,

ThemesBazar.Com

টঙ্গীতে ২০ দলের ২৫৩জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গাড়ি ভাংচুরের মামলা \ গ্রেফতারকৃত ১২জনকে গাজীপুর জেল হাজতে প্রেরণ

 

এস.এম.মনির হোসেন জীবন : যানবাহন ভাঙচুর ও চলাচলে বাধা দেওয়াসহ জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির অভিযোগে বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ বিএনপি-জামায়াতের আড়াই শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে টঙ্গী মডেল থানায় মামলা করা হয়েছে। এ মামলায় ১০৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ১২জনকে আজ আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। মামলায় একজন বিএনপি নেতার স্ত্রীকেও আসামি করা হয়েছে।
এ মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে যাওয়া ১২ আসামি হলেন- বিএনপি নেতা হাজী আব্দুস সামাদ (৬০), ফরিদ আহমেদ (৪০), আব্দুর রশিদ (৫৫), গাজী মোশারফ (৩০), সফি উল্লাহ খান (৫৫), আব্দুল্লাহ (৩৩), তৌহিদ ওরফে কাইয়ুম (৩২), আলাউদ্দিন স্বপন (৩২), শহিদুল ইসলাম (২৯), সাব্বির আহমেদ (২৮), আজাদ হোসেন সোহেল (২৭) ও মাকসুদুর রহমান শাকিল।
রোববার বিকেলে টঙ্গী কলেজ গেট এলাকায় এ ভাঙচুর ও যান চলাচলে বাধা দেওয়ার ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। সোমবার রাতে এ ঘটনায় টঙ্গী মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
টঙ্গী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: কামাল হোসেন আজ রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
টঙ্গী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: কামাল হোসেন জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন স্থগিতের খবর শুনে অভিযুক্তরা রোববার বিকেল ৪টার দিকে টঙ্গীর চেরাগ আলী এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর করে। এছাড়াও তারা যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিসহ জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। এসময় পুলিশ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানসহ ১২ জনকে গ্রেফতার ও একটি লেগুনা উদ্ধার করে। এসময় অভিযুক্ত অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘটনার দিন রোববার রাত ১২টার দিকে টঙ্গী মডেল থানা থেকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা পালিয়ে যাওয়া অভিযুক্তদের নাম পরিচয় প্রকাশ করে। আজ সোমবার তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে, টঙ্গী মডেল থানায় দায়েরকৃত ওই মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন- গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাইয়্যেদুল আলম বাবুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাহ উদ্দিন সরকার, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক এস এম আবুল কালাম আজাদ, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর সফিজ উদ্দিন সফি, গাজীপুর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নু রয়েছেন।
এ বিষয়ে গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন আজ জানান, মামলায় যেসব অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। এগুলো সাজানো। রোববার টঙ্গীতে কোন যানবাহন ভাংচুরের ঘটনা ঘটেনি। অহেতুক ভাবে বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে হয়রানি করার উদ্দেশে এ সাজানো মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা আইনি ভাবে লড়াই করবো।

ThemesBazar.Com

     More News Of This Category