলতানা, অর্থ সম্পাদক এডভোকেট রফিক উদ্দিন চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক স.ম. জিয়াউর রহমান, সদস্য যথাক্রমে প্রকৌশলী সঞ্জয় কুমার দাশ, এডভোকেট শরীফা নার্গিস কণা, এডভোকেট যীশু কৃষ্ণ রক্ষিত, এডভোকেট বীথিকা চৌধুরী, সেহেরিন আফসানা।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে বাংলাদেশে ইংরেজী উচ্চারণ শিক্ষাঃ সমস্যা ও অনুশীলন শীর্ষক সম্মেলন অনুষ্ঠিত


বিশুদ্ধ ইংজেী উচ্চারণ শিক্ষাকে ইংরেজীভাষা শিক্ষা কোর্সের অংশ হিসেবে অধিকতর গুরুত্ব দেয়ার এবং একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ও আন্তজাতিক চাকরী বাজারের উপযোগী হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে এবং উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে এর সঠিক ব্যবহার ও চর্চার উপর বক্তারা গুরুত্ব আরোপ করেছেন। এ ক্ষেত্রে বক্তারা সুসংগঠিত, পদ্ধতি ও রীতিগত ইংরেজী উচ্চারণ কোর্সসমূহ প্রণয়ণ ও প্রশিক্ষত দক্ষ শিক্ষকদের প্রয়োজনীয়তার উপরও গুরুত্ব আরোপ করেন।
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইংরেজী বিভাগের আয়োজনে “বাংলাদেশে ইংরেজী উচ্চারণ শিক্ষা ঃ সমস্যা ও অনুশীলন” শীর্ষক আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়ামে বক্তারা এসব কথা বলেন। গতকাল জানুয়ারি ১৪, ২০১৭ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে এ সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ইউনিভার্সিটি কুষ্টিয়ার উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ আসকারী। সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন এন.সি.টি.বি’র সদস্য (কারিকুলাম) প্রফেসর মহসিউজ্জামান। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ এম. ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর এ. এম. এম. হামিদুর রহমান।
আই. এম. এল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী ভাষা এবং প্রশিক্ষক বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. আরিফা রহমান ‘‘ইংলিশ প্রনানসিয়েশন এন্ড গ্লোবাল ইন্টেলিজিবিলিটি” বালাদেশে ইংরেজী উচ্চারণ শিক্ষার গুরুত্ব এবং প্রয়োজনীয়তা শীর্ষক মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এ সময় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যলয়ের উপাচার্যগণ উপস্থিত ছিলেন। এই পর্বটির সভাপতিত্ব এবং সঞ্চলনা করেন যথাক্রমে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ এম. ইসলাম এবং ইংরেজী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ শামসুল হক। পরে ভারতের কে. আই.আই.টি’র ড. কয়েস খান ‘‘ভারতের শিক্ষার্থীদের ইংরেজী উচ্চারণ শিক্ষাঃ ভূবনেশ্বর ইংরেজী উচ্চারণ প্রশিক্ষকদের অভিজ্ঞতা” শীর্ষক বক্তব্য প্রদান করেন।
দিনব্যাপি সম্মেলনে একই সাথে ৬টি পেপার প্রেজেন্টেশন পর্ব এবং কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয় যেখানে ভারত, শ্রীলংকা, তুরুষ্ক এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২২ জন বক্তা অংশগ্রহণ করে। বিকালে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি শিক্ষক- শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে একটি মজাদার নাট্য পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
সমাপনী অনুষ্ঠানে বি.ইএল.টি.এ’র সভাপতি হারুনুর রশিদ খানের সভাপতিত্বে এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ইংরেজী বিভাগের প্রধান ড. মোঃ মহসিন রেজার সঞ্চলনায় ‘‘বাংলাদেশে উচ্চারণ শিক্ষা” শীর্ষক একটি পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্যান্যের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন আই.এম.এল., ঢাকা বিশ্ববদ্যালয়ের প্রফেসর ইফাত আরা নাসরিন মজিদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. এম শহীদুল্লাহ, বাংলাদেশ উন্মক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর এম. কামসুল হক, সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির প্রফেসর আবদুস সেলিম, সাউথ ইষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় এবংবি.ই.এল.টি. এ এর সভাপতি প্রফেসর হারুনুর রশিদ খান এবং এন.সি.টি.বি’র গৌতম রায়। বক্তরা বাংলাদেশে ইংরেজী উচ্চারণের বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কে আলোকপাত করেন। সমন্বয়ক ড. বিনয় বর্মণের সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সিম্পোজিয়ামের সফলসমাপ্তি ঘটে। দিনব্যাপি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচুর সংখ্যক অংশগ্রহণকারী উপস্থিত ছিলেন।
ক্যাপশন: ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইংরেজী বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত “বাংলাদেশে ইংরেজী উচ্চারণ শিক্ষা ঃ সমস্যা ও অনুশীলন” শীর্ষক আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়ামে অতিথিবৃন্দ।

