Category: প্রথম পাতা

বিশ্বে অনলাইনে শ্রমদাতা (আউটসোর্সিং) দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়

বিশ্বে অনলাইনে শ্রমদাতা (আউটসোর্সিং) দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয় বলে জানিয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা ও পাঠদান বিভাগ। বিশ্ববিদ্যালয়টির ‘অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইনস্টিটিউট (ওআইআই)’-এর একটি সমীক্ষা প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে। খবর বাসসের।
অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইনস্টিটিউটের সমীক্ষায় বলা হয়েছে, ভারত অন্যসব দেশের চেয়ে এগিয়ে প্রথমস্থান অধিকার করেছে। তৃতীয় হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অনলাইনে শ্রমদান বা অনলাইনে কাজের ক্ষেত্রে ভারত ২৪ শতাংশ অধিকার করেছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ১৬ শতাংশ ও যুক্তরাষ্ট্র ১২ শতাংশ অধিকার করেছে। শুধু যুক্তরাষ্ট্রই নয়, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জার্মানি, রাশিয়া, ইতালি ও স্পেন বাংলাদেশের পেছনে অবস্থান করছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, শীর্ষ পেশাদারিত্বের ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লিখন ও অনুবাদ গুরুত্ব পাচ্ছে। অন্যদিকে, ভারতীয় উপমহাদেশে সফটঅয়্যার উন্নয়ন ও প্রযুক্তি গুরুত্ব পাচ্ছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, অনলাইনে ফ্রিল্যান্স কাজের ক্রেতা-বিক্রেতাদের চারটি বৃহত্তম প্লাটফরম থেকে প্রাপ্ত তথ্য-উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে এই তথ্যচিত্র তৈরি করা হয়েছে।
‘অনলাইন লেবার ইনডেক্স ওয়ার্কার সাপ্লিমেন্ট’ চারটি অনলাইন লেবার প্লাটফরম তথা অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং বা অনলাইন আউটসোসিং প্লাটফরম থেকে সংগ্রহ করা হয়। এগুলো হচ্ছে ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু ও পিপলপারআওয়ার। শিক্ষক ও সিনিয়র গবেষক ভিলি লেহডনভিরটা লিখিত এই নিবন্ধটি ১ থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত অনলাইন লেবার ইনডেক্স টপ অকুপেশন- এর ভিত্তিতে প্রণয়ন করা হয়।
সফটঅয়্যার ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি ক্যাটাগরিতে ভারতীয় উপমহাদেশের কর্মীদের প্রাধান্য দেখা যায়, যা এই খাতের ৫৫ শতাংশ। প্রফেশনাল সার্ভিস ক্যাটাগরিতে যুক্তরাজ্যের কর্মীদের প্রাধান্য দেখা যায়, যা এই খাতের ২২ শতাংশ।  সার্বিক বিবেচনায় ‘অনলাইন লেবার’-এ ‘সফটঅয়্যার ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি, ক্রিয়েটিভ, মাল্টিমিডিয়া, ক্ল্যারিক্যাল, মাল্টিমিডিয়া ও ডাটা এন্ট্রি’-এর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানসহ বিপণন সহায়তায় বাংলাদেশ অন্যসব দেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে।
এ খাতটিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে প্রতিশ্রুতির কথা উল্লেখ করে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘বিশ্বমানের প্রশিক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে আমরা দক্ষ জনশক্তি তৈরি করছি। বাংলাদেশকে একটি আইসিটি ভিত্তিক রাষ্ট্রে রূপান্তরের মাধ্যমে আমরা একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হব।’

