Category: শেষ পাতা

ঝিনাইদহে যৌন হয়রানীর দায়ে স্কুল শিক্ষক গ্রেফতার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পশ্চিম দুর্গাপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে স্কুলশিক্ষকের যৌন হয়রানীর প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছে এলাকার অভিভাবক ছাত্রীরা।এ ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা স্কুলে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করে।খবর পেয়ে স্কুলের সভাপতি মধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ জুয়েল স্কুলে উপস্থিত হয়ে বিচারের আশ্বাস দেন।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত  ঘটনায় জরুরিভাবে পরিচালনা কমিটির সভা চলছে।ি শক্ষার্থীদের অভিযোগ, অষ্টম শ্রেণিতে পড়য়া এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানী করে স্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক রবিউল ইসলাম বাবলু। তিনি মহামায়া গ্রামের সোবাহান বিশ্বাসের ছেলে। এদিকে শনিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে অভিযুক্ত শিক্ষক রবিউল ইসলাম বাবলুকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। খবর এলাকায় জানাজানি হলে অভিভাবকরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন।সেই সাথে বিচার লম্পট শিক্ষককে স্কুল থেকে বরখাস্ত উপযুক্ত শাস্তির দাবি অভিভাবকদের।এর আগেও ওই স্কুলের শিক্ষক জহুরুল ইসলামের নামে আরেক ছাত্রীর গায়ে হাত দেয়া উত্যাক্ত করার অভিযোগ ওঠে। পরে তাকে তিন মাস সাময়িক বরখাস্ত রেখে চিল্লায় পাঠিয়ে দেয়া হয় বলে কথিত আছে।একটি সূত্র জানায়, ওই স্কুলের একাধিক ছাত্রীকে হয়রানী করা হয়েছে।এদিকে পশ্চিম দুর্গাপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা বার বার নিগ্রহের শিকার হওয়ার বিষয়টি শনিবার বাজারগোপালপুরসহ এলাকায়টক অব দ্য ভিলেজেপরিণত হয়। লম্পট শিক্ষকদের বরখাস্তসহ তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে চায়ের দোকানগুলোতে সমালোচনার ঝড় ওঠে।বিষয়টি নিয়ে পশ্চিম দুর্গাপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুর রহমান ছাত্রীদের বিক্ষোভ ক্লাস রুমে তালা মারার কথা স্বীকার করে জানান, উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবিলায় রোববার বিশেষ জরুরি সভা আহবান করা হয়েছে।বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক রবিউল ইসলাম বাবলুর ০১৭২৮০৫০৪৯৮ মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।তবে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমাদুল হক শেখ জানান, শিক্ষক রবিউল ইসলাম বাবলুকে থানায় আনা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ভারতীয় গরুতে ছয়লাভ

অনলাইন ডেস্ক: যশোরে জমে উঠেছে কোরবানি পশুর হাট। তবে হাটগুলোতে দেশি খামারের গরুর পাশাপাশি লক্ষণীয়ভাবে বেড়েছে ভারতীয় গরু। এতে গরুর দাম তুলনামূলকভাবে অনেক কম বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। পাশাপাশি চরম হতাশায় ভুগছেন খামারিরা। হাটগুলোতে দেখা গেছে ভারতীয় গরুর আধিক্য। এ কারণে পশুর দাম অনেক কম হওয়ায় খুশি ক্রেতারা।গত কয়েক বছর ধরেও ভারত থেকে গরু আসা প্রায় বন্ধ হওয়ায় যশোরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গড়ে ওঠে হাজার হাজার পশুর খামার। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখেই এসব খামারে বাণিজ্যিকভাবে মোটাতাজাকরণ করা হয় গরু।গত দু’বছর কোরবানির পশুর হাটে খামারের গরুর আধিক্যই ছিল বেশি। কিন্তু এবার চিত্র একটু ভিন্ন। দেশি খামারের গরুর পাশাপাশি প্রচুর পরিমাণে হাটে উঠছে ভারতীয় গরু। এতে লোকসান আতংকে খামারীরা।হাটগুলোতে ভারতীয় ও খামারি গরুর আধিক্যের কারণে দাম অনেকটা কম বলে জানালেন ক্রেতারা। সরবরাহ বাড়ায় ছাগলের দামও তুলনামূলক কম।এদিকে সুস্থ পশুর নিরাপদ মাংস নিশ্চিত করতে হাটগুলোতে তৎপর রয়েছেন বলে জানান যশোর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. ভবতেষ কান্তি সরকার।যশোর জেলায় মোট ২১টি স্থায়ী পশু হাট রয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে বিভিন্ন এলাকায় আরো ১০টি  অস্থায়ী হাট গড়ে উঠেছে।

মসলার দাম উর্ধমুখী

ঈদুল আজহা এলেই বাড়ে মসলার কদর। ঈদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ে দাম। এবারের ঈদেও হয়নি এর ব্যতিক্রম। বাজারে বেড়েছে এলাচ ও জিরার দাম। দাম বাড়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা।
সরেজমিন কারওয়ান বাজার, মহাখালী, খিলগাঁও, যাত্রাবাড়ী এবং সায়েদাবাদসহ রাজধানীর বিভিন্ন মসলা বাজার ঘুরে দেখা যায়, সব বাজারেই বেড়েছে এলাচ ও জিরার দাম। এ ছাড়া মার্কেটে এখনো তেমন ভিড় নেই। টুকটাক কেনাকাটা চলছে। তবে ঈদের তিন দিন আগে থেকে বিক্রি বাড়বে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।
বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতিকেজি ইন্ডিয়ান এলাচের দাম ছিল ১২৫০ টাকা, যেটা বেড়ে হয়েছে ১৩৮০ টাকা। অর্থাৎ কেজিতে বেড়েছে ১৩০ টাকা। এ ছাড়া প্রতিকেজি আমেরিকান এলাচের দাম ছিল ১৪৫০ টাকা, যেটা এখন ১৬৫০ টাকা। অর্থাৎ, দাম বেড়েছে ২০০ টাকা।
এ ছাড়া জিরার বাজার ঘুরে দেখা গেছে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিকেজি ইন্ডিয়ান জিরার দাম ছিল ৩২০ টাকা, যেটা এখন বেড়ে হয়েছে ৩৭০ টাকা। অর্থাৎ কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা। আর সিরিয়া থেকে আমদানিকৃত জিরার দাম ছিল ৩৪০ টাকা, যেটা বেড়ে হয়েছে ৪০০ টাকা। অর্থাৎ দাম বেড়েছে ১৬০ টাকা।
তবে গোলমরিচ, ধনিয়া, দারুচিনি এবং লবঙ্গসহ মসলা-জাতীয় পণ্যের চাহিদা বাড়লেও দাম তেমন বাড়েনি।
কারওয়ান বাজারের মসলা ব্যবসায়ী আবুল হোসেন বলেন, এলাচ ও জিরার দাম বেড়েছে। প্রতিবারই ঈদের আগে দাম বাড়ে। এ ছাড়া ডলারের দাম বাড়লেও এসব পণ্যের দাম বাড়ে। এলাচ কেজিতে সর্বোচ্চ ২০০ এবং
জিরা বেড়েছে ১৬০ টাকার মতো।তিনি বলেন, ঈদুল আজহায় মসলা সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়। বাজার এখনো তেমন জমে ওঠেনি। ঈদের তিন দিন আগে থেকে বিক্রি বাড়বে। তখন নিঃশ্বাস ফেলার সময় থাকবে না।
কারওয়ান বাজারে মসলা কিনতে আসা রোজি বেগম জানান, ঈদের জন্য মসলা কিনতে এসেছি। মসলার জন্য কারওয়ান বাজার ভালো। সবসময় এখান থেকেই কিনি।দাম বাড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, কোরবানির ঈদ এলেই মসলার দাম বেড়ে যায়। এর ভুক্তভোগী হয় জনগণ। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, সরকারের যে বাজার নিয়ন্ত্রণ সেল রয়েছে, তাদের উচিত বিষয়টি দেখা।
শুধু কারওয়ান বাজার নয়, মহাখালী কাঁচাবাজারে গিয়ে মিলেছে একই চিত্র। সেখানে দেখা গেছে, বাজারে বেড়েছে এলাচ ও জিরার দাম।মহাখালী কাঁচাবাজারের মসলা ব্যবসায়ী হুমায়ুন জানায়, কোরবানির ঈদ এলেই এলাচ ও জিরার দাম বাড়ে। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি।মার্কেটে জিরা কিনছিলেন আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, ঈদ এলেই মসলার দাম বাড়ে। এ আর নতুন কী, সব বিপদেই আমাদের সরকারের কিছুই করার নেই।
এ বিষয়ে কারওয়ান বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি বাবুল মিয়া জানান, অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে কোরবানির ঈদে গরম মসলার চাহিদা কয়েক গুণ বাড়ে, তাই দামও বেড়ে যায়। দেশের বাজারে মসলার দাম আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নির্ধারিত হয়।

গৃহহীনদের পুনর্বাসন ও ভূমিহীনদের জন্য খাস জমি দিতে কোন ওজর আপত্তি বরদাশত করা হবে না: ভূমিমন্ত্রী

ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ বলেছেন, অনেক সময় গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জায়গা খুঁজে বের করার সময় বলা হয়ে থাকে আইনী জটিলতার কারণে খাস জমি বের করা যাচ্ছে না। যেকোন সমস্যাই থাকুক, গৃহহীনদের পুনর্বাসন ও ভূমিহীনদের জন্য খাস জমি খুঁজে বের করে দিতে কোন ওজর আপত্তি বরদাশত করা হবে না।আজ বিকালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আগস্ট ২০১৭ মাসের বিভাগীয় কমিশনার সমন্বয় কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে ভূমিমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের এ নির্দেশ দেন।ভূমিমন্ত্রী শরীফ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন এদেশে কোন গৃহহীন থাকবে না। তিনি বলেন, গৃহহীনদের পুনর্বাসন করার নির্দেশ সকল বিভাগীয় কমিশনারদের প্রতি রয়েছে। প্রতিটি বিভাগ থেকে খাস জমি খুঁজে বের করার দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের। আইনী সমস্যা থাকলে তা আপনারা সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় কমিশনারগণ খতিয়ে দেখা জরুরি রয়েছে বলে সভায় এমন মন্তব্য করেন ভূমিমন্ত্রী। গুচ্ছগ্রামে এ পর্যন্ত পুনর্বাসিত পরিবারের মধ্যে যারা গুচ্ছগ্রামে বসবাস করছেন তাদের একটি তালিকা একমাসের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় কমিশনারদের নির্দেশ দেন তিনি। তিনি সরকারের উন্নয়ন কাজে দীর্ঘসূত্রতা পরিহারের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিকভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত গৃহহারা মানুষের পুনর্বাসনের জন্য সরকার সকলপ্রকার সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। মন্ত্রী বলেন, গণতান্ত্রিক সরকার সবচেয়ে শক্তিশালী সরকার। সরকারের এ ঘোষণাকে সকলেই আন্তরিকতার সাথে মেনে চলতে হবে। তিনি আগামী ১ মাসের মধ্যে দেশের সকল গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের আপডেট সংখ্যা নিরূপনের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশ দেন।সভায় অন্যান্যের মধ্যে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, ভূমি সচিব ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবুয়াল হোসেন, মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিভাগীয় কমিশনারগণ উপস্থিত ছিলেন।

জাজিরায় বঙ্গবন্ধু’র অসমাপ্ত আত্মজীবনী বিতরণ: বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে — নুরজাহান আক্তার সবুজ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী নুরজাহান আক্তার সবুজ বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে। জীবন দিয়ে হলেও তাঁর স্মৃতি ধরে রাখবো। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীদের খুঁেজ বের করে তাদের বিচার করতে হবে। আর খুনে নেপথ্যের নায়কদেরও বিচার করতে হবে। আর বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। তাই তাঁর নেতৃত্বেই সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমি সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে এই অনুষ্ঠান সম্পন্ন করতে পারায় এলাকার জনগন ও দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি সারাজীবন মানুষের কল্যাণে ও এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চাই। এজন্য সকলের দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করছি। শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নাওডুবা ইউনিয়নের আমজাদিয়া একাডেমীতে “বঙ্গবন্ধুকে জানো” শীর্ষক আলোচনা সভা ও বঙ্গবন্ধু’র আসমাপ্ত আত্মজীবনী ও কারাগারের রোজনামচা বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ উপলক্ষ্যে শনিবার সকালে আমজাদিয়া একাডেমী হল রুমে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আমজাদিয়া একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মো. সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, নওডুবা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এম. এ কাদের, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম মাদবর, শ্রমিক লীগের সেলিম ঢালী, ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান হাওলাদার, প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন ছাত্র মো. জুলহাস সহ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

গাজীপুরে ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণের ইমাম বাতায়ন প্রশিক্ষণ কর্মশালা

SAMSUNG CAMERA PICTURES

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান (আতিক), গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ
গাজীপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সহযোগিতায় ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণের ইমাম বাতায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।২৪ আগস্ট বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা গাজীপুর শহরের রথখোলাস্থ বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়।অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) খন্দকার ইয়াসির আরেফিনের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ডঃ দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, গাজীপুর জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি ও গাজীপুর বাস টার্মিনাল জামে মসজিদের ইমাম মোঃ আক্তার হোসেন গাজীপুরী, জয়দেবপুর দারুস সালাম (গোরস্থান) ফাজিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল আবদুল মান্নান, ইসলামিক ফাউন্ডেশন গাজীপুরের উপ-পরিচালক মোঃ মহীউদ্দিন প্রমুখ।কর্মশালায় গাজীপুর মহানগরের প্রায় ৪শ’ ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহন করেন।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক ডঃ দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর বলেন, বর্তমান সরকার ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণ যাতে সমাজের উন্নয়নে আরো ভালোভাবে ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে পারে সেই লক্ষ্যে ইমাম বাতায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে। আমি আশা করব ইমাম ও মুয়াজ্জিমগণ এই প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব আরো সুন্দরভাবে পালন করতে সক্ষম হবে।পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের নিহত সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন গাজীপুর কালেক্টর মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মনোয়ার হোসাইন।

  1. কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক ডঃ দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর বলেন, বর্তমান সরকার ইমাম ও মুয়াজ্জিনগণ যাতে সমাজের উন্নয়নে আরো ভালোভাবে ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে পারে সেই লক্ষ্যে ইমাম বাতায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে। আমি আশা করব ইমাম ও মুয়াজ্জিমগণ এই প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব আরো সুন্দরভাবে পালন করতে সক্ষম হবে।পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের নিহত সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন গাজীপুর কালেক্টর মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মনোয়ার হোসাইন।

শাহজালাল বিমানবন্দরে ৩৬৩ কার্টুন বিদেশি সিগারেটসহ এক যাত্রী আটক

এস,এম মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) পুলিশের সদস্যরা আজ বৃহস্পতিবার সকালে দুবাই ফেরত ইমাম হোসেন তুষার (৩১) নামে এক যাত্রীকে আটক করেছে। তার কাছ থেকে আমদানী নিষিদ্ধ ৩০৩ ব্রান্ডের ৩৬৩ কার্টুন বিদেশী সিগারেট উদ্বার করেন। যার বাজার মূল্য প্রায় ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৫শ টাকা।
বিমানবন্দর আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) এপিবিএন এর সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) তারেক আহমেদ আজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এপিবিএন এর সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) তারেক আহমেদ জানান, আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এয়ার এরাবিয়ার (জি-৯৫১৭) নম্বরের একটি ফ্লাইট ঢাকা হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমান বিমানবন্দরে পৌঁছেন। আজ সকাল ১১টার দিকে বিমান বন্দরের গ্রীন চ্যানেল এলাকা দিয়ে বের হবার সময় আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) পুলিশের সদস্যরা গোপনে খবর পেয়ে সেখানে ওঁৎ পেতে থাকে। ওই বিমানের যাত্রী ইমাম হোসেন তুষার (৩১) তার সাথে থাকা মালামাল নিয়ে ব্যাগেজ বেল্ট এলাকায় তুষারকে অঅটক করে। পরে এপিবিএন পুলিশের সদস্যরা তার একটি লাগেজের ভেতর থেকে ও ২টি কার্টুনে তল্লাশী চালিয়ে আমদানী নিষিদ্ধ ৩০৩ ব্রান্ডের ৩৬৩ কার্টুন বিদেশী সিগারেটসহ তুষারকে আটক করে। তুষার ফেনী জেলার মৃত আবদুল কাওছার খন্দকারের পুত্র।
এএসপি তারেক আহমেদ আরও জানান, আমদানী নিষিদ্ধ ৩০৩ ব্রান্ডের প্রতি কার্টুন সিগারেটের বাজার মূল্য প্রায় ১৫শ টাকা। জব্দ করা মোট ৩৬৩ কার্টুন বিদেশী সিগারেট মূল্য ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৫শ প্রায় টাকা। উদ্বার আটক করা বিদেশী সিগারেট গুলো ডিএম করে জব্দ করা হয়েছে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ॥ ঈদের পুর্বে সেনা ও বিজিবি মোতায়েনের দাবী যাত্রীদের

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল,টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের তীব্র যানজট থাকায় এ রোডে চলাচলকারী যাত্রীদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই হাইওয়ে থানার পুলিশ ও মির্জাপুর থানা পুলিশ সুত্র জানায়, গতকাল বুধবার থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজট শুরু হয়। আজ বৃহস্পতিবার মহাসড়কের মির্জাপুর বাইপাস, দেওহাটা ও জামুর্কী এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে,যানজটে স্থবির হয়ে পরেছে পুরো মহাসড়ক।ঈদে মহাসড়ক সচল রাখার জন্য ও যানজট দুরীকরনের জন্য পুলিশের পাশাপাশি সেনা ও বিজিবি মোতায়েনের দাবী জানিয়েছেন সাধারণ যাত্রীগন।
পুলিশ সুত্র জানায়, এ মহাসড়কের যানজটের অন্যতম কারন হচ্ছে,ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে চার লেন প্রকল্প ও গত কয়েক দিন ধরে লাগাতার বৃষ্টির কারনে বেশির ভাগ রাস্তায় খানা খন্দের সৃষ্টি হওয়ায় এ জানজটের সৃষ্টি হয়েছে। চন্দ্রা থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত এই ৭০ কি. মি. মহাসড়কের অধিকাংশ স্থানে পিচ ঢালাই উঠে ছোট বড় অসংখ্য খানা খন্দক সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহন চলাচল অত্যান্ত ঝুঁকিপুর্ন হয়ে পরেছে।
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের অফিসার ইনচার্জ মো. আতাউর রহমান জানান,আজ বৃহস্পতিবার ভোর রাতে মহাসড়কের উপজেলার মির্জাপুর চরপাড়া বাইপাস এলাকায় বাস-ট্রাক মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়ে দুই পাশে তীব্র যানজট শুরু হয়।এছাড়া মহাসড়কের জামুর্কী ও পাকুল্লা এলাকা এবং কালিয়াকৈর রেলওয়ে অভার পাস বিজ্রের উপর পর পর কয়েকটি মালবাহী ট্রাক বিকল হয়ে মহাসড়কের দুই পাশে যানজট শুরু হয়। থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ খবর পেয়ে বিকল হওয়া ট্রাকগুলো সরানোর চেষ্টা করছে। এদিকে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, মহাসড়কের চন্দ্র থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত মহাসড়ক জুড়েই এখন তীব্র যানজটে স্থবির।সবচেয়ে বেশী দুর্বোগ দেখা দিয়েছে মির্জাপুর বাইপাস থেকে চন্দ্রা পর্যন্ত এলাকায়।পুলিশ জানিয়েছে, চন্দ্র এলাকায় অভার ব্রিজ নির্মানের ফলে যানবাহন ঠিকমত পারাপার হতে পারছে না।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাইন উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন,যানজট নিরসনের জন্য ট্রাফিক পুলিশ,থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ নিরলস ভাবে কাজ করেছেন।

সামরিক ও গণতান্ত্রিক আইন এক না: রাবি ভিসি

রাবি প্রতিনিধি:
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের ২০ আগস্টের ঘটনায় ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবসের আলোচনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর এম. আব্দুস সোবহান বলেন, ছাত্র ও ন্যায়ের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮১ জন শিক্ষককে নিয়ে গণছুটি নিয়েছিলাম। সে ঘটনায় আমাকে গ্রেফতার করে ম্যাজিস্ট্রেট বলেছিল, আপনি কনভেনর হিসেবে ক্লাবের মিটিংয়ে গণছুটি বন্ধ করতে পারতেন কিন্তু তা করলেন না কেন? তখন আমি তাকে বলেছি, আপনি আপনার কমান্ডকে ন্যায়-অন্যায়ে ক্যারি আউট করতে পারেন। কিন্তু গণতন্ত্র সকলের সংখ্যাগরিষ্ট মতামতের হয়। সামরিক আইন ও গণতান্ত্রিক আইন এক নয়।
এসময় তিনি আরও বলেন, ৩৮ জনকে র‌্যাব কাস্টরিতে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে ১০ দিনই রিমান্ড দেন। অথচ খুনির মামলায় ১০ দিন রিমান্ড চাইলে ৫ দিন দেয়া হয়। কেননা আমরা ছিলাম অসহায় ও নির্যাতনের শিকার।
বৃহষ্পতিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে সিনেট ভবন চত্বরে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম আব্দুল বারীর সঞ্চালনায় আলোচনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর হারুন-অর-রশিদ, বিশ্ববিদ্যালয় প্র-ভিসি প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, রাজশাহী-৩ আসনের সাংসদ আয়েন উদ্দিন, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজের প্রফেসর মলয় কুমার ভৌমিক প্রমুখ।
এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ সিনেট চত্বরে এক মানববন্ধনে আয়োজন করে।
উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে ২০ আগস্ট ঢাবির খেলার মাঠে সেনা সদস্যদের হামলার ঘটনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করলে ৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করে। ২৪ আগস্ট দুই দিন শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশে সংঘর্ষে অন্তত কয়েকশ আহত হন। এরপর থেকে প্রতিবছর ২৪ আগস্ট রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন’ দিবস পালন করে আসছে।

আগামীকাল নির্বাচন হলেও বিএনপি ক্ষমতায় যাবে ———– গাজীপুরের মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান


এস,এম মনির হোসেন জীবন : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও গাজীপুর সিটি মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের জবাবে বলেছেন, আমরা ওয়ান ইলেভেন আনিনি, ওয়ান ইলেভেন আপনাই সৃষ্টি করেছেন। আপনারা যতই ওয়ান ইলেভেনের সৃষ্টি করেন না কেন এবারের নির্বাচনে বিএনপিকে দাবিয়ে রাখা যাবেনা।
তিনি আর ও বলেন, আগামীকাল ও যদি সুষ্ঠ নির্বাচন হয় তাহলে বিএনপিই আবার ক্ষমতায় যাবে। অতীতে যতবার সুষ্ঠ নির্বাচন হয়েছে প্রতিবারই বিএনপি ক্ষমতায় গেছে। আজ বৃহস্পতিবার গাজীপুরের টঙ্গীতে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
টঙ্গীর কলেজ গেইট এলাকায় এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেন্দ্রিয় শ্রমিকদলের কার্যকরী সভাপতি আলহাজ সালা উদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে জেলা যুবদলের সভাপতি এমদাদ খান, সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নু, শ্রমিকদলের গাজীপুর জেলা সাধারন সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাবুল, যুবদল নেতা জসিম ভাট, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শরাফত হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন, টঙ্গী ১৫টি ওয়ার্ডে পর্যায়ক্রমে তাদের এ কর্মসূচী সফল করা হবে। এর মাধ্যমে তৃনমুল বিএনপি গতিশীল করা হবে।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org