সুন্দরগঞ্জে ৬ মাদক কারবারী গ্রেপ্তারসুন্দরগঞ্জে ৬ মাদক কারবারী গ্রেপ্তার

আবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে ৬ মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে।  থানা সূত্রে জানা যায়, রবিবার রাতে থানার এসআই- মামুনুর রশীদ, এসআই- প্রতাপ কুমার সিংহ, এসআই- মোত্তালেব প্রধান, এএসআই- গোলাম মোস্তফা ফোর্স নিয়ে পৃথক অভিযান চালান। এতে গাঁজাসেবী এক ইউপি সদস্যসহ ৬ মাদক কারবারীকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের পশ্চিম বাছহাটী গ্রামের মেজহার আলীর পুত্র মোস্তাফা মিয়া, এন্তাজ আলীর পুত্র আবু বক্কর সিদ্দিক, লাল মিয়ার পুত্র মোয়াজ্জেম হোসেন ওরফে সোহাগ, পূর্ব-বাছহাটী গ্রামের মৃত জব্বার আলীর পুত্র রাজু মিয়া, জহির উদ্দীনের পুত্র রয়েচ উদ্দীন ও রামজীবন ইউনিয়নের নিজপাড়া গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের পুত্র আলী হাসান শাহরিয়ার। এদের মধ্যে মোয়াজ্জেম হোসেন ওরফে সোহাগ সর্বনন্দ ইউপি সদস্য। বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা অফিসার ইনচার্জ- মুহাম্মদ আতিয়ার রহমান বলেন- গ্রেপ্তারকৃত মাদক কারবারীদের বিরিদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে থানায় পৃথক ৩টি মামলা রুজু করা হয়েছে।

সুন্দরগঞ্জে গরু বিক্রেতার মোবাইল দিলেও টাকা ফেরৎ দেয়নি পুলিশ

আবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ইয়াবা কারবারীতে জড়াতে ব্যার্থ পুলিশ মোবাইলফোণ দিলেও নগদ সাড়ে ৪১ হাজার টাকা ফেরৎ দেয়নি গরু বিক্রেতাকে। তবে, পরিস্থিতি এখন কিছুটা শান্ত রয়েছে।বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের পূর্ব-মনমথ গ্রামের সফিউল ইসলামের পুত্র জহুরুল ইসলাম (২৭) স্থানীয় কাঠগড়া হাট থেকে গরু বিক্রির উক্ত পরিমাণ টাকা নিয়ে বামনডাঙ্গা রেলওয়ে পৌঁছে। তা জানতে পেয়ে দুর্নীতিবাজ পুলিশ সদস্য- এস আই জহুরুল হক, এ এস আই- আলমগীর হোসেনসহ ২ কনস্টেবল ঐ গরু বিক্রেতার পকেটে ৩ পিচ ইয়াবা ঘুঁচে দিয়ে গ্রেপ্তার করে। তাকে ইয়াবা কারবারী বনানোর অপচেষ্টায় গরু বিক্রির টাকা, মোবাইলফোণ ছিনিয়ে নেন পুলিশ সদস্যরা। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় মানিক রাম রায়ের পুত্র নয়ন রাম রায় প্রতিবাদ করতে গেলে- এ এস আই আলমগীর তাকে রিভলবার ঠেকিয়ে গুলি করার ভীতি প্রদর্শন করেন। একপর্যায় ফুসে উঠে জনতা বিক্ষোভ সহকারে বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র অবরোধ করে। বিষয়টি জানতে পেয়ে ঘটনার সাড়ে ৪ ঘন্টা পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে  উপজেলা নির্বাহী অফিসার- এস এম গোলাম কিবরিয়া ও থানা অফিসার ইনচার্জ- আতিয়ার রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত পূর্বক দায়ী পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন। ফলে পরাস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এসব জানিয়ে এলাকাবাসী বলেন, পুলিশের এটাই নতুন বা প্রথম ঘটনা নয়। দীর্ঘ দিন ধরে উক্ত তদন্ত কেন্দ্রের কতিপয় দুর্নীতিবাজ পুলিশ সদস্য স্থানীয় কতিপয় মাদক কারবারীদের সঙ্গে নিয়ে নির্বিঘ্নেই এই বাণিজ্য চালিয়ে আসছে। এছাড়া, চক্রটি ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারী ৪ পুলিশ হত্যাসহ বিভিন্ন নাশকতা মামলাগুলোকে পুঁজি করে সহজ-সরল মানুষজন ও ব্যবসায়ীদেরকে সর্বশান্ত করেছে। এসব ঘটনার মূল হোতাদের বিরুদ্ধে সমুচিত বিচারের দাবী জানিয়ে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষজন ব্যাপক অভিযোগ করে বলেন, মাদকসহ বিভন্ন অপরাধ প্রবণতার কতিপয় হোতাদের নিয়ে দুর্নীতিবাজ পুলিশ সদস্যরা যা করেছে। সেটা বলাই বাহুল্য। সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক এসব পুলিশ সদস্যের সমুচিত শাস্তির ব্যবস্থা গৃহীত হবে বলে প্রশাসনের উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের নিকট আস্থা প্রকাশ করছেন। এব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ- মুহাঃ আতিয়ার রহমান বলেন- বর্তমানে বামনডাঙ্গার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার- এস এম গোলাম কিবরিয়া বলেন, এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।গাইবান্ধাকে যানজট মুক্ত রাখার উদ্যোগআবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃগাইবান্ধা শহরকে যানজট মুক্ত ও পরিস্কার- পরিচ্ছন্ন রাখার সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।  এলক্ষ্যে সোমবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে মতবিনিময় সভানুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক- গৌতম চন্দ্র পাল’র সভাপতিত্বে জেলার রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুধী সমাজ, বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার নেতৃবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাগণ মতবিনিময় করেন।এতে বক্তব্য রাখেন- পুলিশ সুপার- মাশরুকুর রহমান খালেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)- মিজানুর রহমান, পৌর মেয়র- অ্যাড. শাহ্ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার- আলিয়া ফেরদৌস জাহান, সদর থানা অফিসার ইনচার্জ- খাঁন শাহরিয়ার, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর- আবু রায়হান প্রমূখ।গোবিন্দগঞ্জে নদীতে ডুবে  ৮ দিন ধরে নিখোঁজআবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাখালী ব্রীজ এলাকায় করতোয়া নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ মিলা খাতুন (৮) গত ৮ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে।পারিবারিকও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২০ আগস্ট দুপুরে৩ শিশুর সঙ্গে মিলা করতোয়া নদীতে গোসল করতে নেমে সিখোঁজ হয়। সে উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের সাবগাছি হাতিয়াদহ ব্যাপারীপাড়া গ্রামের আলম ব্যাপারীর মেয়ে। মিলা পানির স্রোতে ভেসে যাবার খবর পেয়ে স্বজন ও এলাকাবাসী নদীতে নেমে খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান পায়নি। পর দিন ফায়ার সার্ভিসের দু’টি ডুবারু দল চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হয়েছে।সংশ্লিষ্ট দরবস্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান- আরম শরিফুল ইসলাম জর্জ বলেন, নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ মিলার সন্ধান না মেলায় বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন ও থানায় অবগত করা হয়েছে।
ফুলছড়ির চরে ডাকাতিতে ব্যবহৃত অস্ত্রসহ গুলি উদ্ধারআবু বক্কর সিদ্দিক, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার চৌমহনীর ও বুলবুলীর চরে ডাকাতির ঘটনায় ব্যবহৃত অস্ত্রসহ  গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টেগেশন (পিবিআই)।বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, সোমবার গোপন খবরের ভিত্তিতে ডাতদের ফেলে যাওয়া অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেন পিবিআই। এরআগে গত ২৩ আগস্ট ুক্ত চরে ডাকাতদের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়। পিবিআই গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার- আনোয়ার হোসেন মিয়া পিপিএম’র নেতৃত্বে এ  অভিযান পরিচালিত হয়। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে একটি পাইপগানের সম্মূখ অংশ বিশেষ, দুইটি পাইপ গান/শর্ট গানের কার্তুজ, দুইটি কাঠের হাতল যুক্ত হাসুয়া, একটি বেঁকি, একটি ধারালো ছোড়া, একটি কুড়াল, একটি লোহার এ্যাংগেল, তিনটি মোবাইল ফোন। এসময় ফুলছড়ি থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা সরকার সঙ্গে ছিলেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org