Category: ক্রাইম রিপোর্ট

ক্লিনিকে নবজাতকের মৃত্যু, ডাক্তার নার্স ছাড়াই চলছে রমরমা ব্যবসা


ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের মহেশপুরের খালিশপুর বাজারে আব্দুল আজিজ ক্লিনিকে নবজাতকের মৃত্যু, কোন ডাক্তার বা নার্স ছাড়াই চলছে ক্লিনিকের রমরমা ব্যবসা।প্রাপ্ত সূত্রে প্রকাশ, ২৪.৫.১৭ তাং বুধবার বিকালে জয়দিয়া গ্রামের আসাদুল ইসলামের প্রসূতি স্ত্রী খালিশপুর বাজারে আব্দুল আজিজ ক্লিনিকে ভর্তি হয়। ক্লিনিকে কোন ডাক্তার এবং ডিপ্লোমা নার্স না থাকায় মালিক আব্দুল হামিদ ও আয়া পারভীনা(কথিত ডিপ্লোমা নার্স) গর্ভবতী মাকে নরমালে ডেলিভারী করানোর জন্য জোর চেষ্টা করে। এতে গর্ভবতী মায়ের অবস্থার অবনতি হলে চুয়াডাঙ্গা থেকে ডাক্তার হাসানুজ্জামান নুপুরকে নিয়ে এসে রাত ১২টার দিকে অপারেশন করানো হয় এবং ১টি মৃত কন্যা নবজাতকের জন্ম হয়। মূলত ডাক্তারের ভুল অপারেশন ও ক্লিনিকের অব্যবস্থাপনায় নবজাতকের মৃত্যু হয়। নবজাতকের মৃত্যু হলে ঐ পরিবারের লোকজনের সাথে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের ব্যাপক গোলযোগ সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে গোপনে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পরিবারের সাথে সমঝোতা করে। উল্লেখ্য ক্লিনিকের মালিক আব্দুল হামিদ লালন শাহ ক্লিনিক নামে একটি অবৈধ ক্লিনিক পরিচালনা করতেন।২০১৫ সালের ৯ই সেপ্টেম্বর ভ্রাম্যমান আদালত ঐ ক্লিনিকের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় এবং অপ-চিকিৎসায় রোগী ও নবজাতক মারা যাওয়ার কারণে ক্লিনিকটি সীলগালা করে দেয়। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসকের কাছে ভবিষ্যতে আর ক্লিনিকের ব্যবসা করবো না এই মর্মে মুচলেকা দেয়। কিন্তু সেই প্রতারক আব্দুল হামিদ একই স্থানে আবারো আঃ আজিজ নামে একটি নতুন অবৈধ ক্লিনিক গড়ে তোলে। বর্তমানে ক্লিনিকের অপারেশন থিয়েটারে কোন হাইড্রোলিক টেবিল নেই, মেডিকেল ডাক্তার নেই, ডিপ্লোমা কোন নার্স নেই, ইমাজেন্সি লাইট নেই, অজ্ঞান করার জন্য কোন এ্যনেসথেশিয়া মেশিন নেই, রক্ত বন্ধ করার জন্য ডায়াথামি মেশিন নেই। ক্লিনিকের সাইন বোর্ডে এ্যাম্বুলেন্স এর কথা লেখা থাকলেও তার কোন অস্তিত্ব নেই।এ ব্যাপারে ক্লিনিকের মালিকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি ব্যস্থ আছি বলে মোবাইল রেখে দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশাফুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন জেলা সিভিল সার্জন ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতার তদরকির অবহলার কারনে এই সব ভুইফোঁড় ক্লিনিকগুলো গড়ে উঠেছে। খুব শিঘ্রই মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।উল্লেখ্য গত বছর অপ-চিকিৎসার কারণে উপজেলার ভৈরবা জননী ক্লিনিকে ১০ জন অপারেশন রোগী মারা যায়। সে সময় ঝিনাইদহ সিভিল সার্জনের পক্ষ থেকে অবৈধভাবে গড়ে উঠা ক্লিনিকগুলো বন্ধ করে দেয়। বর্তমানে সেগুলো আবার নামে-বেনামে চালু করা হয়েছে।এ বিষয়ে উপজেলা ইউ.এইচ.এন্ড এফপিও ডাক্তার নাসির উদ্দিন জানান তিনি বর্তমানে ট্রেনিং –এ আছেন। এ বিষয়টি তার নলেজে নেই।

টঙ্গীতে সন্ত্রাসী,মাদক ব্যবসা ও পূর্বশত্র“তার জের টঙ্গীতে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে যুবককে হত্যা ॥ আটক-১

এস,এম মনির হোসেন জীবন : গাজীপুর মহানগরী শিল্পনগরী টঙ্গীর মাছিমপুর মধুমিতা (গাজী বাড়ি) এলাকায় প্রতিপক্ষ গ্র“পের সন্ত্রাসীররা চাপাতি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে কোপে এক যুবককে হত্যা করেছে। খবর পেয়ে টঙ্গী মডেল থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্বার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। হত্যাকান্ডের পর পুলিশ রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে শাহীন (২৫) নামে সালাউদ্দিনের এক বন্ধুকে আটক করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচেছ। নিহতের নাম মো: সালাউদ্দিন (২৫)। নিহতের পিতার নাম মো: হারুন অর রশিদ। মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানার চানপট্রি এলাকায় তার বাড়ি। তিনি বর্তমানে টঙ্গীর আরিচপুরের গাজীবাড়ি এলাকার আব্দুল লতিফ হুজুরের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে টঙ্গীর মধুমিতা রেনেসা স্কুলের সামনে এহত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। টঙ্গী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ফিরোজ তালুকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
টঙ্গী থানার এসআই নিতাই চন্দ্র দাস জানান, বুধবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে টঙ্গীর মাছিমপুর মধুমিতা এলাকার রেঁনেসা কিন্ডার গার্ডেন মাঠে বসে জয়,রণিও সাব্বির সহ ৫ থেকে ৬জন বন্ধু মিলে আড্ডা দিচ্ছিল। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই মাঠের সামনে দিয়ে যাচিছল ওয়ার্কশপ শ্রমিক সালাউদ্দিন (২৫)। এসময় জয়,রণিও সাব্বির তাকে একা পেয়ে তার পথরোধ করে দাঁড়ায়। এক পর্যায়ে জয় গ্র“পের সন্ত্রাসীরা সালাউদ্দিনকে টেনে হিঁচড়ে টঙ্গীর মধুমিতা রেঁনেসা কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের ভেতরে নিয়ে যায়। তখন সালাউদ্দিনের সাথে জয়,রণি ও সাব্বিরের মধ্যে কথাকাটাকাটি ও বাকবিতন্ড হয়। এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে প্রতিপক্ষ গ্র“পের সন্ত্রাসীরা চাপাতি ও ধারালো অন্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে সালাউদ্দিনকে কুপিয়ে মারাতœক আহত করে কৌশলে পালিয়ে যায়। ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন মুমুর্ষ অবস্থায় সালাউদ্দিনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্বার করে ওই রাত ৯টার ৫০ মিনিটে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। নিহত সালাউদ্দিনের শরীরে ঘাঁড়ে,গলায় ও বুক সহ বিভিন্ন স্থানে আঘাতের দাগ রয়েছে। নিহত সালাউদ্দিন স্থানীয় একটি ওয়ার্কশপের শ্রমিক ছিলেন। নিহতের পরনে ছিল জিন্স প্যান্ট ও গেঞ্জি। ২ বছর বয়সের এক পুত্র সন্তানের জনক সালাউদ্দিন। ২ ভাই ৩ বোনের মধ্যে সে ছিল সবার বড়। সালাউদ্দিনের পিতা হারুণ অর রশীদ পেশায় একজন ঝাঁলমুড়ি বিক্রিতা।
নিহত সালাউদ্দিনের বোন ঝুমুর ও মৌসুমি জানান,হত্যার আগে সালাউদ্দিনকে তার বাড়ি থেকেই ডেকে নেয়া হয়েছিল। তবে কে বা কারা ডেকে নিয়েছিল তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ ঘটনার পর টঙ্গী মধুমিতা,গাজীবাড়ি এলাকায় রাতে অভিযান চালিয়ে শাহীন (২৫) নামে সালাউদ্দিনের এক বন্ধুকে আটক করেছে। তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচেছ। জিজ্ঞাসাবাদের পর হত্যার প্রকৃত ঘটনা জানা যেতে পারে।
টঙ্গী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ফিরোজ তালুকদার জানান, হত্যাকান্ডের ঘটনায় শাহীন নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। মামলার বাকী আসামীদেরকে ধরার জন্য পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।
স্থানীয় মাদক ব্যবসা,সন্ত্রাসী কর্মকান্ড,চাঁদাবাজী ও পূর্বশত্র“তার জের হিসেবে এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে বলে পুলিশ ও এলাকাবাসিরা ধারনা করছে। এঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে টঙ্গী মডেল থানায় এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার সকালে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও মাদক নির্মুলে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে জামুর্কি ইউনিয়নের সাটিয়াচড়া আদর্শ গ্রামে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও মাদক নির্মুলের জন্য এলাকার মাদক নির্মুল কমিটি প্রতিবাদ সভা করেছে।ভিন্নধর্মী এই অনুষ্ঠানে সাটিয়াচড়া মাদক নির্মুল কমিটির সদস্যদের পরিচিতি ও মতবিনিময় সভাও অনুষ্ঠিত হয়।গতকাল বুধবার সাটিয়াচড়া আদর্শ কিন্ডার গার্টেন প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে এ প্রতিবাদ সভা।সম্পুর্ন ভিন্নধর্মী এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মির্জাপুর, নাগরপুর ও বাসাইল সার্কেল) মোহাম্মদ সাহাদৎ হোসেন।অনুষ্ঠানের উদ্ধোধক ছিলেন মির্জাপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাক এবং মোহনা টেলিভিশনের সাংবাদিক মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল।জামুর্কি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী এজাজ খান চৌধুরী রুবেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জামুর্কি ইউনিয়নের ৪ নং ইউপি সদস্য মো. সেলিম আহমেদ, মাদক নির্মুল সংগঠনের সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ রাজবংশী, জামুর্কি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহবায়ক এ্যাডভোকেট ইলিয়াজ আহমেদ, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী যুবলীগ নেতা মো.আব্দুর রউফ,মির্জাপুর উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ডি এ তায়েব, সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ডি এ নাছির,সাবেক সেনা কর্মকর্তা দেব্রত রাজবংশী দিপক, প্রধান অতিথি মোহাম্মদ সাহাদৎ হোসেন ও অনুষ্ঠানের উদ্ধোধক মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল প্রমুখ।আলোচনা সভার পুর্বে মাদক নির্মুল কমিটির সকল সদস্যদের শপথ গ্রহণ ও পরিচিতি অনুষ্ঠান হয়।মাদক নির্মুল কমিটির সদস্যরা শপথ নিয়েছেন, এলাকাকে সম্পুর্ন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, বাল্যবিবাহ মুক্ত ও মাদক নির্মুল করা হবে।

মির্জাপুরে ছয় মিষ্টির দোকানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ওজনে কারচুপি ও নোংরা পরিবেশ থাকায় জরিমানা আদায়


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
ক্রেতাদের সঙ্গে প্রতারনা করে ওজনে কারচুপি এবং দোকানে নোংরা পরিবেশে মিষ্টি তৈরীর অভিযোগে ছয় মিষ্টির দোকানে অভিযান চালিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জরিমানা আদায় করেছেন।আজ বুধবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার পাকুল্যা বাস স্ট্রান্ড এলাকায় মিষ্টির দোকানে এ জরিমানা আদায় করা হয় বলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ইসরাত সাদমীন জানিয়েছেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ইসরাত সাদমীন জানান, পাকুল্যা বাজারের অধিকাংশ মিষ্টির দোকানে দীর্ঘ দিন ধরে ব্যবসায়ীরা গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারনার মাধ্যমে ওজনে কারচুপি করে আসছে।আজ বুধবার মির্জাপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ভ্রাম্যমান আদালত পাকুল্যা বাজারের বিভিন্ন মিষ্ট্রির দোকানে অভিযান চালায়।অভিযানের সময় নোংরা পরিবেশে মিষ্ট্রি তৈরী এবং ওজনে কারচুপির ঘটনার সত্যতা পেয়ে টাঙ্গাইল মিষ্ট্রির সমাহার, টাঙ্গাইল মিষ্ট্রি মুখ,শ্রী শ্রী লক্ষ্যি নারায়ন মিষ্ট্রি ভান্ডার, টাঙ্গাইল জয়দুর্গা মিষ্ট্রান্ন ভান্ডারসহ ছয় দোকানদারকে ভোক্তা অধিকার আইনে তিন হাজার টাকা করে মোট আঠারো হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন।
এদিকে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, মির্জাপুর উপজেলা সদরের হাসপাতাল রোড, বংশাই রোড, জামুর্কি, দেওহাটা, মহেড়া, ফতেপুর, বানাইল, ওয়ার্মি, আনাইতারা, ভাদগ্রাম, ভাওড়া, বহুরিয়া, গোড়াই, লতিফপুর, তরফপুর, আজগানা ও বাঁশতৈল ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট-বাজারে এই কায়দায় প্রতারক চক্রের সদস্যরা মিষ্ট্রির দোকান সহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে নোংরা পরিবেশে খাবার তৈরী ও ক্রেতাদের সঙ্গে প্রতারনা করে ওজনে কারচুপি করে দেদারসে ব্যবসা চালিয়ে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে।
এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচার ইসরাত সাদমীন জানিয়েছেন, অভিযান শুরু হয়েছে।পর্যায়ক্রমে প্রতিটি হাচ-বাজারে অভিযান চালানো হবে।প্রতারনার সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ভালুকায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ আহত ১০


ইতি শিকদার, ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক ব্যবসায়ীসহ দুইজন নিহত ও কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদেরকে ভালুকা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। (২৪মে) বুধবার সকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে উপজেলার কাঁঠালী ও জামিরদিয়া স্কয়ার মাস্টারবাড়ি এলাকায় ওই দু’টি দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘটনার সময় ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে একটি পিকআপ (ঢাকা মেট্রো-ন-১৭-১৭১৬) ক্রিকেট ব্যাট বোঝাই করে ত্রিশালের নজরুল জয়ন্তী মেলায় যাওয়ার পথে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফোরলেন সড়কের উপর উল্টে যায়। এ সময় ক্রিকেট ব্যাট ব্যাবসায়ী ঢাকা যাত্রাবাড়ী কুতুবখালী এলাকার আব্দুল মতিনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৬০) ঘটনাস্থলেই মারা যান। দুর্ঘটনায় স্বপন (৪০), আনোয়ার (৩০) ও সিরাজুল ইসলামসহ (৫৫) অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদিকে একই সড়কে উপজেলার জামিরদিয়া স্কয়ার মাস্টারবাড়ি এলাকায় ঢাকাগামী ইসলাম পরিবহনের একটি যাত্রীবাহি বাস মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে উপজেলার মল্লিকবাড়ি ইউনিয়নের নয়নপুর গ্রামের সাদিকুল ইসলাম (৩০) ও সালমান নামে ৬ বছরের এক শিশু গুরুতর আহত হয়। পরে আশংকাজনক অবস্থায় তাদেরকে প্রথমে ভালুকা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে শিশু সালমান মারা যায়। ভরাডোরা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) জহিরুল ইসলাম জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিহত ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের ভালুকা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অপর দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী শিশুটি ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে।

পীরগঞ্জে দু’শিশু ধর্ষনের শিকার ১ ধর্ষক গ্রেফতার!


পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ
পীরগঞ্জে দু’শিশুকে ধর্ষনের ঘটনায় পুলিশ ধর্ষক মামুন মিয়া (১৭) কে গ্রেফতার করেছে। উপজেলার খেদমতপুর গ্রামে ওই ধর্ষনের ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে মামলা হয়েছে। বর্তমানে ধর্ষিতা শিশুরা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।
মামলা, প্রত্যক্ষদর্শী ও পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের খেদমতপুরের চান মিয়ার কন্যা চাম্পা খাতুন (১০) ও শরিফুল ইসলামের কন্যা নিসা খাতুন (৭) দু’জনই খেলার সাথী। গত ১৯ মে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ওই শিশুদের ফুসলিয়ে খেদমতপুরের আলিম উদ্দিনের ছেলে মামুন মিয়া (১৭) ও বড়মহজিদপুরের শাহজাহান মিয়ার ছেলে জামরুল মিয়া (২৭) পার্শ্ববর্তী আখিরা নদীর পাড়ে একটি ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে। ঘটনাটি ফাঁস হলে দু’জনকেই মেরে ফেলার হুমকি দিলে ধর্ষনের শিকার শিশুরা কাউকেই বলেনি। একপর্যায়ে ধর্ষনের শিকার দু’শিশু অসুস্থ হলে তাদেরকে ২৩ মে দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এরপর তাদেও অবস্থার অবনতি ঘটলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে নিসা খাতুনের মা আফরুজা বেগম বাদী হয়ে দু’জনকে আসামী করে পীরগঞ্জ থানায় মামলা করলে নিসাকে ধষর্নের অভিযোগে মামুনকে পুলিশ রাতেই গ্রেফতার করে। থানার ওসি রেজাউল করিম বলেন, দু’শিশু ধর্ষনকারীর একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামী জামরুলকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

নওগাঁয় খড়ের কারণে সড়ক ঝুকিপূর্ণ


নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার কাঁচা ও পাকা সড়কগুলোতে খড় শুকানোর ফলে জনসাধারনের চলাচল চরম ঝুকিপুর্ণ হয়ে উঠেছে। এসব সড়কে দুর্ঘটনা ঘটছে বেশি। সড়কে সড়কে ধান মাড়াই ও শুকানোর কারনে চলাচল কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোন কোন সড়কের উপর গাঁদা গাঁদা পালা করে খড় শুকানো হচ্ছে।
আবার কোথাও সড়কের উপর ধান মাড়ায় মেশিন রেখে ধান মাড়ায় করছে। ফলে সড়ক সরু হয়ে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে দিন দিন দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ছে। পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম বলেন, গত কয়েক দিন আগে সড়কের উপর খড় থাকায় মটরসাইকেলের গতিরোধ করতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হতে হয় আমাকে। সাতানা গ্রামের রহিম উদ্দিনকে সড়কের উপর খড় শুকাতে নিষেধ করলে তিনি বলেন, সরকারি রাস্তা খড় শুকাতে আপত্তি কেন। এ সব কাজের জন্য সড়ক দুর্ঘটনা বাড়ছে সে কথা তাকে বুঝাতে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হন। উপজেলার প্রায় সব সড়ক দখল করে এখন খড় শুকানোর জন্য সবাই ব্যস্ত। ১নং ধামইরহাট ইউনিয়নের উত্তর চকরহমত সাতানা গ্রামের শিক্ষক আবু হানিফ বলেন, খড়ের কারণে রাস্তার দুপাশে পিচ্ছিল হওয়ার ফলে যানবাহন বেশি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। পারিবারিক কাজে অনেকেই রাস্তা ব্যবহার করছে। কিন্তু তাদের ভাবা উচিৎ রাস্তার উপর খড় ফেললে খাল-খন্দ দেখা যায় না যার ফলে সাইকেল, মটরসাইকেল বা অন্যান্য যানবাহন গর্তে পড়লে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যায়। এছাড়া সাইকেল ভ্যান রিক্সার শ্রমিকদের দ্বিগুন শক্তি প্রয়োগ করতে হয়। কোন কোন ভ্যান ঐ সব রাস্তায় যেতে চায়না ফলে ভোগান্তির শিকার হয় যাত্রীসাধারণকে।

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর আজীবন বহিস্কার


ভালুকা প্রতিনিধি: ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ কর্তৃক ভালুকা উপজেলার ১০নং হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা ও অত্র ইউনিয়ন সভাপতি আলমগীর কবিরকে জেলা ছাত্রলীগ হইতে আজীবন বহিস্কার সিদ্ধান্ত নেয় জেলা ছাত্রলীগ।
জানা যায় গত ১১ জানুয়ারি ময়মনসিংহের মুসলিম গালস স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রথমে অপহরণ পরে ধর্ষণের অভিযোগে গত ১৫ মে ময়মনসিংহ কোতোয়ালী থানায় অপহরণ ও নারী নির্য়াতন আইনে মামলা হয়।
মঙ্গলবার ২৩ মে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্যলীগের জরুরী এক মিটিংএ ভালুকা উপজেলার ১০নং হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা ও অত্র ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর কবিরকে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ থেকে আজীবন বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ঘর বাধাঁর স্বপ্নে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে গেল প্রেমিকা

ছনি চৌধুরী,হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥॥
নবীগঞ্জ উপজেলায় সুখ,শান্তির নীর খুজে পাওয়া এবং ঘর বাধাঁর স্বপ্ন নিয়ে প্রেমিকের হাত ধরে পালায়ে গেল প্রেমিকা । উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের তথ্য কেন্দ্রে একই সঙ্গে কাজ করত এই হবু দম্পতি । এরই কারণে প্রেমের সম্পর্কের দীর্ঘদিন পর প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে গেল প্রেমিকা । কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নে কম্পিউটার অপারেটরের কাজ করতেন অত্র ইউনিয়নে চরগাও গ্রামের লিটন মিয়া (২৫) ইউনিয়ন অফিসের তথ্য কেন্দ্রে চাকরীর সুবাধে একই ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের সামছুল হক এর কলেজে পড়ুয়া মেয়ে আছিয়া বেগম কম্পিউটার শিক্ষানবিশ হিসেবে ইউনিয়ন অফিসের লিটনকে সহযোগীতা করতো এবং কম্পিউটার চালানো শিখতো । সেই সুবাধে দুই জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে । গত রবিবার ইউনিয়ন অফিসের কাজ শেষে প্রেমিক জুটি পালিয়ে যায়।, এ নিয়ে ইউনিয়ন জুড়ে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে । ঘর বাধাঁর উদ্দেশ্যেই প্রেমিকের হাত ধরে পালিছে প্রেমিকা এমটাই মনে করছে সবাই । এদিকে উভয় পরিবারের লোকজনকে অজানা কষ্টে দিন কাটাতে হচ্ছে ।

২ ছাত্রের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হরিপুরে ২ গ্রামেবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ আহত ৫০,


শোয়েব উদ্দিন, জৈন্তাপুর প্রতিনিধি-
সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুওে বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২ ছাত্রের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শালিস বৈঠকে ২ গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্র ও ইউপি সদস্য সহ আহত ৫০। সমঝোতার চেষ্টা অব্যহৃত, শান্তি বজায় রাখতে পুলিশ মোতায়ন। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
আজ ২৩ মে মঙ্গলবার দুপুর ২টায় হরিপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে গত ২১ মে রবিবার বিদ্যালয়ে ক্লাসে ১০ম শ্রেনীর ২ছাত্র কমর উদ্দিন ও আবু বক্কর সিদ্দেক এর মধ্যে তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা আপোষ নিষ্পত্তির লক্ষে গতকাল বিদ্যলয়ের হল রুমে ছাত্র শিক্ষক অভিভাবক এবং বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে এলাকার জন প্রতিনিধি ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে বৈঠক অনুষ্টিত হয়। বৈঠক শেষে ফেরার পথে স্কুল গেইটে ২ গ্রামের লোকদের মধ্যে পূর্বের ঘটনার সূত্র ধরে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে ছাত্র ও ইউপি সদস্য পথচারী সহ ৫০জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েক জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেটের বিভিন্ন ক্লিনিকে প্রেরণ করা হয়েছে বলে আহতদের পরিবার সূত্রে জানায়। অন্যরা স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী ফিরেছে। ঘটনার সংবাদ উভয় গ্রামের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তারা দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্রে সজিত হয়ে সংঘর্ষের জন্য ঘটনাস্থলে জড়ো হতে থাকে। সংঘর্ষের জন্য তারা সেল, বল্মম, তীর ধনুক, লাটি সোটা, বুলেটপ্র“ফ জেকেট ও মাথায় হেমলেট এবং পাথর ভর্তি বেগ পরিহিত শত শত ব্যাক্তি উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। এনিয়ে ২গ্রামবাসীর মধ্যে টান টান উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। আহতরা হলেন তিনপাড়া গ্রামের হাজী হাফিজ উল্লার ছেলে ৫নং ফতেপুর ইউপি সদস্য আব্দুল মুতলিব, একই গ্রামের প্রকাশ সেক্রেকারীর ছেলে দোলোয়ার হোসেন, হেমু পাখি টিখি গ্রামের তজই মিয়ার ছেলে আবু মিয়া, ভাটপাড়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুছ এর ছেলে মঞ্জুর আহমদ, তিনপাড়া গ্রামের আব্দুল মাল এর ছেলে মামুনুর রশিদ, হরিপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর ছাত্র তিনপাড়া গ্রামের জয়নালের ছেলে রাশেল আহমদ, ফখরুল ইসলামের ছেলে আল-আমিন, আবু-বক্কর সিদ্দেক। অন্যান্য আহতদের নাম জানা যায়নি।
অপরদিকে ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত নিষ্পতির জন্য জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন, দরবস্ত ইউপি চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার, সাবেক জৈন্তাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মাহমুদ ঘটনাস্থলে পৌছে সৃষ্ট ঘটনার নিষ্পত্তির লক্ষে উভয় পক্ষের সাথে আলোচনা অব্যহৃত রাখছেন। এঘটনাকে নিয়ন্ত্রন এবং শান্তি শৃঙ্খলা বাজায় রাখার জন্য হরিপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় প্রঙ্গনে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সফিউল কবির, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ জাহিদ আনোয়ার, সেকেন্ড ইন কমান্ড প্রভাকর রায়ের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যাক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লামাশ্যামপুর হাউদপাড়ার লোকজন আপোষ নিষ্পত্তির জন্য সালিশ গনের কাছে সম্মতি দিয়েছে। তবে হেমু তিনপাড়ার লোকজান সম্মতি দিতে রাত ৯টা পর্যন্ত সময় নিয়েছে।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org
Translate »