Category: বিভাগীয় সংবাদ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ভিক্ষুক ও অন্ধদের মাঝে ঈদ সামগ্রী তুলে দিলেন ইউএনও

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য এই শ্লোগানকে বাস্তবায়ন করতে টাঙ্গাইলের মির্জাুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সামদমীন সমাজের অসহায় ও দরিদ্রদের পাশে থেকে তাদের সহায়তার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।আসন্ন কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে তিনি বিক্ষুক ও অন্ধ বিক্ষকদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছেন।আজ বৃহস্পতিবার তিনি তার অফিসের কয়েকজন সহকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে উপজেলা সদরের কলেজ রোড, কুমুদিনী হাসপাতাল রোড, পুষ্টকামুরী, বংশাই রোডসহ বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার পাশে থাকা বিক্ষুক ও অন্ধ বিক্ষুক নারী পুরুষদের মধ্যে ঈদ সামগ্রী নিজ হাতে তুলে দিয়েছেন।ঈদ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে, সেমাই, চাল, চিনি, শুকনো দুধসহ শুকনো খাবার।এর আগে তিনি উপজেলার মহেড়া, জামুর্কি, ফতেপুর, বানাইল, আনাইতারা, ওয়ার্শি, ভাদগ্রাম, ভাওড়া, বহুরিয়া, লতিফপুর, তরফপুর, গোড়াই, আজাগানা ও বাঁশতৈল ইউনিয়নের বিভিন্ন এরাকায় পথশিশু, বিক্ষুক ও অন্ধ বিক্ষুকদের মাঝে এ সামগ্রী তুলে দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন বলেন, আসন্ন ঈদে ধনী ও মধ্যবৃত্তরা উৎসব মুখর পরিবেশে ঈদ উদযাপন করবেন।কিন্ত যারা অসহায় ও রাস্তার পাশে থেকে ভিক্ষাবৃতি করেন, তাদেরও ঈদ করার মত ইচ্ছে জাগে।কিন্ত সমাজের এসব নারী পুরুষ অর্থের অভাবে কেনাকাটা করতে পারেন না।ঈদে যাতে তারাও কিছু খাবার ক্ষেতে পারেন এ জন্য তাদের সামান্ন ঈদ সামগ্রী তুলে দেওয়া হচ্ছে।

সিসি ক্যামেরায় আওতায় আসছে হাটহাজারী উপজেলা হাসপাতাল

 


মোহাম্মদ হোসেন,হাটহাজারী,
হাটহাজারী উপজেলা হাসপাতালের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য বসানো হচ্ছে সিসি ক্যামেরা। হাসপাতালের গুরুত্বপুর্ণ স্থান গুলোতে ৮টি সিসি ক্যামেরার বসানো হয়েছে। সোমবার(২৯ আগষ্ট) হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায় হাসপাতালে প্রধান গেইট থেকে শুরু করে জরুরী বিভাগ,আউটডোর ইউনিট,বারান্দা ও অন্যন্য স্থান।
কথা হয় হাসপাতালের কর্মকর্তা ডাঃ ফজলে রাব্বীর সাথে তিনি বলেন,হাসপাতালের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য এ সব ক্যামেরা খুবই জরুরী। বর্তমানে বিভিন্ন সমস্যার কারনে সিসি ক্যামেরা গুলো কাজে আসবে বলে তিনি জানান

আরাকানে রোহিঙ্গা নির্যাতন-হত্যা বন্ধে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ দাবি করেছে মজদুর পার্টি

মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর আবার শুরু হওয়া নির্মম হত্যা নির্যাতনের প্রতিবাদে আজ ২৯ আগষ্ট ২০১৭ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টি। মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা: সামছুল আলম। আরো বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক এ.এ.এম ফয়েজ হোসেন, পিডিবি’র প্রচার সম্পাদক হাসান মঞ্জু, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য মোস্তাক আহমেদ, গণমঞ্চের আহ্বায়ক মাসুদ মিয়া, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর হোসেন, মজদুর পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা দ্বীন ইসলাম ও নাসির হোসেন প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশ সরকারকে মায়ানমারের নির্যাতিত রোহিঙ্গা ভাইদের সাময়িক ভাবে আশ্রয় দিতে হবে ও রোহিঙ্গাদের পক্ষে জাতিসংঘে এ বিষয়ে আলোচনার ব্যবস্থা করতে হবে। এইসব ব্যবস্থা করতে সরকার যদি গড়িমসি করে তাহলে সংবিধানের ঘোষিত সকল নিপীড়িত জাতির পক্ষে যে বক্তব্য আছে তার সাথে সরকারের ভূমিকা সাংঘর্ষিক হবে। বক্তারা আরাকানে রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং এ ব্যাপারে নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করায় বিশ^শক্তি ও মুসলিম শক্তিগুলো সমালোচনা করেন।