মুন্সিগঞ্জের কামারখোলা খানকায়ে ছালেহিয়া কমপ্লেক্সে ছারছীনা পীর ছাহেবের তিনদিন ব্যাপী মাহফিল আজ শুরু ।


ছারছীনা সংবাদদাতা ঃ ছারছীনা দরবার শরীফের মরহুম পীর ছাহেব কেবলাদ্বয়ের ইন্তেকাল বার্ষিকী উপলক্ষে মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলাধীন কামারখোলা খানকায়ে ছালেহিয়া কমপ্লেক্সে তিনদিন ব্যাপী ঈছালে ছওয়াব মাহফিল আজ বুধবার শুরু হবে। ২০ জানুয়ারী রোজ শুক্রবার বাদ জোহর আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। তিনদিন ব্যাপী মাহফিলে প্রত্যহ বাদ ফজর ও মাগরীব তা’লীম, গুরুত্বপূর্ণ নসীহত ও আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করিবেন ছারছীনা শরীফের পীর ছাহেব আমীরে হিযবুল্লাহ, মুজাদ্দিদে যামান, কুত্ববুল আলম আলহাজ্ব হযরত মাওলানা শাহ্ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহ (মা.জি.আ.)। মাহফিলে ইসলামের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াবলীর উপর আলোচনা করিবেন ছারছীনা দরবার শরীফের বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামগণ। উক্ত মাহফিলে সকল পীর ভাই, মুহিব্বীন সহ সর্বস্তরের মুসলমানদের উপস্থিত হওয়ার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন খানকায়ে ছালেহিয়া কমপ্লেক্স উন্নয়ন কমিটির সভাপতি ও আমিন মোহাম্মদ গ্রপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম. এম. এনামুল হক।

বড়াইগ্রামে চার ঘন্টা ব্যবধানে তিন সড়ক দুর্ঘটনা॥ নিহত ২ আহত ৩৮


প্রদীপ গোমেজ, প্রতিনিধি, বড়াইগ্রাম (নাটোর):
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার পৃথক স্থানে চার ঘন্টার ব্যবধানে তিন সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত ও কমপক্ষে ৩৭ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর ৪টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত নাটোর-পাবনা মহাসড়কের আহম্মেদপুর কারবালা এলাকায় গাছের সাথে ট্রাকের ধাক্কায়, আহম্মেদপুর-বড়াইগ্রাম আঞ্চলিক সড়কের মৌখাড়া বাদামতলা এলাকায় ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক ও ট্রাকের সংঘর্ষে এবং বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের মানিকপুর এলাকায় যাত্রীবাহি বাসের সাথে মালবাহি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার সার্জেন্ট শরীফুল ইসলাম জানান, ভোর ৪টার দিকে কারবালা এলাকায় ঢাকা থেকে নাটোরগামী পাইপবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে গাছের সাথে ধাক্কা খায়। এতে ট্রাকের ভিতরে থাকা ড্রাইভারসহ ৪ যাত্রী ও ট্রাকের উপরে থাকা আরও ৩ যাত্রী মারাতœক আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বাদামতলা এলাকায় ফলবোঝাই ইজিবাইকের সাথে নাটোরগামী সার বোঝাই ট্রাকের সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই সাহাদত আলী (১৫) নামে ফল ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়। এ সময় সাহাদতের পিতা শাহীন আলী (৪৫) মারাতœক আহত হয়। তাকে বনপাড়া পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদিকে সকাল ৮টার দিকে মানিকপুর এলাকায় কুষ্টিয়া থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহি এসবি পরিবহনের একটি বাসের সাথে বিপরীত দিক থেকে আসা মালবোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটলে বাসটি ছিটকে পাশ্ববর্তী খাদে উল্টে পড়ে। এতে বাসের কমপক্ষে ৩০ যাত্রী এবং ট্রাকের হেলপারসহ চালক গুরুতর জখম হয়। স্থানীয়রা আহত সকলকে উদ্ধার করে বড়াইগ্রাম ও নাটোর সরকারী হাসপাতাল সহ আশে-পাশের বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করে। আহতদের মধ্যে একজন নাটোর হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে নিহতের ওই ব্যক্তি ট্রাকের চালক তবে তাৎক্ষণিক তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। আহত বাসযাত্রীদের মধ্যে যাদের পরিচয় পাওয়া গেছে তারা হচ্ছেন, সিরাজগঞ্জের শ্যামপুরের নূর আলম (৩৮), কুমিল্লা ত্রিমনীর শরীফ (৩০), লাকসাম গনিপুরের আবুল কাশেম (৩৮), কুষ্টিয়া দৌলতপুরের জাকির হোসেন (৩৭), ভেড়ামারার আতাউর রহমান (৫৫), নোয়াপাড়ার করিম সেখ (৩০), কুষ্টিয়া সদরের আব্দুর রাজ্জাক (৪০), ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার হাসান আলী (৩২), পালপাড়ার সাব্বির (২৪), ফুলবাড়িয়ার হারুন অর রশিদ (৫০), চৌগাছি গোদাগাড়ির মিলন (২৫), পাবনা ঈশ্বরদীর আশরাফুল ইসলাম (৩৫) ও ট্রাকের হেলপার চাপাইনবাবগঞ্জের হাসান (২৮)।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, দুর্ঘটনার শিকার ৩ ট্রাক ও বাস পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

গাজীপুরে নিরাপদ ইমারত নির্মাণ বিষয়ক কর্মশালা

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান (আতিক), গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন, কেয়ার বাংলাদেশ ও এর সহযোগী সংস্থা ভিলেজ এডুকেশন রিসোর্স সেন্টার (ভার্ক)- এর যৌথ উদোগে নিরাপদ ইমারত নির্মাণ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।১৬ জানুয়ারি সোমবার সকালে সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে ওই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সচিব মোঃ আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কে.এম রাহাতুল ইসলাম।উক্ত কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হাউজিং এন্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এইচবিআরআই)-এর পরিচালক মোহাম্মদ আবু সাদেক পিইঞ্জ নিরাপদ ইমারত নির্মাণ বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত উপস্থাপন করেন।অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ আকবর হোসেন, বিল্ডিং রেজিলিয়েন্স অব দ্য আরবান পুওর (বিআরইউপি) প্রকল্পের সিনিয়র টেকনিক্যাল ম্যানেজার বিশ্বজিৎ কুমার রায়, প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ কামরুল হাসান প্রমুখ।নিরাপদ ইমারত নির্মাণ নিশ্চিতকরণ বিষয়ক কর্মশালায় বক্তারা ভূমিকম্প ও দুর্যোগ সহনশীল নির্মাণ প্রযুক্তি, বিল্ডিং কোর্ড অণুসরণে সংশ্লিষ্টদের প্রতি পরামর্শ ও ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করেন।

অসহায় শীতার্তদের সাহায্যে সরকার ও বিত্তবানদের আরো বেশি এগিয়ে আসা উচিত

–মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান
দেশের সকল অসহায় শীতার্তদের সাহায্যে সরকার ও বিত্তবানদের আরো বেশি এগিয়ে আসা উচিত বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান।
তিনি বলেন, “মানুষ মানুষের জন্য-জীবন জীবনের জন্য” প্রবাদটি আজ শুধু মুখে আর খাতা কলমে সীমাবদ্ধ আছে। এই প্রবাদটি বাস্তবরূপে আনতে পারলে আমাদের সমাজ ও দেশ আরো অনেক এগিয়ে যেত। তাই দেশের উত্তরবঙ্গ সহ বিভিন্ন অঞ্চলের অসহায় শীতার্তদের সাহায্যে দল-মত,ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল নাগরিকদের বিশেষ করে সরকার, সমাজের বিত্তবানদের আরো বেশি এগিয়ে আসা উচিত।আজ দুপুরে ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন-Ideal Citizen Movement’ ও ‘বাংলাদেশ ন্যাশনাল স্টুডেন্ট অরগানাইজেশন’-এর যৌথ উদ্যোগে পঞ্চগড় জেলার ভাউলাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র-বিতরনের সময় তিনি এসব কথা বলেন।তিনি অত্র এলাকার শীতার্ত মানুষের কষ্ট নিজে অনুভব করে বলেন, এই উত্তরবঙ্গের মানুষ কতটা কষ্টে জীবন-যাপন করছে তা দূর থেকে অনুভব করা সম্ভব নয়। আমরা গত দুইদিনে এই অসহায় মানুষগুলির সাথে থেকে বুঝতে পেরেছি তারা কতটা কষ্টে জীবন-যাপন করছেন। তাই এই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের মানবিক ও নৈতিক দায়িত্ব।
১নং চিলাহাটি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার আনসারুল ইসলাম শিলুর সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন পঞ্চগড় জেলা পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য তানজিনা ইয়াসমিন মানিক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জাকির হোসেন, বিএনএসও’র উপদেষ্টা মাসুম বিল্লাহ, বিএনএসও’র সভাপতি মাসুদ রানা ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ ইয়াছির, আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আল-আমীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন মাহি, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আবু সাঈদ পাটোয়ারী, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মান্নান নাবিল, মো: মনির হুসাইন প্রমূখ।এদিকে ‘আদর্শ নাগরিক আন্দোলন-Ideal Citizen Movement’ ও ‘বাংলাদেশ ন্যাশনাল স্টুডেন্ট অরগানাইজেশন’-এর যৌথ উদ্যোগে পঞ্চগড় জেলার ভাউলাগঞ্জ, কালিগঞ্জ, দেবিগঞ্জ, কালিরহাট সহ বিভিন্ন এলাকার শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »