,

ThemesBazar.Com

মেহেরপুরে ইটভাটা মালিকদের দ্বারা ভোক্তারা প্রতারিত।সরকার হারাছে রাজস্বের কোটি কোটি টাকা!

আল-আমীন,মেহেরপুর।
বিএসটিআই নির্ধারিত মাপের চেয়ে অপেক্ষাকৃত ছোট মাপে ইট তৈরী করে বিক্রয় করছে মেহেরপুর বেশী ভাগ ইটভাটা মালিকরা । জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন হচ্ছে না । জাতীয় ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ এর ৪৮ ধারা মোতাবেক পরিবেশ অধিদপ্তরে প্রতিটি ইটভাটাই । অভিযানে পরিচালনা করিবার আইন থাকলো তার কোন প্রয়োগ নেই। এর জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক মোঃ সেলিমুজ্জামান জানান অভিযান পরিচালনার বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক মোঃ সেলিমুজ্জামান জানান, ইট তৈরীতে বিএসটিআই থেকে সরকারীভাবে মাপ নির্ধারিত রয়েছে। বিএসটিআই নির্ধারিত মাপ হচ্ছে দৈর্ঘ্য ২৪ সেঃমিঃ,প্রস্থ ১১.৫ সেঃমিঃ ও উচ্চতা বা গভীরতা ৭ সেঃমিঃ ৷ কিন্তু ভাটাগুলোতে নির্ধারিত মাপ পাওয়া যায়নি ৷ মালিকগণ দীর্ঘদিন ধরে বিএসটিআই থেকে নির্দেশিত অপেক্ষাকৃত ছোট আকারে ইট তৈরী ও বিক্রি করে আসছেন। তিনি বলেন নিয়মিত প্রতিটি ইটভাটায় অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি আরও বলেন, প্রত্যেকটি ইটভাটাকে বিএসটিআই কতৃক নির্ধারিত মাপ অনুসারে ইট তৈরী করতে হবে। মেহেরপুর জেলা ইটভাটা মালিক সমিতি সাধারণ সস্পাদক এনামুল হক সাথে যোগাযোগ সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া সাথে সাথে পরে কথা বলেন বলে ফোন কেটে দেন ।মেহেরপুর জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ জানান ইটের মাপ ছোট হলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

ThemesBazar.Com

     More News Of This Category