Category: শেষ পাতা

ড্যাফেডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এয়ার রোভার ইউনিটের স্কাউটদের ৬ষ্ঠ প্রশিক্ষণ ও দীক্ষা ক্যাম্প উদ্বোধন

ড্যাফেডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এয়ার রোভার ইউনিটের তিন দিনব্যাপী রোভার স্কাউটদের ৬ষ্ঠ প্রশিক্ষণ ও দীক্ষা ক্যাম্প ২৪ মে ২০১৭ আশুলিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসে শুরু হয়েছে।
ঢাকা জেলা রোভার স্কাউটের কমিশনার ও সরকারি তিতুমীর কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এনামুল হক খান প্রধান অতিথি হিসেবে এ প্রশিক্ষণ ও দীক্ষা ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন। ড্যাফেডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এয়ার রোভার ইউনিটের কোষাধ্যক্ষ ও বিশ^বিদ্যালয়ের ঊর্ধ্বতন সহকারি পরিচালক (জনসংযোগ) মোঃ আনোয়ার হাবিব কাজলের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন গার্লস ইন রোভার ইউনিট এর আর এস এল ফারহানা রহমান সেতু (পি আর এস), আর এস এল সাইফুল ইসলাম খান ও প্রোগ্রাম চীফ এস এম সালাউদ্দিন মোরসালিন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রোভার মেট নূসরাত জাহান। এবারের ক্যাম্পে বিশ^বিদ্যালয় ইউনিটের ২৪জন রোভার ও ৬ জন গার্লস ইন রোভার ও সারা দেশ থেকে ১০ জন স্বেচ্ছাসেবক রোভার অংশগ্রহণ করছে। আগামী ২৬ মে আনুষ্ঠানিক দীক্ষা প্রদানের মাধ্যমে এ ক্যাম্প শেষ হবে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর এনামুল হক খান বলেন, দীক্ষা প্রদান অনুষ্ঠান স্কাউটদের জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি অধ্যায় । এ ধরনের প্রশিক্ষণ তাদের আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে পরিশীলিত হয়ে মনে প্রানে স্কাউট আন্দোলনে উজ্জীবিত হতে সহায়তা করে। তিনি রোভারদের বিপি’র আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে সবার বাসযোগ্য একটি সুন্দর পৃথিবী গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান জানান। তিনি সাম্প্রতিক সময়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এয়ার রোভার ইউনিটের বিভিন্ন কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং আগামী দিনগুলিতে এর ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান। তিনি আরো বলেন, ড্যাফেডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি রোভার স্কাউট আন্দোলনে সম্পৃক্ত হয়ে এক অনন্য উদাহরন সৃষ্টি করেছে যা বাংলাদেশের অন্যান্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য অনুকরনীয় হবে।
সভাপতির বক্তব্যে মোঃ অনোয়ার হাবিব কাজল বলেন, এ ধরনের প্রশিক্ষণের অভিজ্ঞতা স্কাউটদের মধ্যে গভীর মিথস্ক্রিয়তা তৈরীর পাশাপাশি তাদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধি, উচুঁ নৈতিক মান ও উন্নত চরিত্র গঠনের মাধ্যমে দেশ ও জাতির বৃহত্তর কল্যণ সাধন করতে পারে। তিনি এ দীক্ষা ক্যাম্পে অর্জিত অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আরো বেশী সক্রিয়ভাবে স্কাউট আন্দোলনে সম্পৃক্ত হওয়ার পাশাপাশি উন্নত জীবন গড়ে তোলার পরামর্শ দেন।
ক্যাপশনঃ ড্যাফেডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এয়ার রোভার ইউনিটের তিন দিনব্যাপী রোভার স্কাউটদের ৬ষ্ঠ প্রশিক্ষণ ও দীক্ষা ক্যাম্প এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন ঢাকা জেলা রোভার স্কাউটের কমিশনার ও সরকারি তিতুমীর কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এনামুল হক খান

ঝিনাইদহে তীব্র তাপদাহে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :
জৈষ্ঠ্যের তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে ঝিনাইদহ বাসীর জনজীবন। সূর্যের প্রখর তাপে সাধারণ মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত গরমের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে লোডশেডিং। দিনে ৮ থেকে ৯ ঘন্টা পর্যন্ত থাকছে না বিদ্যুৎ। অসহ্য গরম আর বিদ্যুতের লুকোচুরিতে ক্লান্ত খেটে খাওয়া দিন মঞ্জুরীরা। প্রখর রোদ আর গমের অতিষ্ট হয়ে পড়েছে নানা শ্রেণী পেশার মানুষ। কয়েক দিন বৃষ্টি না হওয়া আর প্রচন্ড রোদে ঘর থেকে বের হতে পারছে না শ্রমিক, দিন মজুরসহ খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষগুলো। প্রচন্ড গরমের কারণে সাধারণ হতদরিদ্র মানুষরা জীবিকা নিরাহের জন্য রাস্তায় বের হতে পারছে না। গরম বাতাস শরীরে লাগছে আগুনের হাওয়ার মতো। স্বস্তি নেই ঘরে বা বাইরে। সামান্য স্বস্তির ও একটু শীতল পরিবেশের জন্য ছুটছে গাছের ছায়াতলে। এছাড়া গরমে একটু স্বস্তি পেতে জেলা শহরের বিভিন্ন স্থানের ডাব, জুস ও শরবতের দোকানে ভীড় জমাচ্ছে তৃষ্ণার্থরা।সাধারণ শ্রমিক আয়ুব হোসেন জানান, গরম ও তাপদহের কারণে শরীর একেবারে ক্লান্ত হয়ে পড়ছে যে কারণে লেবুর শরবত পান করে একটু স্বস্তি নিচ্ছি। শরবত বিক্রেতা বাবুল মিয়া জানান, প্রচন্ড তাপদহ ও গরমের কারণে লেবুর শরবতের চাহিদা বেড়েছে। আগে প্রতিদিন ৫শ গ্লাস শরবত বিক্রি হতো। এখন প্রচন্ড গরমের কারণে প্রতিদিন ১ হাজার গ্লাস শরবত বিক্রি হচ্ছে। অপর দিকে বিদ্যুতের ঘর ঘন লোডশেডিংয়ে জনজীবনে দূর্ভোগের নতুন মাত্রা সৃষ্টি হয়েছে। দিনে ও রাতে ৮ থেকে ৯ ঘন্টা বিদ্যু থাকছে না। অতিরিক্ত গরমে শিশু ও বয়োবৃদ্ধরা সর্দি-কাশি, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।এতে জেলা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা হাসপাতাল গুলোতে রোগির সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে মেডিকেল অফিসার ডাঃ রাশেদ আল মামুন জানান, তীব্র তাপদাহ আর লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে ঝিনাইদহ বাসীর জনজীবন, যে কারনে স্যালাইনের সাথে প্রচুর পরিমাণে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন খাবার পানি আর ঠান্ডা স্থানে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। গত কয়েকদিন ধরে ঝিনাইদহ জেলায় বৃষ্টিপাত না হওয়ায় তাপমাত্রা ৩৮ থেকে ৪০ সেলসিয়াসের মধ্যে ওঠা নামা করছে। আজ ঝিনাইদহের সর্ব্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রয়েছে।

অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সোনার গয়নাসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ডাকাতি


ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মধুহাটি ইউনিয়নের নবাই সন্ন্যাসীর মন্দিরে নামযজ্ঞ শুনে বাড়িতে ফিরার পথে বাজার গোপালপুর-আটলিয়া সড়কের বালুর মাঠে ছিনাতাইয়ের একদিন পরই ইউনিয়নের চান্দুয়ালি গ্রামের দুই কৃষকের বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হযেছে। ডাকাতদল সোনার গয়না ও নগদ অর্থসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ডাকাতি করে নিয়ে গেছে। গত রোববার রাত ৩টার দিকে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতির শিকার গৃহকর্তারা জানান, সংঘবদ্ধ ডাকাতদল বাড়িতে প্রবেশ করে নিজেদেরকে পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির লোক বলে পরিচয় দেয়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাড়ির সদস্যদের ধারালো আস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গয়না ও নগদ টাকা নিয়ে চলে যায়।গ্রামবাসী জানায়, ঝিনাইদহ জেলা সদর উপজেলার মধুহাটি ইউনিয়নের চান্দুযালি গ্রামের মাঠপাড়ায় রোববার মধ্যরাতে একদল সংঘবদ্ধ ডাকাতদল হানা দেয়। তারা প্রথমে হাকিম আলীর ছেলে সামসুল হকের বাড়িতে প্রবেশ করে ঘুম থেকে ডেকে তুলে এবং ঘরের ভেতর থেকে কে লাইট জ্বালিয়ে যা তাদের গায়ে লেগেছে লোকটাকে দেখতে চাই। এই অজুহাতে ঘরে প্রবেশ করে এবং কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ধারালো অস্ত্রে মুখে জিম্মি করে ঘরের খাটের ওপর বসিয়ে রাখে। তারা রুপার গয়নাও নগদ ২ হাজার টাকাসহ অর্ধ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। এরপর রাস্তার ওপারে আছমত আলীর ছেলে আলী আহম্মদের বাড়িতে প্রবেশ করে একইভাবে জিম্মি করে সোনার গয়না ও নগদ ৩০ হাজার টাকাসহ অর্ধ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে।ডাকাতির শিকার গৃহকর্তা আলী আহম্মদ জানান, রাতে আমি ঘরের বারান্দাই ঘুমিয়ে ছিলাম। রাত আনুমানিক ৩টা হবে। এমন সময় বাড়ির মধ্যে ১০-১২ জন লোক প্রবেশ করে। নিজেদের পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির লোকজন বলে পরিচয় দিয়ে আমাকে ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখি জিম্মি করে গয়নাও মহাজনদের নিকট থেকে সুদে নেয়া গরু কেনার জন্য ঘরে রাথা নগদ ৩০ হাজার টাকাসহ প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে গেছে। অপর গৃহকর্তা সামসুল হক জানান, ঘরের ভেতর থেকে কে লাইট জ্বালিয়ে যা তাদের গায়ে লেগেছে লোকটাকে দেখতে চাই। এই অজুহাতে ঘরে প্রবেশ করে এবং কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ধারালো অস্ত্রে মুখে জিম্মি করে ঘরের খাটের ওপর বসিয়ে রাখে। তারা রুপার গয়নাও নগদ ২ হাজার টাকাসহ অর্ধ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। দুই গৃহকর্তা আরো জানান, আমাদের বাড়িতে প্রতি বছরই প্রায় ২-৩ বার ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। তারা আরও জানান, প্রায় ৮ মাস আগে পাশের আজিবর রহমান ও আব্দুল আলিমের বাড়িতে ডাকাতি হয়। এর দীর্ঘদিন পর আবার আমাদের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতির ঘটনা খবর পেয়ে বেড়াশুলা গ্রামের মেম্বার রসুল এবং চান্দুয়ালি গ্রামের মেম্বার আলী হোসেন দুই গৃহকর্তার বাড়িতে যান এবং তাদের নিকট থেকে ডাকাতির বর্ণনা শুনেন। তবে ডাকাতির এই ঘটনা বাজার গোপালপুর পুলিশ ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ সঞ্জয় কুমার মণ্ডলের নিকট জানাতে চাইলে তিনি বলেন, ডাকাতির এই ঘটনায় গৃহকর্তা বা কেউ জানাননি বলে তিনি জানান।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।আজ বৃহস্পতিবার মির্জাপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে এ ফাইনাল খেলায় প্রচুর দর্শকের উপস্থিতি ছিল।বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুিজব গোল্ডকাপ প্রাথমকি বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে বহুরিয়া ইউনিয়নের সোহরাবনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়(১-০) গোলে আনাইতারা ইউনিয়নের আতিয়া মামুদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে উপজেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়।এই খেলায় বিজয়ী দলের লাবনী আক্তার ম্যান অবদা ম্যাচ হয়।বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে বহুরিয়া ইউনিয়নের বুদিরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়(২-১) গোলে আনাইতারা ইউনিয়নের সাফর্তা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে উপজেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়।এই খেলায় বিজয়ী দলের মো. আসিফ হোসেন ম্যান অবদা ম্যাচ হয়।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে মির্জাপুর বিশ্বাদ্যালয় কলেজ মাঠে খেলার উদ্ধোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন।বক্তব্য রাখেন, মির্জাপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. খলিলুর রহমান, সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. সালাউদ্দিন আহমেদ, লতিফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন, মহেড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়া, প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. সহিনুর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক মো. আল মামুন খান, ক্রীড়া সম্পাদক মো. সেলিম আল মামুন, শিক্ষক নেতা মো. ফরহাদ হোসেন প্রমুখ।খেলা শেষে বিজযীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

রাজধানীর বনানীতে রাজউকের অবৈধ স্থপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু

এস,এম মনির হোসেন জীবন : পরিকল্পিত আবাসিক এলাকায় বাণিজ্যিক কার্যক্রম বন্ধে ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আজ বুধবার রাজধানীর বনানী এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে রাজউক টাস্ক ফোর্সের মাধ্যমে বনানী এলাকায় অভিযান চালায়। উচেছদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার অলিউর রহমান।
রাজউকের এই উচেছদ অভিযানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেসমিন আক্তার, অথারাইজড অফিসার আদিলউজ্জামান ও ইমারত পরিদর্শক মো: সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। এছাড়া অভিযানে বিপুল সংখ্যক পুলিশ,রাজউকের অন্যান্য কর্মকর্তারা অভিযানে অংশ নেয়।
রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার অলিউর রহমান আজ জানান, আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর বনানী এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচেছদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৮ নম্বর সড়কের ১০০ নম্বর প্লটে অবস্থিত বহুতল আবাসিক ভবনে পরিচালিত ১১টি বাণিজ্যিক আগামী এক মাসের মধ্যে নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নেয়ার মুচলেকা নেয়া হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার অলিউর রহমান আরও জানান, এছাড়া উচেছদ চলাকালে ৩ ও ৫ নম্বর সড়কের কয়েকটি ভবনের কার পার্কিংয়ের অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেওয়া হয়। রাজউকের এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। এ ধরনের অভিযান পর্যায়ক্রমে অব্যাহত থাকবে।

গাইবান্ধায় জেএমবি সদস্য গ্রেপ্তার


আবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধায় বাদল হানজালা (৩২) নামে জামায়াতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)’র সক্রিয় সদস্যকে দীর্ঘ প্রায় ৯ বছর পর আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১৩ ক্যাম্পের সদস্যরা।বুধবার দুপুরে গাইবান্ধা বাস স্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব। তাকে ২০০৮ সাল থেকে খুজছিল আইনশৃংখলা বাহিনি খুঁজছিল। আটককৃত জেএমবি সদস্য বাদল হানজালা গাইবান্ধা সদরের রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।র‌্যাব গাইবান্ধা ক্যাম্পের স্কোয়াড কমা-র এএসপি হাবিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বাদল হানজালা জেএমবির একজন সক্রিয় সদস্য। সে ২০০৮ সালে গোবিন্দগঞ্জ থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে দায়েরকৃত একটি মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানাভুক্ত আসামী। এরপর থেকে বাদল হানজালা দাড়ি গোফ ফেলে দেশের বিভিন্ন স্থানে আতœগোপনে থাকে।নারায়নগঞ্জ থেকে গাইবান্ধা আসার সংবাদ পেয়ে বাসষ্টান্ড এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

উলিপুরে বুড়ি তিস্তা নদীর ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের বিক্ষোভ সমাবেশ


কুড়িগ্রামের উলিপুরে বুড়িতিস্তা নদীর ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা শহরে পঁচা ধান গাছ রাস্তায় ছিটিয়ে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছে। উলিপুর প্রেসক্লাব ও রেল, নৌ- যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটির উদ্যোগে গত রোববার সকাল ১১ টায় উলিপুর শহীদ মিনার চত্ত্বর থেকে পঁচা ধানগাছ হাতে নিয়ে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে বড় মসজিদ মোড়ে এসে অবস্থান নেয়। ঘন্টাব্যাপী অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক এমএ মতিন, বিশিষ্ট সমাজসেবী সাজাদুর রহমান তালুকদার সাজু, উলিপুর পেসক্লাবের সভাপতি আবু সাঈদ সরকার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরদার, সাংবাদিক পরিমল মজুমদার, সাংবাদিক তৈয়বুর রহমান, রেল,নৌ-যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটির উপজেলা সভাপতি আপন আলমগীর, ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল হুদা রুবেল, ছাত্রদল নেতা আবুল হাসনাত রাজীব, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, মোতলেবুর রহমান, নুর আমীন,মাসুম করিম প্রমূখ। উপজেলার পাতিলাপুর এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক নুরুজ্জামান সরকার, নারিকেলাবাড়ি চরপাড়ার জয়নাল আবেদিন ও আঃ লতিফ, পূর্ব ছড়ার পাড়ের আকবর আলীসহ প্রায় শতাধিক কৃষক তাদের পঁচা ধান রাস্তায় ছিটিয়ে প্রতিবাদ জানান। এসময় তারা কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, ক্ষমতাবানরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বুড়িতিস্তা নদী ভরাটসহ বাঁধ দেয়ায় পানি নিষ্কাষন না হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আমরা ধার-দেনা করে আবাদ করে আজ পথে বসেছি। সরকারের কাছে দাবি আমাদের পূর্ণবাসন করতে হবে। এসময় অন্যান্য বক্তারা বলেন, অবিলম্বে বুড়িতিস্তা নদী দখলমুক্ত করে পানির স্বাভাবিক গতিপ্রবাহ ফিরিয়ে আনতে হবে। উল্লেখ্য, সংগঠনদুটির নেতৃত্বে বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান দীর্ঘ ৩ মাস ধরে মানববন্ধন, বাই-সাইকেল র‌্যালী, প্রতীকী পানির ঢল কর্মসূচি পালনসহ শহরে অব্যাহত ভাবে বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ করে আসছে। এছাড়াও বুড়িতিস্তা নদী দলখমুক্ত করতে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করলেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় বুড়তিস্তা নদীর হাজার হাজার হেক্টর জমির বোরো ধান ক্ষেত তলিয়ে গিয়ে পঁচে যায়। ফলে শত শত কৃষক সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে নবাগত জেলা প্রশাসকের সঙ্গে সুধীজনের মতবিনিময় সভা


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের নবাগত জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন আজ মঙ্গলবার মির্জাপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এলাকার সুধীজনের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেছেন।জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, মাদক নির্মুলসহ এলাকার আইনশৃংখলার উন্নয়নে নবাগত জেলা প্রশাসক এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন জানিয়েছেন।
আজ মঙ্গলবার সকাল দশটায় নবাগত জেলা প্রশাসক উপজেলা পরিষদ চত্তরে এসে পৌছালে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) রুমানা ইয়াসমিন এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।এরপর তিনি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মতবিনিময় সভায় যোগদেন। নির্বাহী কর্মকর্তাইসরাত সাদমীনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় বক্তব্য রাখেন, ঈমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা ফরিদ হোসাইন,মির্জাপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, প্রেস ক্লাবের সভাপতি শামসুল ইসলাম শহিদ, মির্জাপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ মো. সালাউদ্দিন বাবর, বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম ফারুক, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দুর্লভ বিশ্বাষ, উপজেলা আওযামীলীগের সাংগঠনিতক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, ভাইস চেয়ারম্যান মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা, এ এস এম মোজাহিদুল ইসলাম মনির, মহেড়া ইউপি চেয়ার চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়া ও জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন প্রমুখ।মতবিনিময় সভায় সাংবাদিক, কাজী, ঈমাম, এনজিও প্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ, প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিগন উপস্থিত ছিলেন।

অপরিকল্পিত ভবন ও ভাস্কর্য নির্মাণ বন্ধের দাবিতে কুবিতে মানববন্ধন ২৪ ঘন্টা সময়সীমা বেঁধে দিয়ে উপাচার্যকে স্মারকলিপি