জাজিরায় জাপান প্রবাসী বন্ধু মহলের উদ্যোগে পদ্মায় ভাঙ্গন কবলিতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

শরীয়তপুর :
শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলায় জাপান প্রবাসী বন্ধু মহলের উদ্যোগে পদ্মায় ভাঙ্গন কবলিত অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার (২৭ আগস্ট ২০১৭) জাজিরা উপজেলার ফকির মাহমুদ আকন কান্দি এলাকার মরহুম হাজী নোয়াব আলী ঢালীর বাড়ীর সামনে ৩৫০ জন অসহায় মানুষের মাঝে এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ত্রাণ বিতরণের সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন, জাপান প্রবাসী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তোতা মিয়া ঢালী। এসময় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সমাজ সেবক ইউনুস ঢালী, ইনসান উদ্দিন ঢালী, আজমল ঢালী, নুর ইসলাম ঢালী, আলাউদ্দিন ঢালী, কিবরিয়া শেখ প্রমূখ। অনুষ্ঠানে জাপান প্রবাসী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তোতা মিয়া ঢালী বলেন, আমি সারা জীবন মানুষের সেবায় ও কল্যাণে কাজ করতে চাই। এজন্য সকলের দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করছি।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

নওগাঁয় মৌসুমীর উদ্যোগে ২৫০০ পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরন

নওগাঁ প্রতিনিধি : স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা মৌসুমীর উদ্যোগে নওগাঁ সদর, রাণীনগর, আত্রাই ও পতœীতলা উপজেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ২৫০০ পরিবারের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরন করেছে। এরই অংশ হিসেবে সোমবার দেবীপুর, কাদোয়া, ইকরতার, খিদিরপুর, রজাকপুর গ্রামে ত্রান বিতরন করা হয়। ত্রান সামগ্রী বিতরণের পাশা-পাশি ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প ও বিনামুল্যে ঔষধ বিতরণ করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উজ্জীবিত প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী আব্দুর রউফ পাভেল। আরো উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ সদর শাখা ব্যবস্থাপক আনিছুর রহমান, স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী মমতাজ আহম্মেদ, প্রোগ্রাম অফিসার টেকনিক্যাল রুস্তম আলী, আরবার শাহরিয়ার, দিদারুল ইসলাম, প্রোগ্রাম অফিসার সোশ্যাল মনিরুল হাসান,তসলিম উদ্দিন, তিথি খাতুন, শিল্পী বর্মন,স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফিরোজ উদ্দীন, লায়লা,মাঠ কর্মকর্তা সোহাগ ও স্বাস্থ্য সহকারী সুলতানা খানম প্রমুখ।

পঞ্চগড়ে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
পঞ্চগড়ে জেলা পরিষদের উদ্যোগে জেলার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পরিষদ হলরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের হাতে এককালীন এই বৃত্তির টাকা তুলে দেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমানুল্লাহ বাচ্চু। জেলার পাঁচ উপজেলার মোট ৮৮জন শিক্ষার্থীদের ৩ হাজার ৩০০ টাকা করে বৃত্তি প্রদান করা হয়। এর আগে জেলার অসহায় ও দরিদ্র ১১২ জনকে চিকিৎসা সহায়তা হিসেবে ত্রান তহবিল থেকে মোট ২ লক্ষ ১২ হাজার টাকা বিতরণ করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমানুল্লাহ বাচ্চু।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম আজমসহ জেলা পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মধুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে সনাক’র মতবিনিময় সভা 

মোঃ লিটন সরকার, মধুপুর (টাংগাইল) প্রতিনিধি :- টাংগাইলেরর মধুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে সনাক’র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।২৯ আগস্ট (মঙ্গলবার) সকাল ১১ টায় মধুপুর প্রেস ক্লাবে সচতন নাগরিক কমিটি (সনাক) মধুপুর ও ট্রান্সপারন্সি ইটারন্যাশনাল বাংলাদশ (টিআইবি)’র উদ্যাগে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা আয়োজন করা হয়।দুর্নীতিবিরাধী সামাজিক আদালনকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যকে সামন নিয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মাে: হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন মধুপুর প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মাে: আনছার আলী।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সনাক সভাপতি ডা: মীর ফরহাদুল আলম মনি, প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি ও দৈনিক সংগ্রাম এর স্থানীয় প্রতিনিধি মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ, প্রেস ক্লাবের সম্পাদক নাজমুছ সাদাৎ নােমান, দৈনিক ভােরর কাগজর স্থানীয় প্রতিনিধি অধ্যাপক এম এ আজিজ, দৈনিক আমার দেশ এর এম এ রউফ, দৈনিক সংবাদ মাে: হাবিবুর রহমান প্রমূখ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সনাক এর সহ-সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তর প্রতিনিধ  মােহাম্মদ শহিদুল ইসলাম।
মতবিনিময় সভায় গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দশ্যে সনাকের পক্ষ থেক বলা হয়, ‘পরিবর্তনর অন্যতম রূপকার হিসবে গণমাধ্যম কর্মীরা তাঁদর লেখনির মাধ্যমে দুর্নীতিবিরােধী সামাজিক আন্দোলনকে নিয়ে গেছন গণমানুষের কাছে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মাধ্যমে তাঁরা তুলে ধরছেন নাগরিক ভােগান্তি, হয়রানি, সেবাখাতের সমস্যা ও সম্ভাবনার চিত্র।
সনাক ও টিআইবি বিশ্বাস করে, আগামী দিনগুলাতেও গণমাধ্যম কর্মীগণ হবেন আমাদর পথচলার অন্যতম সহযাত্রী, সুশাসন প্রতিষ্ঠার অগ্রসনানী।এসময় সনাক ও ইয়স সদস্য, গণমাধ্যম কর্মী ও টিআইবি’র কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলন।

নোয়াখালী সাংবাদিক ইউনিয়নের মানববন্ধন

জুয়েল রানা লিটন, নোয়াখালী প্রতিনিধি:
মিয়ানমারে নির্বিচারে মুসলিম নিরীহ, নিরপরাধী নারী, পুরুষ ও শিশুদের ওপর অমানবিক নির্যাতন, নিপীড়ন, পুড়িয়ে হত্যা, গণধর্ষণ ও লুণ্ঠনের প্রতিবাদে নোয়াখালী সাংবাদিক ইউনিয়নের উদ্যোগে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার সকাল ১০টায় নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মী ছাড়া সুশীল সমাজের লোকজন অংশগ্রহণ করেন। সাংবাদিক ইউনিয়নের আহবায়ক এডভোকেট মো.হানিফের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা আকাশ মো. জসিমের পরিচালনায় এ সময় সাংবাদিকদের মধ্যে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সদস্য সচিব জামাল হোসেন বিষাদ, লায়ন মো. শাহ আলম ও সাংবাদিক ইউনিয়ের যুগ্ন আহবায়ক নাসির উদ্দিন শাহ নয়ন বক্তব্য রাখেন। এতে সাংবাদিকদের মধ্যে দ্বীপ আজাদ, মো. জাহাঙ্গীর আলম, মুলতানুর রহমান মান্না (ডেইলী অবজারভার), সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য সচিব জুয়েল রানা লিটন, বোরহান উদ্দিন সবুজ, মো. শাকিল, আ ন ম হোসাইন উদ্দিন, মো. আনোয়ার হোসেন (দৈনিক দিশারী), মোতাহের হোসেন বাবুল প্রমূখ অংশগ্রহণ করেন।
বক্তারা মিয়ানমারে সামরিক জান্তা কর্তৃক নিরীহ নিরপরাধী মুসলিম নারী, পুরুষ ও শিশুদের ওপর বর্বরোচিত ও পৈশাচিক কায়দায় পুড়িয়ে ও কুপিয়ে হত্যা, নির্যাতন, গণধর্ষণ, পৈশাচিক ও নারকীয়তার ঘটনার প্রতিবাদ করেন। তারা বাংলাদেশ সরকারকে মানবতার কল্যাণে এ গণহত্যার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোরও আহবান জানান। একইসাথে জাতিসংঘকে অবিলম্বে নিপীড়িত ও নির্যাতিত এ জনগোষ্ঠীর পাশে মানবতার হাত প্রসারিত করার আবেদন করেন।