বিভিন্নস্থানে ৫৭ ধারায় যেসব মামলা হয়েছে তার কোনটিই সরকার করেনি———-তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেছেন, ‘এপর্যন্ত দেশের বিভিন্নস্থানে ৫৭ ধারায় যেসব মামলা হয়েছে তার কোনটিই সরকার করেনি। ব্যক্তি পর্যায়ে এই ধারার অপব্যবহার করে মামলা করা হচ্ছে। যেই এই ধারায় মামলা করুক, এতে সংবাদকর্মী সহ মুক্ত চিন্তার মানুষ হয়রানীর শিকার হচ্ছেন।’
তিনি বলেন, ‘তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দায়েরের সাথে সাথে গ্রেফতার করা হচ্ছে, যেখানে ওই মামলার আসামীর জামিনও হচ্ছে না। এই ধারার অপব্যবহারের ফলে মুক্ত ও স্বাধীন গণমাধ্যমে চাপ বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। একারণে তা বাতিলের দাবি উঠেছে।’
রবিবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ‘আইনমন্ত্রী ইতোমধ্যেই বলেছেন এই ধারা সংশোধন করা হচ্ছে’ উল্লেখ করে তথ্য উপদেষ্টা বলেন, ‘এর পরিবর্তে যে ধারাই আসুক, সেখানে যেন তার অপব্যবহারের সুযোগ না থাকে আমরা সেই দাবিও জানিয়েছি।’
একইসাথে তিনি আরও বলেন, ‘তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে অনলাইন, ফেসবুক বা অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যমে যেন অপপ্রচার বা বিভ্রান্তি ছড়িয়ে ত্রাস বা নাশকতা করা না যায় সেজন্য অবশ্যই আইন থাকতে হবে।’
বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিইউজে) আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন বিইউজে সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু। বিইউজে’র সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি দৈনিক প্রভাতের আলো পত্রিকার সম্পাদক আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন, বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি দৈনিক করতোয়া সম্পাদক মোজাম্মেল হক লালু,বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শংকর, যুগ্ম মহাসচিব জিএম সজল, বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমানসহ সাংবাদিক নেতাদের মধ্যে আব্দুল মোত্তালিব মানিক, আব্দুর রহিম বগরা, মিলন রহমান, মোহন আখন্দ, নাজমুল হুদা নাসিম, মাসুদুর রহমান রানা, এসএম কাওসার, এইচ আলিম প্রমুখ।

সিদ্দিকুরের চোখের আলো ফেরার সম্ভাবনা ক্ষীণ

শাহবাগে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় চোখে আঘাত পাওয়া সিদ্দিকুর রহমানের দৃষ্টিশক্তি ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা কম বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। গতকাল তার দুই চোখে অস্ত্রোপচার শেষে এ কথা জানান তারা। এ বিষয়ে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের গ্লুকোমা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. ইফতেখার মোহাম্মদ মুনির বলেন, আঘাতে সিদ্দিকুরের দুটি চোখ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। দৃষ্টিশক্তির সঙ্গে চোখের ভেতরে থাকা কর্ণিয়া, জেলসহ নানা বিষয় যুক্ত।  সিদ্দিকুরের ডান চোখ থেকে সেসব বের হয়ে এসেছে। আর বাম চোখের ভেতরে সব এলোমেলো হয়ে গেছে। আমরা ডান চোখ অপারেশন করেছি। বাম চোখ ওয়াশ করেছি। তিনি আরো বলেন, সিদ্দিকুর যে ধরনের আঘাত পেয়েছেন তাতে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। সম্ভব না বললেই চলে। সে কতটা দেখতে পারবে তা নিয়ে আমরা সন্দিহান। পরবর্তীতে তার আরো একাধিক অপারেশন দরকার হবে। সে এই মুহূর্তে কেবিনে আমাদের ফলোআপে রয়েছে। এদিকে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের অধ্যাপক শ্যামল কুমার সরকার বলেন, সিদ্দিকুরের ব্যাপারে এখনই আর কিছু বলা যাচ্ছে না। তার চোখের অবস্থা খুবই খারাপ। আজ (গতকাল) অস্ত্রোপচার হয়েছে।  আমরা আমাদের অবস্থান থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে  আরো বিস্তারিত আগামীকাল (আজ) সকাল ৯টায় জানানো হবে। বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাতটি কলেজের শিক্ষার্থীরা রুটিনসহ আরো ৭ দফা দাবিতে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করছিলেন। একপর্যায়ে শিক্ষার্থীদের সরে যেতে বলে পুলিশ। শিক্ষার্থীরা না সরলে তাদের খুব কাছ থেকে টিয়ারশেল ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় তারা। এসময় সিদ্দিকুর দুই চোখে মারাত্মকভাবে আঘাত পান।

বরগুনা উপজেলার ইউএনও গাজী তারেক সালমনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মানহানির মামলা প্রত্যাহার

বরগুনা উপজেলার ইউএনও গাজী তারেক সালমনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মানহানির মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। রোববার সকালে মামলার বাদি সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহর আবেদনের প্রেক্ষিতে বরিশালের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম অমিত কুমার দে মামলাটি খারিজ করে দেন। শুনানীতে মামলা প্রত্যাহারের কারণ জানতে চাইলে বাদী ওবায়েদুল্লাহ বলেন, শিশুর আঁকা বঙ্গবন্ধুর ‘বিকৃত’ ছবি ছাপানোর বিষয়টি নিয়ে একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে মূল ছবি দেখে ভুলের অবসান হয়েছে। এ কারণে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করা হয়েছে। গত ৭ই জুন বঙ্গবন্ধু মেখ মুজিবুর রহমানের বিকৃত ছবি ছাপানোর অভিযোগে বরিশাল মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে পাঁচ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন ওবায়েদুল্লাহ। গত বুধবার ওই মামলায় আদালতে হাজিরা দিয়ে জামিনের আবেদন করেন তারেক। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়। এ ঘটনায় জনপ্রশাসন কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। দুই ঘন্টা পর তারেক সালমনকে জামিন দেয়া হয়। আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়।

বেসরকারি শিক্ষকদের টাইমস্কেল প্রদান করা হোক

লেখক: মো. আব্দুল হক : বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের এক যুগান্তকারী শিক্ষানীতির আলোকে সরকারি ও বেসরকারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষকদের সমান সুযোগ সুবিধার কথা বলা হয়েছে। অতীব দুঃখের বিষয় শিক্ষক-কর্মচারীদের জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ এর পরবর্তী সময়ে সরকারি, বেসরকারি সকলের জন্য টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড, উচ্চতর স্কেল বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে। কিন্তু গত ০৭/০৭/২০১৭ইং তারিখে দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার তৃতীয় পৃষ্ঠায় দেখতে পেলাম সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২৬৩৯ জন শিক্ষককে টাইম স্কেল দেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এর মধ্যে ১ হাজার ৩ শত ১৩ জন চাকরীর ৮ বছর পূর্তিতে প্রথম টাইম স্কেল ও ১ হাজার ৩ শত ২৬ জন ১২ বছর পূর্তিতে দ্বিতীয় টাইম স্কেল পাচ্ছেন । আরো দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, বেসরকারী মাধ্যমিক শিক্ষকগনকে সারা জীবনে চাকরীর পূর্ণ মেয়াদ পর্যন্ত ৮ বছর পূর্তিতে মাত্র (১টি) একটি টাইম স্কেল দেওয়া হতো, তা ও আবার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এখন বেসরকারী শিক্ষকদের একমাত্র দাবী হচ্ছে সরকারী প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগণ বহু সুযোগ সুবিধার পর যদি টাইম স্কেল পেয়ে থাকে, তাহলে বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদেরকে কেন টাইম স্কেল দেওয়া হবে না। বেসরকারি শিক্ষকরা যাতে টাইমস্কেল বঞ্চিত না হন সে জন্য মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী মহোদয় ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রতি বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