কুবি প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয়ে(কুবি) অপরিকল্পিত ভবন ও ভাস্কর্য নির্মাণ, ভূমি অধিগ্রহণসহ কয়েকটি দাবিতে মানববন্ধন ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেছেন শিক্ষার্থীরা। ‘উন্নয়নের নামে বস্তি বানানো চলবে না’, ‘অবিলম্বে ভূমি অধিগ্রহণ কর’, ‘অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধ করো’, ‘সতন্ত্র জায়গায় ভাস্কর্য চাই’, ‘দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা চাই’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত পোস্টার হাতে নিয়ে এ মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা। ভূমি অধিগ্রহণ ও সুদূর প্রসারি পরিকল্পনা মাফিক উন্নয়নের দাবিতে এ মানববন্ধনে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা যোগ দেন। মঙ্গলবার দুপুর ২টায় ক্যাম্পাসের কাঁঠালতলায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পরে ভবন নির্মানের জন্য আনা নির্মাণ সামগ্রি সরিয়ে নিতে ২৪ ঘন্টা সময়সীমা বেঁধে দিয়ে উপাচার্যকে এক স্মারকলিপি দেন শিক্ষার্থীরা।
মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিকল্পিত উন্নয়নের রুপরেখা থাকে। কিন্তু কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে এরূপ কোন পরিকল্পনা নেই। ছাত্র হলের মাত্র কয়েক হাত দূরেই ছাত্রী হল নির্মাণের কাজ চলছে। দুইটি ছাত্র হলের পাশে যে জায়গা আছে তা কোন ভবন নির্মাণের জন্যই উপযোগী নয়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সেখানে ছাত্রী হল নির্মাণের কাজ করছে। মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণের জন্য বিশাল পরিসরের জায়গা দরকার কিন্তু প্রশাসন মাত্র কয়েক হাতের মধ্যে ভবনের পাশে ভাস্কর্য নির্মাণ করছে। মানববন্ধনে ভূমি অধিগ্রহণ, অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধ, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব সংযোগ রাস্তা নির্মাণ, সতন্ত্র জায়গায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থপানসহ বেশ কয়েকটি দাবি জানান। মানববন্ধনে বিভিন্ন বিভাগের কয়েক শত শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন। শিক্ষকরাও একাত্মতা পোষণ করে মানববন্ধনে যোগ দেন।
মানববন্ধন শেষে উপাচার্যকে ভূমি অধিগ্রহণ, অপরিকল্পিত ভবন ও ভাস্কর্য নির্মাণ বন্ধ এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মাহাসড়কের সাথে সংযোগ সড়ক নির্মাণের তিন দফা দাবি সম্মিলিত স্মারকলিপি প্রদান করেন শিক্ষার্থীরা। অপরিকল্পিতভাবে ভবন নির্মাণের যে নির্মাণ সামগ্রি আনা হয়েছে তা ২৪ ঘন্টার মধ্যে সরিয়ে না নিলে কঠোর আন্দোলনের যাওয়ার কথাও বলা হয় স্মারকলিপিতে।
এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আলী আশরাফের সাথে কথা বলতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও ওপাশ থেকে কেউ ফোন তোলেননি।
উল্লেখ্য, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের মূল ফটক সংলগ্ন সড়কের উপর শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ও কাজী নজরুল ইসলাম হলের কয়েক হাত দূরেই ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ছাত্রীদের জন্য নির্মাণ করা হচ্ছে ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট নতুন একটি আবাসিক হল। প্রশাসনিক ভবনের নীচেই খুবই সংকুচিত জায়গায় জাতি পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণের কাজ চলছে। একাডেমিক ভবন (পশ্চিম) এর পাশেই নতুন একটি ভবন নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে তরফপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী আসনে পুনঃনির্বাচন আগামীকাল


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১২ নম্বর তরফপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী আসনের এক নম্বর ওয়ার্ডের পুনঃনির্বাচন আগামীকাল মঙ্গলবার।নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভাবে গ্রহনের লক্ষে উপজেলা প্রশাসন সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন বলে আজ সোমবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন জানিয়েছেন।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এ এম শামসুজ্জামান জানান, গত ১৬ মার্চ নির্বাচনে ১২ নম্বর তরফপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী আসন (১, ২ ৩ নং ওয়ার্ডে মিলে) ১ নম্বর ওয়ার্ডে রোকেয়া বেগম, শিমা আক্তার ও নিলুফা বেগম প্রতিদ্বন্ধিতা করেন।নির্বাচনে রোকেয়া বেগম ও শিমা আক্তার এক হাজার ৯৭৮ করে সমান ভোট পান।অপর প্রার্থী নিলুফা বেগম পান ৪২২ ভোট এবং বাতিল হয় ২৬৩ ভোট।এই নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার ঐ দুই নারী প্রার্থীর মধ্যে লটারির ব্যবস্থা করলে তা কেউ মেনে নিতে রাজি না হওয়ায় পুনঃনির্বচনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। এই ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ৬ হাজার ১৩৪ জন।
তরফপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আব্দুর রহমানের চালা, তরফপুর পুর্বপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও তরফপুর আশ্রয়ন প্রকল্প এই চারটি কেন্দ্রে আগামীকাল সোমবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ চলবে।নির্বাচনের জন্য যাবতীয় মালামাল ইতিমধ্যে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।উল্লেখ্য যে, গত ১৬ মার্চ মির্জাপুর উপজেলার তিন নম্বর ফতেপুর, এগার নম্বর আজগানা, বার নম্বর তরফপুর, নয় নম্বর বহুরিয়া, নবগঠিত লতিফপুর ও ভাড়া ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাইন উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রতিটি ভোট কেন্দ্র সুষ্ঠুভাবে গ্রহণের লক্ষে সংখ্যক পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার বাহিনী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।এ ছাড়া ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও স্টাইকিং ফোর্সও কাজ করবে।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »