,

ThemesBazar.Com

ফলোআপঃ ডিমলায় মাকে বেঁধে রেখে মেয়েকে তুলে নিয়ে ধর্ষন মামলার আলোচিত প্রধান আসামী ধর্ষক রহিম গ্রেফতার ॥

]

মহিনুল ইসলাম সুজন,ক্রাইম রিপোর্টার নীলফামারী ॥
নীলফামারীর ডিমলায় বৃদ্ধা মাকে বেঁধে রেখে মেয়ে ফেন্সি বেগমকে রাতের আধারে বাড়ি হতে জোরপুর্বক তুলে নিয়ে গিয়ে তিস্তা নদীর দূর্গম চরে ধর্ষন মামলার প্রধান আসামী ও ধর্ষক আব্দুর রহিমকে(৩০) কে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। রবিবার(২৭শে আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ডালিয়ার এক নম্বর বাজার হতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আব্দুর রহিম উক্ত উপজেলার ঝুনাগাছ চাঁপানী ইউনিয়নের ছাতুনামা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিমলা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সাহাবুদ্দীনের নেতৃত্বে পুলিশ আলোচিত এই মামলার প্রধান আসামী রহিমকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।
প্রসঙ্গতঃ ওই গৃহবধুর স্বামী রফিকুল ইসলাম ঢাকায় রিক্সা চালানোর কারনে তার অনুপস্থিতির সুযোগে গত ১৯ আগষ্ট গভীর রাতে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের পশ্চিম ছাতুনামা গ্রামের ওই গৃহবধুকে তুলে নিয়ে যায় আসামীরা। এ সময় ওই গৃহবধুর বৃদ্ধা মা ফাতেমা বেগম বাঁধা দিতে গেলে তাকে আসামীরা দড়ি দিয়ে জামাতার উঠানে বেঁেধ রাখে। ঘটনার পর দিন দুপুরে ওই গৃহবধুকে তিস্তার দূর্গম চরে সংজ্ঞাহীন ও হাত বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধারের পর ওই গৃহবধুসহ তার মাকে প্রথমে ডিমলা হাসপাতালে ও পরে উক্ত গৃহবধুকে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। জ্ঞান ফিরে এলে ওই গৃহবধু অভিযোগ করে আসামীদের মধ্যে দুইজন তাকে গণধর্ষন করে। তার ডাক্তারী পরীক্ষা করা হলে গণধর্ষনের আলামতও পাওয়া যায়। এ ঘটনায় ওই গৃহবধুর বাবা কলিম উদ্দিন বাদী হয়ে ডিমলা থানায় একজনকে ধর্ষক উল্লেখ করে ৯জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।
ডিমলা থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,আগামীকাল গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরন করা হবে ।

ThemesBazar.Com

     More News Of This Category