পীরগঞ্জে ২৯ কোটি টাকার কাজ ১৯ কোটি টাকায়! দুর্নীতি, নিম্মমানের সামগ্রী ব্যবহার, ধ্বসে যাচ্ছে সড়ক!

মামুনুররশিদ মেরাজুল, পীরগঞ্জ (রংপুর) থেকে ঃ
রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে সাদল্লাপুর-মাদারগঞ্জ-পীরগঞ্জ-নবাবগঞ্জ সড়কের বর্ধিতকরণ ও কার্পেটিংয়ের শেষ না হতেই সড়কটির অনেক অংশে ফাঁটল ধরেছে, ধ্বসেও গেছে। সড়কটির টেন্ডারে প্রাক্কলিত মুল্য ছিল প্রায় ২৯ কোটি টাকা। কিন্তু সেটি প্রায় ১০ কোটি টাকা কমে ১৯ কোটি টাকায় কাজটি করায় শুরু থেকেই দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার ও কাজে ঘাপলার ফলে সড়কের বেহালদশা হয়েছে। রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) ইতিমধ্যেই উল্লেখিত সড়কটির ৮৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন দেখিয়েছে।
রংপুর সওজ সুত্র জানায়, রংপুর সড়ক জোনের অধীনে গাইবান্ধা, রংপুর ও দিনাজপুর জেলার সাদুল্লাপুর-মাদারগঞ্জ-পীরগঞ্জ-নবাবগঞ্জ সড়কটি আঞ্চলিক মহাসড়কে উন্নীতকরনে এডিপি’র অর্থায়নে ২ টি গ্রুপে ৬৮ কোটি টাকা বরাদ্দে টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছিল। ১নং গ্রুপে ১ কি. মি থেকে ২৪ কি. মি এবং ২নং গ্রুপে ২৪ কি. মি থেকে ৪৫ দশমিক ৩’শ কি. মি পর্যন্ত এলাকা বলে জানা গেছে। ওই টেন্ডারে উল্লেখিত সড়কের উভয়পার্শে¦ বর্ধিতকরণ, সাববেজ (খোয়া-বালির মিশ্রন), বেষ্ট টাইপ-১ (পাথর-বালির মিশ্রন) ও কার্পেটিংয়ের কাজ হওয়ার কথা। ২নং গ্রুপে ২১ দশমিক ৩’শ কি. মি সড়কের কাজে প্রাক্কলিত মুল্য ছিল প্রায় ২৯ কোটি টাকা। সড়কটির পীরগঞ্জের উজিরপুর থেকে ওয়াজেদ ব্রীজ পর্যন্ত সাড়ে ১৩ কি. মি এবং দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা পর্যন্ত ৭ দশমিক ৮’শ কিমি রয়েছে। সড়কটির উভয়পাশে ৯ কি. মি বর্ধিত করে মোট ১৮ ফুট প্রশস্ত করা হবে। ওই সড়কের দুটি গ্রুপে দাখিলকৃত টেন্ডারে বিধি উপেক্ষা করে ১০ শতাংশের বেশী নি¤œ দর দেয়ায় ১নং গ্রুপের টেন্ডার বাতিল করে সেটির রি-টেন্ডার করা হয়েছিল। কিন্তু ২নং গ্রুপে প্রায় ২৩ শতাংশ নি¤œ দরে টেন্ডার দাখিল করা হলেও সেটির রি-টেন্ডার না করে বিশেষ কারণে ময়মনসিংহের মেসার্স শামীম এন্টারপ্রাইজকে (সাদল্লাপুর-মাদারগঞ্জ-পীরগঞ্জ-নবাবগঞ্জ সড়কের ২নং গ্রুপে ২৯ কোটি টাকা) কার্যাদেশ দেয়া হয়। এ নিয়ে রংপুরে ঠিকাদারদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল। মেসার্স শামীম এন্টারপ্রাইজ কাজটির কার্যাদেশ পাওয়ার পর থেকেই নি¤œমানের নির্মান সামগ্রী ব্যবহার, কাজে ঘাপলাসহ নানান অনিয়মের আশ্রয় নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে রংপুর সওজ’র তত্ত্বাবধানে ২নং গ্রুপে সড়কটিতে কার্পেটিংয়ের কাজ চললেও মোনাইল মোড়ের পশ্চিমে, ছাতুয়া গ্রামে, টিওরমারী (মানিক মন্ডলের পুকুর সংলগ্ন) সহ অনেক স্থানে সড়কে ধ্বসে গেছে, ফাঁটলও ধরেছে। ওই কাজের ব্যাপারে হরিনা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলালুর রহমান, মোনাইল (জয়নন্দনপুর) শফিকুল ইসলামসহ কয়েকজন বলেন, ঠিকাদার শুরু থেকেই কাজে ঘাপলা করায় আমরা অভিযোগ করলে ওই ঠিকাদার অফিসের কর্তাবাবুদেরকে ম্যানেজ করে সড়কের কাজ করছে।
সংশ্লিষ্ট একটি সুত্র জানায়, ২নং গ্রুপের ২৯ কোটি টাকার কাজটিতে প্রায় ২৩ শতাংশ নি¤œদরের কারণে মোট ৬ কোটি ৬৭ লাখ টাকা কমে ২২ কোটি ৩৩ লাখ টাকায় কাজটির মুল্য দাঁড়ায়। এরমধ্যে ১৩ শতাংশ টাকা ভ্যাট-ট্যাক্স বাদ দেয়ায় আরও ২ কোটি ৯০ লাখ ২৯ হাজার টাকা কমে গিয়ে ১৯ কোটি ৪২ লাখ ৭১ হাজার টাকা হয়। প্রায় সাড়ে ১৯ কোটি টাকা দিয়েই ২৯ কোটি টাকার সমমানের কাজ করতে হবে। এরমধ্যেও রংপুর সওজ এর অফিস খরচ ২ পারসেন্ট রয়েছে বলে সুত্রটি দাবী করেছে। যা উৎকোচ হিসেবে পরিগণিত। ওই উৎকোচের পরিমানও প্রায় ৩৯ লাখ টাকা। এ সব খরচ মিটিয়ে ঠিকাদারকে লাভ কিংবা ২৯ কোটি টাকা সমমানের কাজ সওজ কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে দিতে হবে বলে সুত্রটি জানিয়েছে।
সুত্রটি আরও জানায়, বেষ্ট টাইপ-১ কাজের ক্ষেত্রে পাথর এবং বালির মিশ্রনের পরিমান ৭ অনুপাত ৩। কিন্তু এর উল্টো অনুপাতে পাথর-বালি মিশ্রন করে সড়কে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সাববেজ এর ক্ষেত্রে খোয়া-বালিও ৭ অনুপাত ৩। কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি ওই অনুপাতের ক্ষেত্রেও উল্টোটা করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সেইসাথে সড়কের উয়পাশে বর্ধিতকরণের অংশ ভালভাবে রোলারিং না করায় অনেকস্থানে দেবে যাওয়ায় ওইসব স্থানে পানি জমে আছে। কাজটির তদারকি কর্মকর্তা রংপুর সওজ’র উপসহকারী প্রকৌশলী এখলাস হোসেন জানান, প্রায় ২৩ পারসেন্ট লেস (নি¤œদর), ভ্যাট-ট্যাক্স বাদ দিয়ে ১৯ কোটি টাকায় কাজ হলেও চুক্তি অনুযায়ীই ঠিকাদারকে কাজ করতেই হবে। আমরা যথাযথভাবে কাজ বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করছি। কাজের মান অবশ্যই ভাল হচ্ছে। প্রায় ১০ কোটি টাকা কম হলেও কিভাবে এই কাজ সম্পন্ন করবে, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ঠিকাদারের হয়তো লাভ থাকবে না। তবে এতে কোয়ানটিটি আর কোয়ালিটির ঘাটতি হবে না। তিনি আরও বলেন, পিপিআর এর নিয়ম অনুযায়ী সর্বনি¤œ রেসপনসিভ দরদাতাকে কাজ দেয়া হয়। এতে আমাদের করার কিছুই নেই। রংপুর সওজ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুল আলম খান বলেন, আমি শুনেছি, বেশকিছু স্থানে সড়কটি ধ্বসে গেছে। এখনো কাজ চলছে। ঠিকাদার ঠিক করে দিবে। যেভাবেই কাজ হোক, সড়কটির ৩ বছর ডিফেক্ট লায়াবিলিটি পিরিয়ড রয়েছে। এরমধ্যে সড়কের কোন ক্ষতিসাধিত হলে ঠিকাদারকেই মেরামত করে দিতে হবে। পীরগঞ্জের একজন প্রথম শ্রেনীর ঠিকাদার নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, ২৩ পারসেন্ট লেস আর অন্যান্য খাতের যে খরচ হয়েছে। তাতে ঠিকাদারকে অবশ্যই দুর্নীতির আশ্রয় নিতে হয়েছে। যে কাজ হয়েছে, তা বলার মতো না। নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার আর ফাঁকি দেয়ায় সড়ক ধ্বসে যাচ্ছে।

রাণীনগরে চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতন ॥ কিশোর উদ্ধার ও গ্রেফতার ১

নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগরে মো: শরিফুল মোল্লা (১৫) নামের এক কিশোরের ওপর চুরির অপবাদ দিয়ে দুই পায়ের বৃদ্ধা আঙ্গুলে সুঁচ ঢুকিয়ে, পায়ের পাতায় সুঁচ ফুটিয়ে ও দঁড়ি দিয়ে বেঁধে প্রায় ১৬ ঘন্টা ধরে দফায় দফায় মধ্যযুগীয় কায়দায় বর্বর নির্যাতন চালানো হয়েছে। পুরো শরীরে মারাত্মক জখম ও আঘাতে চিহ্ন রয়েছে।
পা ধরে অনুনয় বিনয় করার পরও তাকে ছেড়ে দেয়া হয়নি। শুক্রবার দুপুরের পর থেকে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলার কালীগ্রাম মুন্সিপুর গ্রামে এ নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটেছে। কিশোর শরিফুল মোল্লা উপজেলার কালীগ্রাম ইউপি’র কালীগ্রাম মুন্সিপুর গ্রামের প্রবাশি জামাল উদ্দিন আকন্দের ছেলে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও কিশোরকে উদ্ধার না করেই থানায় ফিরে আসে। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে এক ধরনের চাপা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এলাকাবাসী পুলিশের এ বিষয়টিকে দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন। শরিফুল নওগাঁ সদর হাসপাতালে অর্থোপেডিক বিভাগে শিশু ওয়ার্ডের ৩৬ নং বেডে নির্যাতনের যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে ও ছটফট করছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ১০-১২ দিন আগে মো: আব্দুল খালেকের বাড়ি থেকে কিছু টাকা ও সোনা কেবা কাহারা নিয়ে যায়। গত শুক্রবার দুপুরে শরিফুল মোল্লা বাড়ির পাশে মসজিদে ছিল। প্রতিবেশী আব্দুল খালেক কাজ আছে বলে শরিফুলকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। শরিফুলকে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর বাড়ির দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপর হাজী আক্কাস আলী, তার ছেলে জিয়ারুল ও টিপুকে বাড়িতে ডেকে নেয় খালেক। খালেক টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে শরিফুলের শরীরে বিভিন্ন স্থানে লাঠি ও রড দিয়ে তার শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে। এরপর গলায় গামছা পেচিয়ে ৪-৫ মিনিট ধরে টানা হেচড়া করে এবং শ্বাস রোধ করার চেষ্টা করে। শরিফুলের দুই ডানা পিঠ মোড়া দিয়ে পিছনে দড়ি দিয়ে বেঁধে ৭-৮ জন মিলে লাঠি দিয়ে নির্যাতন করে। চিৎকার চেঁচামেচি করায় কৌশলে শরিফুলকে বাড়ির পাশের একটি জঙ্গলের ধারে নিয়ে যায়। এরপর সেখানে কয়েক দফা নির্যাতন চালানো হয়। প্রতিবেশিরা বিষয়টি বুঝতে পেরে তাদেরকে মারপিট করার জন্য নিষেধ করে। এ বিষয়টি তার মা আয়েশাকে জানানো হলে ছুটে যান সেখানে। তাদের হাত পা ধরেও কোন কাজ হয়নি। এরপর থানা পুলিশে সংবাদ দেন শরিফুলের মা আয়েশা। তখন রাত ৮টা। পুলিশের এসআই শফিকুর রহমান ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর শরিফুলকে উদ্ধার না করে রহস্যজনক ভাবে থানায় ফিরে আসেন। রাতে কিশোরকে খালেকের বাড়িতে রাখা হয় এবং আবারও নির্যাতন চালানো হয়।
গত শনিবার সকালে মা আয়েশা থানায় আসেন এবং পুলিশের কাছে কান্নাকাটি করেন। সারাদিন গেলেও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। অবশেষে রাত ৮টার দিকে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পুনরায় গিয়ে কিশোর শরিফুলকে উদ্ধার করে এবং রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ সময় ঘটনার মুল হোতা আব্দুল খালেককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। উন্নত চিকিৎসার জন্য রবিবার সকালে নওগাঁ সদর হাসপাতালে অর্থোপেডিক বিভাগে ভর্তি করানো হয়।
নির্যাতনে সিকার শরিফুল বলে, কাজ করে নিবে বলে খালেক আমাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে চারজন মিলে কয়েক দফা মারপিট করে। খালেক বলে তুই আমার ২০ হাজার টাকা কখনো বলে ৫০ হাজার এবং সোনাদানা চুরি করেছিস। তার টাকা কবে হারিয়েছে সেটাও আমি জানিনা বা চুরি করিনি।
শরিফুলের মা আয়েশা বলেন, মারপিটের কারণে আমার ছেলে রক্ত বমি করে। তাদেরকে আমি হাত-পা ধরেছি ছেলেকে ছেড়ে দেয়ার জন্য। তারপরও আবার নির্যাতন চালিয়েছে। প্রথম দিনে পুলিশকে জানানো হলেও পুলিশ আমার ছেলেকে উদ্ধার না করে চলে আসে। আমার ছেলেকে যেভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

কালিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলু বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে শরিফুলের হাত বাধা অবস্থায় দেখি। তার শরীরে নির্যাতনের চিহ্নি দেখা যাচ্ছিল। তাদেরকে বলার পর তারা হাতের বাধন খুলে দেয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সেখানে পুলিশ গিয়েছিল এবং ফিরে এসেছে। আমি নিজে ডাক্তার নিয়ে এসে তার চিকিৎসা করিয়েছি। তবে গত শনিবার রাতে পুলিশ আবার গিয়ে ছেলেটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তবে ছেলেটি চুরি করেছে কিনা এ বিষয়টি জানা নেই।
রাণীনগর থানার এসআই (উপ-পরিদর্শক) শফিকুর রহমান বলেন, ওই এলাকায় একজন আসামীকে আটক করতে গিয়েছিলাম। বিষয়টি জানার পর ওসি স্যারকে জানিয়েছি। তবে ঘটনাস্থলে গত শুক্রবার আমি যায়নি। পরের দিন শনিবার কিশোরের মাকে সঙে নিয়ে গিয়ে উদ্ধার করে নিয়ে আসি।
রাণীনগর থানার ওসি মো: মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত প্রধান আসামী আব্দুল খালেককে গত শনিবার আটক করা হয়েছে। ছেলের মা আয়েশা বাদী হয়ে শিশু নির্যাতন আইনে আব্দুল খালেককে প্রধান আসামী করে চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। গত রবিবার তাকে আদালতে পাঠানো হয় ও অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যহত রয়েছে। তবে পুলিশের দায়িত্বহীনতার বিষয়টিতে অস্বীকার করে বলেন, আমরা বিষয়টি জানার পরই ঘটনাস্থল থেকে ওই কিশোরকে উদ্ধার করে নিয়ে আসি এবং চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছি।


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org