ইসি কাউকে ক্ষমতায় বসাতে পারে না

নির্বাচন কমিশন (ইসি) কিংবা বিদেশিরা কাউকে ক্ষমতায় বসাতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।তিনি বলেছেন, ইসি যদি সংবিধানের বাইরে যায়, তার সমালোচনা করব। সে বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দেব। ক্ষমতায় বসাতে পারবে দেশের জনগণ। জনগণের ওপর আমাদের ভরসা আছে। আওয়ামী লীগ জনগণের সমর্থন নিয়ে আবার ক্ষমতায় যেতে চায়। কাজেই বিএনপি অর্বাচীনের মতো একের পর এক অভিযোগ আনছে। তার কোনো বাস্তব ভিত্তি নেই।বুধবার নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিররগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিদর্শনে এসে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপিকে নির্বাচন কমিশনের আশ্বাস দিতে হবে, তারা ক্ষমতায় যাবে, তা না হলে তারা এটা ওটা নানা অভিযোগ করবে। বিএনপি নানা ধরনের কথাবার্তা বলে নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে বিঘ্নিত ও ইসিকে বির্তকিত করছে।

দেশে যেসব যানবাহন চলাচল করে সেগুলোর ফিটনেস নেই উল্লেখ করে কাদের বলেন, গাড়ির বাইরের দৃশ্য বিদেশিদের কাছে আমাদের লজ্জা দেয়। বাংলাদেশের অর্জনের যে উচ্চতা, সেই জায়গায় এগুলো লজ্জা দেয়। আমরা বারবার পরিবহন মালিকদের কাছে অনুরোধ করেছি, আপনারা অন্তত গাড়িগুলোর চেহারা-সুরত ঠিক করে রাস্তায় নামান। মালিকরা দ্রুত সচেষ্ট না হলে এর বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ার করেন।
এ সময় বিআরটিএ চেয়ারম্যান মশিউর রহমান, সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসেরসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বান্ধবী অর্চনার সাথে ফোনে কথা বলা নিয়ে ফরহাদ মাজহার নিশ্চুপ

কবি ও প্রাবন্ধিক ফরহাদ মজহারকে ডেকে নিয়ে আবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) তদন্তসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। গতকাল মঙ্গলবার জিজ্ঞাসাবাদকালে ফরহাদ মজহারকে খুলনায় তাঁর ঘোরাঘুরির ভিডিও চিত্র দেখানো হয়েছে। ওই সময় তিনি বলেন, টেলিভিশনে তিনি এই ভিডিও চিত্র দেখেছেন। তবে ভিডিও চিত্রের লোকটি তিনি নন—এমন মন্তব্য তিনি করেননি। অর্চনা রানীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলার বিষয়ে জানতে চাইলে ফরহাদ মজহার চুপ থেকেছেন। বারবার তিনি বলেছেন, আদালতে তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন সেটাই তাঁর বক্তব্য। ডিবির তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।সূত্র মতে, জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ফরহাদ মজহার পুলিশকে দোষারোপ করে বলেন, পুলিশ তাঁর মানসম্মান শেষ করে দিয়েছে। এর জবাবে ডিবি কর্মকর্তারা বলেন, তাঁরা তদন্তের বিষয় গোপন রেখেছেন। পুলিশের পক্ষ থেকে কাউকে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।এদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ফরহাদ মজহার নিরুদ্দেশ হওয়ার ঘটনায় জবানবন্দিতে অপহরণের যে তথ্য দেওয়া হয়েছে তা মিথ্যা হয়ে থাকলে তাঁর বিরুদ্ধে কী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যায় তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ডিবির পক্ষ থেকে গত সোমবার ফরহাদ মজহারকে নোটিশ দিয়ে বলা হয়েছিল, মঙ্গলবার তাঁর সঙ্গে কথা বলতে চান তদন্তকারীরা। সে অনুযায়ী গতকাল সকাল ১১টায় ফরহাদ মজহার তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে যান। পরে আড়াই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে তাঁকে বিদায় দেওয়া হয়েছে।রাজধানীর শ্যামলীর রিং রোডের নিজ বাসা থেকে গত ৩ জুলাই ভোর ৫টা ৫ মিনিটে বেরিয়ে গিয়েছিলেন ফরহাদ মজহার। ওই দিন সকাল ১০টার দিকে তাঁর স্ত্রী ফরিদা আখতার আদাবর থানাকে জানান, ফরহাদ মজহারকে অপহরণ করা হয়েছে। পরে পুলিশ, র‌্যাবসহ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা মাঠে নামেন। প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাঁরা জানতে পারেন তিনি খুলনায় রয়েছেন। তাঁকে উদ্ধার করতে ওই দিন সন্ধ্যায় খুলনা শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হয়। অবশেষে রাত সাড়ে ১০টার দিকে যশোরের অভয়নগর এলাকায় হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে তাঁকে উদ্ধার করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পরদিন তাঁকে ঢাকায় এনে ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। ওই সময় তিনি দাবি করেছিলেন, তিন ব্যক্তি তাঁকে অপহরণ করে মাইক্রোবাসে তুলে চোখ বেঁধে নিয়ে গিয়েছিল। তাঁকে একটি বাসের টিকিট দিয়ে খুলনায় নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেদিন আদালতেও একই ধরনের বক্তব্য দেন ফরহাদ মজহার।

তবে পুলিশ তদন্তে নেমে তাঁর ওই বক্তব্যের সত্যতা পায়নি। বরং ফরহাদ মজহার নিজেই অপহরণ নাটক সাজান বলে মন্তব্য করেন পুলিশের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা। এ কারণে দ্বিতীয়বার তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চেষ্টা করা হচ্ছিল। কিন্তু ফরহাদ মজহার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব হয়নি। অবশেষে গত বুধবার তিনি বাসায় ফেরেন। এরপর পুলিশ গিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। ওই অবস্থায় গত সোমবার ফরহাদ মজহারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ দেওয়া হয়। সেই নোটিশ পেয়ে তিনি গতকাল তাঁর স্ত্রী এবং তাঁর অফিসের এক কর্মীকে নিয়ে ডিবি কার্যালয়ে যান। তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক মাহবুবুল হক তাঁকে কার্যালয়ের ভেতরে নিয়ে যান। তাঁর স্ত্রী ও অফিসের কর্মী বাইরে অবস্থান করেন।ডিবি সূত্রে জানা যায়, তদন্ত কর্মকর্তা ছাড়াও ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করেন ফরহাদ মজহারকে। সূত্র মতে, জিজ্ঞাসাবাদের বেশির ভাগ সময় চুপ থাকেন ফরহাদ মজহার। একপর্যায়ে তাঁকে খুলনা এলাকায় ঘোরাফেরা করার সময় ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় ধরা পড়া ভিডিও ফুটেজ দেখানো হয়। তিনি কিভাবে বাসা থেকে বেরিয়ে খুলনায় গেলেন সে বিষয়ে সঠিক তথ্য দিতে বলা হলে ফরহাদ মজহার জানান, তিনি আদালতে যে জবানবন্দি দিয়েছেন তাই তাঁর কথা। এর বাইরে কিছু থাকলে পুলিশ তদন্ত করে বের করতে পারে।

ফরহাদ মজহার চলে যাওয়ার পর ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘তিনি যদি সত্যিকার অর্থে অপহৃত হয়ে থাকেন, তাহলে একমাত্র সাক্ষী তিনি নিজেই এবং যারা অপহরণ করেছে তারা। এই পর্যন্ত তদন্তে আমাদের মনে হয়েছে, তিনি অপহৃত হননি। ’ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাতেন বলেন, ‘আমাদের হাতে যে তথ্য এসেছে, তাতে মনে হচ্ছে তিনি অপহৃত হননি। ১৬৪ ধারার জবানবন্দি এবং সেই সঙ্গে উনার কার্যকলাপ ও আমাদের কাছে থাকা তথ্যের মধ্যে কোনো মিল নাই। ’ সে ক্ষেত্রে পুলিশের পরবর্তী করণীয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কেউ মিথ্যা তথ্য দিলে, মিথ্যা অভিযোগে মামলা করলে পেনাল কোডের (দণ্ডবিধি) ২১১ ধারায় তার বিরুদ্ধে মামলা করার বিধান রয়েছে। সব প্রক্রিয়া যাচাই করে দেখে আইনগতভাবে কিভাবে ব্যবস্থা নেওয়া যায় তা দেখা হবে। ’ফরহাদ মজহার আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে বলেছিলেন, ভোরে তিনি চোখের ড্রপ কেনার জন্য বাসা থেকে বের হন। পরে তাঁকে রাস্তা থেকে তিন লোক জোর করে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এরপর তিনি তাদের হাত থেকে বাঁচার জন্য ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে রাজি হন এবং টাকা দেওয়ার জন্য তাঁর স্ত্রীকে ফোন করেন।

প্রকল্পের কাজে কোন অনিয়ম, দুর্নীতি ও অপচয় বরদাশত করা হবে না

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, প্রকল্পের কাজে কোন অনিয়ম, দুর্নীতি ও অপচয় বরদাশত করা হবে না।  এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রকল্পে কোন অনিয়ম-দুর্নীতি হলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।শিক্ষামন্ত্রী আজ ঢাকায় শিক্ষাভবনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)’র আওতাধীন ১৩টি প্রকল্প ও প্রোগ্রামের প্রকল্প কর্মকর্তাদের সাথে অধিদপ্তরের সভাকক্ষে এক দিক নির্দেশনামূলক সভায় একথা বলেন।  শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষা খাতে সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। আমাদের প্রকল্পগুলোর সাফল্যের উপরই নির্ভর করে দেশের উন্নতি। প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করতে হবে।মন্ত্রী বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য পুর্নাঙ্গ পরিকল্পনা বছরের শুরুতেই গ্রহণ করতে হবে। কি কি কাজ করা হবে, তার একটি পরিস্কার ধারণা প্রকল্প পরিচালকদের মাথায় থাকতে হবে।  তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার জন্য বর্তমান বাজেেেটর উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যথাসময়ে শেষ করতে তিনি গুরুত্ব আরোপ করেন।  তিনি আরো বলেন, কর্মকর্তাদের দক্ষতা আরো বাড়াতে হবে এবং এই দক্ষতা কাজে লাগাতে হবে। কাজে উদ্যোগী, সৃজনশীল হতে হবে। নতুন চিন্তা ও দৃষ্টিভঙ্গি কাজে লাগাতে হবে।  তবে কেউ ইচ্ছাকৃত ভুল করলে ছাড় পাবেন না বলে উল্লেখ করেন তিনি।  মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. এস এম ওয়াহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মহিউদ্দিন খান বক্তৃতা করেন।অধিদপ্তরের আওতায় পরিচালিত প্রকল্পসমূহের অর্জন, চ্যালেঞ্জ ও বাস্তবায়ন কৌশল বিষয়ে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করেন মাউশি’র পরিচালক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন।এর আগে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নতুন ২০ তলা ভবন নির্মানের লক্ষ্যে পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সাথে এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আর একবার নৌকাকে বিজয়ী করুন -পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মাহাফুজুল ইসলাম আসাদ,
চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
দেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আর একবার নৌকায় ভোট চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি। তিনি গতকাল ১৯ জুলাই বুধবার দুপুর ১২টায় দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর হর্তকিতলা হতে মহিষমারী যাওয়ার রাস্তায় ইছামতি নদীর উপর ত্রান মন্ত্রণালয়ের আওতায় নব-নির্মিত ব্রীজ উদ্বোধনী জনসভায় বক্তৃতাকালে এলাকাবাসীর কাছে এই আহবান জানান। মন্ত্রী বলেন, তার নির্বাচনী এলাকা দিনাজপুর-৪ চিরিরবন্দর ও খানসামা উপজেলায় রাস্তাঘাট ব্রীজ কালভার্ট বিদ্যুৎ স্কুল কলেজ নৃ-জনগোষ্ঠীকে সাবলম্বী করে তাদেরকে সমাজের সাথে সম্পৃক্ত করার উদ্যোগসহ যে উন্নয়নের জোয়ার শুরু হয়েছে তা আরো গতিশীল করতে সবাইকে এক হয়ে আবার আওয়ামীলীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনতে হবে। খালেদা জিয়ার সরকারের আমলের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, খালেদা জিয়া তিন বারের প্রধানমন্ত্রী দাবী করলেও দেশের উন্নয়নের পরিবর্তে বড় ছেলেকে খাম্বা চোর বানিয়েছেন। আগামী সংসদ নির্বাচনকে বানচাল করে আবার ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর মতো জ্বালাও পোড়াও করার পরিকল্পনা করতে মা ছেলে লন্ডনে বৈঠকে বসেছেন। তাই তিনি এলাকাবাসীকে সতর্ক থেকে তাদের বেড়াজালে পা না দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়ন ও খালেদা সরকারের উন্নয়নের তূলনা করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে আগামী সংসদ নির্বাচনে অংগ্রহনেরও আহবান জানান। আব্দুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামীগ সভাপতি আব্দুল আলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আইয়ুবুর রহমান শাহ, সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ আহসানুল হক মুকুল সাংগঠনিক সম্পাদক আজিম উদ্দীন সরকার গোলাপ প্রমুখ। এসময় উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তরুবালা রায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাশফাকুর রহমান (ভারপ্রাপ্ত), চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ হারেছুল ইসলাম ও উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীগন উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মন্ত্রী বিজট্টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে মোকসেদ মন্ডলের বাড়ী যাওয়ার রাস্তার উদ্বোধন, উপজেলা পরিষদ চত্বরে নারী ফোরাম ও ত্রান অধিদপ্তরের আওতায় হত দরিদ্রদের মাঝে ঢেউটিন, নলকুপ ও হুইল চেয়ার বিতরণ করেন ও জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে উপজেলা পরিষদ পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন।

চিকুন গুনিয়ায় আক্রন্তদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেবে সরকার

চিকুনগুনিয়া আক্রান্তদের বিনামূল্যে ওষুধসহ চিকিৎসা সেবা দেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)।ডিএসসিসি অঞ্চল-১ এর ৭টি ওয়ার্ডে একযোগে ফগিং কার্যক্রম ‘মিশন ধানমন্ডি’ উদ্বোধনকালে মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন আজ এ ঘোষণা দেন।তিনি বলেন, চিকুনগুনিয়া আক্রান্ত রোগীদের সিটি কর্পোরেশনের ৩টি হাসপাতালসহ ২৮টি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হবে। এসময় তিনি চিকুনগুনিয়া নিয়ে রাজনীতি না করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান।দ্রুততম সময়ের মধ্যে চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে আসবে উল্লেখ করে মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশন সর্বাত্মকভাবে চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে মাঠে নেমেছে। এটি নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত এ অভিযান চলবে।মেয়র জানান, নগরীর প্রতি ওয়ার্ডে ৪০জন করে মশক নিধন কর্মী অঞ্চল-১ এর অলি গলিসহ সমগ্র এলাকায় মশক নিধন কার্যক্রম চালাবে। আগামী ১৮ জুলাই প্রতিটি ওয়ার্ডে নাগরিকদের নিয়ে সচেতনতামূলক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।অনুষ্ঠানে ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাকির হোসেন স্বপন, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলালসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »