Category: বিভাগীয় সংবাদ

গাজীপুরে জয়দেবপুর পিটিআই-এ বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন


মুহাম্মদ আতিকুর রহমান (আতিক), গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ
গাজীপুরে জয়দেবপুর প্রাইমারী টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই)-এ বৃক্ষরোপন কর্মসূচি-২০১৭ পালন করা হয়েছে।
২৩ জুলাই রবিবার দুপুর ১২টায় পিটিআই-এর সুপারিন্টেন্ডেন্ট (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোঃ হাসানারুল ফেরদৌস একটি নিম গাছের চারা রোপন করে আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।
পরে ওই প্রতিষ্ঠানের ইন্সট্রাক্টরদের মধ্যে আইরিন পারভীন, হাসিনা আফরিন, হোসনেয়ারা বেগম, হোসনে আরা বেগম, সুলতান উদ্দিন মোকামী, ফজলুল হক ভূঞা, নাজমুন নাহারসহ সকল ইন্সট্রাক্টর, কর্মচারী ও ডিপিএড-এর ২১৩জন শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা মাঠের বিভিন্ন স্থানে ২৫০টি ঔষধিগুন সম্পন্ন নিম গাছের চারা রোপন করেন।
বৃক্ষরোপন প্রসঙ্গে জয়দেবপুর পিটিআই-এর সুপারিন্টেনডেন্ট (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোঃ হাসানারুল ফেরদৌস বলেন, বৃক্ষ আমাদের পরম বন্ধু। বৃক্ষ শুধু প্রাকৃতিক শোভাই বর্ধন করে না, মাটির ক্ষয় রোধ করে, বন্যা প্রতিরোধ করে, ঝড়তুফানকে বাধা দিয়ে জীবন ও সম্পদ রক্ষা করে। আবহাওয়া নিয়ন্ত্রণেও বৃক্ষের ভূমিকা অপরিসীম।
তিনি বলেন, জয়দেবপুর পিটিআই-এ ইতিমধ্যে পরিবেশ বান্ধব ফলজ, বনজ, বিভিন্ন জাতের ফুল গাছ ও সৌন্দর্যবর্ধক গাছপালাসহ অন্যান্য বৃক্ষ রয়েছে। এ বছর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সম্মানিত সুযোগ্য মহাপরিচালক ডঃ আবু হেনা মোস্তফা কামাল মহোদয়ের উদ্যোগে সারা দেশে একযোগে ৪ লক্ষ গাছ লাগানোর কর্মসূচীর আলোকে জয়দেবপুর পিটিআই-এ ২৫০টি নিম গাছ লাগানোর প্রচেষ্টা গ্রহণ ও সম্পন্ন করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা জানি, নিম একটি ঔষধিগুন সম্পন্ন গাছ। এই গাছের পাতা, বাকল, ডালপালা মানুষের বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় প্রভূত ভূমিকা পালন করে থাকে। ঘরের পোকা মাকড় দমনসহ ফসলের পোকা দমনেও এ গাছের ব্যবহার রয়েছে। এইসব দিক বিবেচনায় এই বছর পিটিআই-এ নিম গাছ লাগানোর সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়। পিটিআই যেহেতু একটি শিক্ষা প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান সেহেতু শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের মধ্যে নিম গাছের ব্যবহার ও এর গুনাগুনের ধারণা হাতেকলমে শিক্ষা প্রদানসহ এই গাছ সমন্ধে ব্যাপক প্রচারণার কৌশল হিসেবে এই কর্মসূচি নেওয়া হয়।

রামুতে বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শনে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
কক্সবাজারের রামুতে ভূবন শান্তি একশ ফুট সিংহ শয্যা গৌতম বুদ্ধ মূর্তি ও বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক। তাঁর সঙ্গে ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন, এডিসি জেনারেল সাইফুল ইসলাম মজুমদারসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও পরিবার বর্গ।
তিনি বৃহস্পতিবার বিকেলে উত্তর মিঠাছড়ি বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রে এসে পৌঁছলে রামু উপজেলা চেয়ারম্যান রিযাজ উল আলম, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহজাহান আলি, উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি মোঃ নিকারুজ্জামান, জোয়ারিয়ানালা চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমদ প্রিন্স ও বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিপন বড়–য়া ফুল দিয়ে মন্ত্রীকে স্বাগত জানান। পরে প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক ভূবন শান্তি একশ ফুট সিংহ শয্যা গৌতম বুদ্ধ মূর্তি, বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রে প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক ভিক্ষু করুণাশ্রী থের’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন এবং বিহার ভবন ও বৌদ্ধ নিদর্শন গুলো ঘুরে দেখেন। শেষে মন্ত্রী সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্প্রীতি কামনা করে বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর করেন। এসময় অধ্যক্ষ করুনাশ্রী থের স্বপরিবারে বিহার পরিদর্শনে আসায় মন্ত্রী ও তাঁর পরিবারবর্গের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

নোয়াখালীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন

জুয়েল রানা লিটন, নোয়াখালী প্রতিনিধি
“মাছ চাষে গড়বো দেশ বদলে দেব বাংলাদেশ” এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে নোয়াখালীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে জেলা প্রসাশন ও মৎস্য অধিপ্তর ও নোয়াখালীর আয়োজনে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়। পরে বি আর ডিবি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার মোঃ ইলিয়াছ শরিফ, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, সোনাইমুড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক কামাল, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নোয়াখালী উপ-পরিচালক ড.আবুল হোসেন, মৎস্য খামারি মিয়া মোঃ শাহজাহান।
অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোতালেব হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন।

মধুখালীতে তিন দিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন

সাগর চক্রবর্ত্তী, ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি ১৯ জুলাই বুধবার : গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে “স্বাস্থ্য পুষ্টি অর্থ চাই দেশী ফলের গাছ লাগাই” প্রতিপাদ্য সামনে রেখে ১৯ থেকে ২১ জুলাই তিন দিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষ মেলা উপলক্ষে উপজেলা চত্বর থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুৎফুন নাহারের নেতৃত্বে র‌্যালী বের হয়। তিন দিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন করেন মধুখালী পৌর মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন।
র‌্যালী পরবর্তী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুৎফুন নাহারের সভাপািতত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি অফিসার খালেদা পারভীন, কামালদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাবিবুল বাসার, নওপাড়া চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান, বাগাট চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান খান, মৎস্য কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

ঝিনাইদহে বিজিবি উদ্ধার করা কোটি টাকার মাদক ধ্বংস


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:
ঝিনাইদহে বিভিন্ন সময় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) উদ্ধার করা প্রায় ১ কোটি টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝিনাইদহ-৫৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের হেড কোয়াটারে এসব মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়।বিজিবির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রিজিওনাল কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল কাজী তৌফিকুল ইসলাম জানান, ধ্বংস করা মাদকের মধ্যে রয়েছে- ৫ হাজার ৬০ বোতল ফেনসিডিল, ৪ হাজার ১৩৭ বোতল বিদেশি মদ ও ১৭ কেজি ৬শ’ গ্রাম গাঁজা। যার আনুমানিক মূল্য ১ কোটি টাকা।এসময় ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক জাকির হোসেনসহ বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঝিনাইদহে বিশেষ অভিযানে ২ জামায়াত কর্মীসহ ৫৪ জন গ্রেফতার

ঝিনাফইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ২ জামায়াত কর্মীসহ ৫৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত জেলার ৬ উপজেলা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, জেলা ব্যাপি সন্ত্রাস, নাশকতা বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে সদর থেকে ২৫ জন, হরিণাকুন্ডু থেকে ৫ জন, শৈলকুপা ৫ জন, কালিগঞ্জ থেকে ৬ জন, মহেশপুর থেকে ৭ জন, কোটচাঁদপুর থেকে ২ জামায়াত কর্মীসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে।

আত্রাইয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের আইসিটি সক্ষমতা বৃদ্ধি প্রশিক্ষণ


নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর আত্রাইয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের তিন ব্যাপি আইসিটি বিষয়ক সক্ষমতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার আত্রাই পাইলট বালিকা বিদ্যালয় আয়োজিত উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ও জাইকা’র সার্বিক সহযোগীতায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের আইসিটি বিষয়ক সক্ষমতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মোখলেছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে উদ্ধোধন ঘোষনা করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমান।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারি কমিশনার (ভ’মি) জয়া মারীয়া পেরেরা, প্রশিক্ষণ কোর্সের সমন্বয়ক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তারিকুল আলম, উপজেলা প্রকৌশলী মোববারক হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেখ একরামূল বারী রঞ্জু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত, ইউপি চেয়ারম্যান আফছার আলী, জাইকা’র প্রতিনিধি শোভন কুমার সররকার প্রমুখ। এসময় আত্রাই উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩১জন প্রতিষ্ঠান প্রধান প্রশিক্ষনে অংশগ্রহণ করে।

চিরিরবন্দরে সাতনালা গ্রামে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হচ্ছে ২৫০ ফুট বাঁশের সাঁকো

মাহাফুজুল ইসলাম আসাদ 

চিরিরবন্দর(দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার সাতনালা গ্রামের তারকশাহার হাট এলাকার ইছমতি নদীর উপরে স্থানীয় এলাকাবাসীর নিজ উদ্যোগে নির্মাণ করা হচ্ছে ২৫০ ফুট বাঁশের সাঁকো। ইউপি সদস্য মো: আইজার রহমানের তত্ত্বাবধানে তারকশাহার হাট এলাকায় ইছামতি নদীর উপরে নির্মিত হচ্ছে এ বাঁশের সাঁকো।
এপারে আলোকডিহি ওপারে সাতনালা। দুই ইউনিয়নের মাঝে ইছামতি নদী। দুই ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষের যোগাযোগে এ নদীই বাধা। এ বাধা দূর করতে গ্রামবাসী নিজেরাই টাকা তুলে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মাণ করছেন এ বাঁশের সাঁকো। এটি নির্মাণের ফলে দুই ইউনিয়নের প্রায় পাঁচ গ্রামের আনুমানিক ১০ হাজার লোক এই সাঁকোর উপর দিয়ে চলাচল করবেন। এদিকে এই বাঁশের সাঁকো নির্মাণ না হলে ওই পাচঁ গ্রামের মানুষকে প্রায় দুই কিলোমিটার পথ ঘুরে ঘাটেরপাড় কলেজমোড় সেতু দিয়ে চলাচল করতে হয়। অথচ এই দুই ইউনিয়নের সংযোগস্থল পাঁচ মিনিটের পথ বাশেঁর সাঁকো পার হলেই তারকশাহার হাটসহ আলোকডিহি ইউনিয়ন থেকে সাতনালা ইউনিয়ন পরিষদে সহজেই যাতায়াত করা যায়। সাতনালা ইউপি পরিষদ সূত্রে জানা যায়, এ সাঁকো দিয়ে এলাকার বেকিপুল বাজার,কিষ্টহরি বাজার,চাম্পাতলী বাজার,বিন্যাকুড়ির হাট,তারকশাহার হাট,মডেল স্কুল,ইছামতি ডিগ্রি কলেজ, ইছামতি ফাযিল মাদ্রাসা, রানীরবন্দর সুইয়ারী বাজারসহ পাঁচ গ্রামের প্রায় দুই হাজার পরিবারের লোকসংখ্যা আনুমানিক ১০ হাজার মানুষকে প্রতিদিন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংকে লেনদেন, বাজারঘাটসহ প্রতিটি কাজের জন্য তাঁদের চলাচলের সুবিধার্থে ইছামতি নদীর এ বাঁশের সাঁকো দিয়েই পার হতে হয়।
স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণকারী আইনউদ্দিন,হাবিবুর,জাহাঙ্গীর,নিমাই চন্দ্র জানান, নিজেদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ও আর্থিক সহযোগিতায় আমরা ২০ দিন ধরে প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষ মিলে বাঁশের সাঁকোটি নির্মাণ করতেছি। এর ফলে এলাকার মানুষের কিছুটা হলেও দুর্ভোগ লাঘব হবে।
ইউপি সদস্য মো: আইজার রহমান জানান, বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে যাওয়ার দ্রীর্ঘ ২০ বছর পরে জনদুর্ভোগ লাঘবে আবার স্থানীয়দের সহায়তা নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হচ্ছে। তবে নির্মানধীন বাঁশের সাঁকোর জন্য আর্থিক সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ মো: আহসানুল হক মুকুল।
সাতনালা ইউপি চেয়ারম্যান মো ফজলুর রহমান বলেন, জনগণের নিজেদের উদ্যোগেই এই সাঁকোটি নির্মিত হচ্ছে। ইউনিয়নের পক্ষ থেকে কোনো অর্থায়ন করা সম্ভব হয়নি। কেননা, এ খাতে কোনো বরাদ্দ নেই। তবে চেয়ারম্যান এলাকাবাসীকে স্বাগত জানিয়ে স্বেচ্ছাশ্রম এ কাজের প্রেরণা জুগিয়েছেন।

নবীগঞ্জে প্রাইমারী স্কুলে শিক্ষক না আসার কারণে ক্লাস চলছে কেরানিকে দিয়ে

ছনি চৌধুরী,হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥॥
হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার একটি প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষক থাকা সত্ত্বেও ক্লাস চলে ঐ স্কুলের দপ্তরীক কাজে নিয়োজিত কেরানি দ্বারা।এমন অবস্থায় বিদ্যালয়ের পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে । উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের সদরঘাট গ্রামের ভড়ারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের উপস্থিতি নেই বললেই চলে । শিক্ষকদের তালিকায় ৯জন থাকলেও প্রায় ৬ বছর যাবৎ এক জন আছেন ডেপুটেশনে বাকি ৪জন শিক্ষকের দ্বারা চলে এই বিদ্যালয় । কিন্তু প্রতিদিন ১জন বা ২জন শিক্ষকের উপস্থিতিতে চলে ছাত্র-ছাত্রীর লেখাপড়া । এই অবস্থায় ঐ-স্কুলে শিক্ষা ব্যবস্থা দিন দিন ব্যাহত হচ্ছে যার ফলে পড়ালেখার দিক থেকে পিছিয়ে পড়ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। ভড়ারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যায়ের সময়সূচী বোর্ডে শনিবার-বুধবার ৯.৩০ মিনিট থেকে ৪.১৫ মিনিট এবং বৃহস্পতিবার ৯.৩০ থেকে ২.৩০ মিনিট পর্যন্ত নিয়ম লিখা থাকলেও শিক্ষকরা স্কুলে আসেন ১১টার পর,এবং চলে যান ৩টা, সাড়ে ৩টার দিকে । গত ১৫জুলাই শনিবার অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমিরন কিশোর দাশ বদলি হয়ে যেতে না যেতেই সোমবার থেকে লেখাপড়ার কার্যক্রম ভেঙ্গে পড়ে। (১৭জুন) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ভড়ারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরীক কাজে নিয়াজিত রিপন মিয়া ছাড়া উপস্থিত নেই অত্র বিদ্যালয়ে কর্মরত কোনো শিক্ষক। অফিসকক্ষ বন্ধ, ছাত্র-ছাত্রীরা বাইরে স্বাধীন ভাবে ঘুরাঘুরি করছে । দপ্তরীক কাজে নিয়াজিত রিপন মিয়া’র সাথে কথা বলে জানা যায়,একজন শিক্ষিকা ১১টার দিকে এসেছিলেন আবার ১টার দিকে চলে গেছেন । অফিস বন্ধ কেন ? এমন প্রশ্নের জবাবে রিপন জানায়,অফিস বন্ধ করে আমি একেক ক্লাসের একেক রুমে গিয়ে ছাত্রদের কন্ট্রোল করি,তারপরও একা কিভাবে সামাল দেব সে আরো জানায় শিক্ষর্থীদের উপস্থিতি দিন দিন কমে যাচ্ছে । তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, শিক্ষকরা যেদিন স্কুলে আসেন সেইদিন অফিসে বসে মনের সুখে পান-সুপারি খেতে খেতে সময় পার করে দেন ক্লাসের বা ছাত্র-ছাত্রীর কোনো খোঁজ-খবর রাখেন না । এ ব্যাপারে স্থানীয়দেও সাথে আপালকালে জানা যায়,স্কুল ম্যানেজিং কমিটি শক্ত থাকলে এমন হতনা । বিগত দেড়-বছর ধরে ম্যানেজিং কমিটির পূর্বের কমিটির মেয়াদ উর্ত্তিণ হয়ে গেছে সময় মত ম্যানেজিং কমিটির পূর্ন-নির্বাচন হওয়ার বিধান থাকা সত্ত্বে ও তা হচ্ছেনা তাই বিদ্যালয়ের কার্যক্রম নিয়ে কারো ব্যাথা নেই । এব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাজিনা সরোয়ারের সাথে যোগাযো করা হলে তিনি জানান,এ বিষয়ে এখন আমি অবগত হয়েছি, অবশ্যই অল্প কিছুুদিনের ভিতরে ঐ বিদ্যালয় পরিদর্শনে আসবো এবং তিনি বিদ্যালয়ের কার্যকরী সকল সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ^াস প্রদান করেন ।

দুর্ভোগ শিকার আত্রাই আহসানগঞ্জ রেলওয়ে প্লাটফরমের যাত্রীরা

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে প্লাট ফরমে যাত্রীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। ট্রেনের অপেক্ষায় থাকা যাত্রীদের বসার জন্য পর্যাপ্ত পরিমান ব্যবস্থা না থাকায় দীর্ঘ সময় যাত্রীদের দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়। বিভিন্ন দোকানপাটে প্লাটফরম দখল হয়ে যাওয়ায় কোন দোকানের সামনে যাত্রীরা বসতে চাইলেই বেধে যায় বাকবিতন্ডা। ফলে চরম দুর্ভোগ ও দুর্দশার মধ্যদিয়ে যাত্রীরা এ প্লাটফরম থেকে ট্রেনে যাতায়াত করে থাকে।
জানা যায়, নওগাঁ জেলার মধ্যে সর্ববৃহৎ রেল স্টেশন আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন। এখানে ঢাকাগামী একটি, রাজশাহী- চিলাহাটির মধ্যে চলাচলকারী দুইটি ও খুলনা-সৈয়দপুরের মধ্যে চলাচলকারী একটি আন্ত:নগর ট্রেনসহ বেশ কয়েকটি ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে। এখান থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চরের বিভিন্ন জেলায় প্রতিদিন ট্রেন যোগে শত শত যাত্রী চলাচল করে থাকে। এসব যাত্রীদের কাছ থেকে প্রতি মাসে মোটা অংকের রেলের রাজস্ব আয় হয়। এ স্টেশনে রেলের রাজস্ব আয় বাড়লেও বাড়েনি যাত্রী সেবার মান। বরং নানাবিধ সমস্যার মধ্য দিয়েই চলাচল করতে হয় যাত্রীদের। প্লাটফরম জুড়ে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন দোকানপাট। এসব দোকানপাটের অধিকাংশই অবৈধ বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। আর অবৈধ দোকানীদের দাপটে নাজেহাল বৈধ ট্রেন যাত্রীরা। অভিযোগ রয়েছে কিছু অসাধু রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের যোগ সাজসেই তারা দাম্বিকতার সাথে প্লাটফরমের উপর ব্যবসা করে যাচ্ছেন।
জয়সাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মালেকা বানু বলেন, আত্রাই প্লাটফরম যেন দোকানীদের জন্য তৈরী। এখানে যাত্রীদের বসার তেমন কোন ব্যবস্থাই নেই। গত কয়েকদিন আগে আমি ট্রেনে ভ্রমনের জন্য প্লাটফরমে গিয়ে একটি দোকানের সামনে বসতে গেলে ওই দোকানী এক মহিলা চরম অসৌজন্য মূলক আচরন করেন। মধুগুড়নই গ্রামের গৃহবধূ আছুরা খাতুন বলেন, একই সময় ওই মহিলা আমাকে টুল থেকে উঠিয়ে দিতে টানা-হেচড়া শুরু করে দেন। মানসম্মানের ভয়ে আমরা সেখান থেকে অন্যত্র চলে যাই। এসব ব্যাপারে স্থানীয় রেলওয়ে স্টেশন মাস্টারকে অবহিত করেও কোন প্রতিকার হয়নি।
এ ব্যাপারে আত্রাই রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার ছাইফুল ইসলাম বলেন, মৌখিকভাবে আমি অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে ওই ব্যবসায়ী মহিলাকে শতর্ক করে দিয়েছি। অসাধু রেল কর্তৃপক্ষ নয় বরং স্থানীয় হওয়ার দাপটেই তারা প্লাটফরমের উপর ঢোক তুলে ব্যবসা করে যাচ্ছে। এর সাথে আমাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »