,

ThemesBazar.Com

উত্তরায় মেট্রোরেলের ডিপো নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন কালে আগামী ৬ মাসের মধ্যে দৃশ্যমান হবে মেট্রোরেল ———– সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী


এস,এম মনির হোসেন জীবন : আগামী ছয় মাসের মধ্যে মেট্রোরেল দৃশ্যমান হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
তিনি আরও বলেন,পদ্মা হয়েছে সেতু। আমার প্রজেক্ট কোনটা বন্ধ নেই। ‘মেট্রোরেলের কাজ পুরোদমে চলছে। মেট্রোরেল প্রকল্পের সকল ধরনের উন্নয়ন কাজ বেশ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। আশা করি, আগামী ছয় মাসের মধ্যে এ প্রকল্প দৃশ্যমান হবে।
আজ বুধবার দুপুরে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে তৃতীয় প্রকল্পে মেট্রোরেলের ডিপো নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে এক প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের রাজনৈতিক প্রসঙ্গে বলেন, জামায়াতের আগামীকালের হরতালে সহিংস কোন সুযোগ নেই। উদ্বব পরিস্থিতি রূপ নিলে তখন তার জবাব কি হবে তখন তার কড়া উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে বলে তিনি হুশিয়ারী উচচারণ করেন।
তিনি আরও বলেন, ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের অবরোধের সময় তারা মানুষকে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। গাড়ি চালক,ছাত্র,পুলিশ সহ অগনিত মানুষকে তারা হত্যা করেছে। এখন বিএনপি জনগন থেকে বিচিছন্ন। কোন রেজাল্ট নেই। সহিংসতা যারা করবে তারা জনগন থেকে বিচিছন্ন হবে।
আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জামায়াতের আগামীকালের হরতালে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঠে থাকার দরকার নেই। সহিংসতা করলে তার উপযুক্ত জবাব নেয়া হবে।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, উনারে কাঁদতে বলেন। হতাশ হয়ে চোখের জল ফেলছেন। তার অবস্থায় পড়লে আমারও কি হতো। সেটা আমাদের ভাগ্যে হয়নি।
তিনি আরও বলেন, বিএনপি দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করার জন্য মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর একেক সময় একেক কথা বলছেন। তার এখন হায়হতাশ ছাড়া আর কোন কাজ নেই।
প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদেরকে বলেন, উনিতো মেরুদন্ডহীন না। জোর করে বিদেশ পাঠানো হলে উনি নিজেই বলতেন। প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে বিএনপির সমালোচনার জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি অসুস্থ, ছুটি নিতেই পারেন। আর তাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হলে উনি তো সেটা বলতেন। উনি তো মেরুদন্ডহীন না।’
গুলশান হলিআটিজানের জঙ্গী হামলার কারণে মেট্রোরেলের কাজ ৬ মাস পিছিয়েছে। অনেকটা অনিশ্চিয়তায় পড়েছিল। জাইকার ফ্রান্ড বন্ধ হয়নি। এখন সে উন্নয়ন কাজ পুরোদমে চলছে। বর্তমান সরকার দ্রুতগতিতে এই প্রকল্প শেষ করার জন্য কাজ করছেন।
মেট্রোরেল প্রকল্প এক ও প্রকল্প দুই সম্পন্ন হয়েছে। বাকী কাজ ও বেশ দ্রুতগতিতে করা হবে। তার মধ্যে ৩২ কিলোমিটার আন্ডারগ্রাউন্ড থাকবে। ইতি মধ্যে টেন্ডারের আটটি কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু গ্রাউন্ড লেভেলের কাজ হবে এবং সেটি ইতি মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। কোন ফ্রান্ডিনের ঘাটতি নেই।
উত্তরার দিয়াবাড়িতে তৃতীয় প্রকল্পে মেট্রোরেলের ডিপো নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন কালে মেট্রোরেল প্রকল্পের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।
উত্তরা মেট্রোরেল নির্মান প্রকল্প সাইড অফিস সুত্রে জানা যায়, ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভোলপমেন্ট প্রজেক্ট (ডিএমআরটিডিপি) মেট্রোরেল নির্মান প্রকল্পের নাম করণ করা হয়েছে। মোট আটটি প্যাকেজের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচেছ। এতে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ২১৯৮৫.০৭. কোটি টাকা। তার মধ্যে জিওবি-৫৩৯০.৪৮ ও প্রকল্প সাহার্য বিদেশী সংস্থা (জাইকা)-১৬৫৯৪.৫৯ কোটি টাকা।
প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে জুলাই ২০১২ থেকে জুন ২০২৪ পর্যন্ত। তার মধ্যে দৈর্ঘ্য ২০.১ কিলোমিটার হবে (এলিভেটেড)। রোলিং স্টক থাকবে ২৪ সেট,যাত্রী পরিবহন ক্ষমতা থাকবে ৬০ হাজার (প্রতিঘন্টা-উভয় দিকে।
এছাড়া উত্তরা তৃতীয় পর্ব আবাসিক এলাকায় ডিপো নির্মানের জন্য প্রয়োজনীয় ২৩.৮৪ হেক্টর (৫৮.৯১) একর জমি রাজউক থেকে বরাদ্ব পাওয়া যায়। মোট স্টেশনের সংখ্যা ১৬টি। মোট ৮টি প্যাকেজের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচেছ। মেট্রেরেল পাইলট প্রকল্পে নয়টি পাইলিং এর মধ্যে তিনটি পাইলিং ইতি মধ্যে হয়ে গেছে। সেই সাথে উন্নয়ন কাজ বেশদ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে।
উল্লেখ্য, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩১ অক্টোবর ২০১৩ সালে উক্ত প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

ThemesBazar.Com

     More News Of This Category