টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গোড়াই শিল্পাঞ্চলের দুষিত বর্জ্য নদী ও খাল-বিলের পানিতে মিশে পরিবেশ মারাত্বকভাবে হুমকির মুখে॥ মরে যাচেছ মাছ,গাছ-পালা, অধিকাংশ কলকারখানায় নেই ইটিপি


মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় গোড়াই শিল্পাঞ্চলের শতাধিক মিল কারখানার দুষিত বর্জ্য নদী ,পুকুর ও খাল-বিলের পানিতে মিশে পরিবেশ মারাত্বকভাবে হুমকির মুখে পরেছে। অধিকাংশ মিলকারখানায় বর্জ্য শোধানাগারের জন্য ট্রিটমেন্ট প্লান্ট (ইটিপি)ব্যাবস্থা না থাকায় দুষিত বর্জ্য নদী ও খাল-বিলের পানিতে পরে পানি দুষিত হয়ে মাছ মরে যাচ্ছে। সেই সাথে পচা পানির দুর্গন্ধে চারপাশ ছড়িয়ে পরায় এলাকার গাছ-পালাও মরে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন।গোড়াই শিল্পাঞ্চলের ১৫/২০টি গ্রামের ৩/৪ লাখ মানুষের বসবাস করা মারাত্বক ভাবে ঝুঁকির মুখে পরেছে। সেই সঙ্গে পচা দুর্গন্ধে মানুষের মধ্যে খোঁচ-পাচরাসহ বিভিন্ন রোগ দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে গোড়াই শিল্পাঞ্চলের চারপাশের খাল বিল ও নদী নালায় পচা বর্জ্র পরে পরিবেশ মারাত্বক ভাবে হুমকির মুখে পরেছে।
আজ শনিবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে কারখানার দুষিত বর্জ্য খাল-বিল ও নদীর পানিতে মিশে এলাকার পরিবেশ হুমকির মুখে।
অনসন্ধানে জানা গেছে, টাঙ্গাইল জেলার মধ্যে মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই এলাকা একটি শিল্প সমৃদ্ধ এলাকা। ১৯৬২ সালে এখানে সর্ব প্রথম রাষ্ট্রয়াত্ব শিল্প টাঙ্গাইল কটন মিলস নামে একটি সুতা উৎপাদনের কারখানা স্থাপন হয়েছিল। এলাকাটি পাহাড়ি হওয়ায় দিন দিন এখানে শিল্পকারখানার সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। বর্তমানে এই এলাকায় ছোট বড় মিলে শতাধিক মিলকারখানা গড়ে উঠেছে। কারখানার মধ্যে রয়েছে কাশেম ড্রাইসেল,বেঙ্গল এনএফকে,নাসির গ্রুপ অব ইন্ডাসট্রিজ,মন্ডল গ্রুপ,মেঘনা গ্রুপ,ইয়ুৎ স্পিনিং মিলস,উত্তরা সাইকেল ইন্ডাসট্রিজ,নর্থ সাউথ সাইকেল ইন্ডাসট্রিজ,হানিফ ইন্ডাসট্রিস,উত্তরা স্পিনিং মিলস,নাহিদ কটন মিলস,মাসাফি ব্রেড এন্ড বিস্কুট ফ্যাক্টরী,নিউট্রেক্্র গ্রুপ,নিউএইজ,খান গার্মেন্স,কম্পফিট কম্পোজিটসহ শতাধিক মিলকারখানা।
এদিকে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে দু একটি প্রতিষ্ঠানে বর্জ্য শোধানাগারের জন্য ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট(ইটিপি) স্থাপন হলেও অধিকাংশ মিলকারখানায় বর্জ্য শোধানাগারের জন্য ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপন হয়নি। ঐ সব কারখানার মালিক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কলকারখানার দুষিত বর্জ্য বিভিন্ন নদী ও খাল-বিলের পানিতে নালা কেটে বিশেষ ভাবে ফেলে দিচ্ছে। আর এই সব বর্জ্য পানিতে মিশে বিষাক্ত হয়ে মাছ মরে যাচ্ছে। সেই সাথে পচা দুর্গন্ধ চারপাশে ছড়িয়ে পরে এলাকায় বসবাস করা দুষ্কর হয়ে পরেছে এবং বিভিন্ন গাছপালাও মরে যাচ্ছে। গোড়াই শিল্পাঞ্চলের সোহাগপাড়া, গন্ধব্যপাড়া, নাজিরপাড়া, হাটুভাঙ্গা, সৈয়দপুর, ক্যাডেট কলেজসহ বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে কারখানার বিষাক্ত বর্জ্যে পরিবেশ মারাত্বকভাবে হুমকির মুখে। বিশেষ করে গোহাগপাড়া,খাল,ক্যাডেট কলেজ এলাকার খাল ও বিল,দক্ষিনে লৌহজং নদী,উত্তবে বংশাই নদীর পানি ব্যাবহারের অযোগ্য হয়ে পরেছে। এসব এলাকায় পানি পচে যাওয়ায় বিভিন্ন ফসল এবং সবজি আবাদ হুমকির মুখে পরেছে।
ব্যবসায়ী আশরাফ সিকদার,বাবুল সিকদার,ক্যাডেট কলেজ এলাকার চাকুরীজীবি শামীম হোসেন,প্রভাষক নুরুল ইসলামসহ অনেকেই অভিযোগ করেন,সরকারী ভাবে এবং পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে পরিবেশ রক্ষার জন্য কারখানার মালিকদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ও কঠোর কোন ব্যাবস্থা গ্রহণ না করায় দিন দিন এলাকার পরিবেশ আরও বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে,পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সরকারের উচ্চ মহলের লোকজন প্রতিমাসে গোড়াই কলকারখানার মালিকদের নিকট থেকে মোটা অংকের মাসোহারা নিয়ে যাচেছ। ফলে এলাকার পরিবেশ সম্পর্কে তাদের কোন মাথা ব্যাথা নেই।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বিভিন্ন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,পরিবেশ রক্ষার জন্য গোড়াই শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন কারখানায় মাঝে মধ্যেই অভিযান পরিচালিত হয়।ইতি পুর্বে কয়েকটি কারখানায় অব্যাবস্থাপনার অভিযোগে অন্তত ৪০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাদের এ অভিযান চলমান থাকবে বলে তিনি জানিয়েছেন।
মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন বলেন, পরিবেশ রক্ষার জন্য বিভিন্ন কলকারখানায় ভ্রাম্যমান আদালত ও পরিবেশ অধিদপ্তর অভিযান শুরু করেছেন।তাদের এ অভিযান চলমান থাকবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ
সম্পাদক-প্রকাশক : শেখ মোঃ তৈয়াবুর রহমান॥

যুগ্ম সম্পাদক: এস এম শাহিদুল আলম॥ সহযোগী সম্পাদক: শেখ মোঃ আরিফ আল আরাফাত
সহ-সম্পাদক: (প্রশাসন) হাজী হাবিবুর রহমান শাহেদ: সহ সম্পাদক: আজমাল মাহমুদ
সম্পাদক কর্তৃক বাড়ী বাড়ী নং- ৫৩/২, ৪র্থ তলা, রাজ-নারায়ন-ধর রোড, কিল্লার মোড় বাজার, লালবাগ, ঢাকা-১২১১
ফোন: ০১৯১৮-২০১৬২৬, ফোন: ০১৭১৫-৯৩৩১৬৮
ই-মেইল- notunvor.news@gmail.com
Designed By Hostlightbd.com
| Cyberboss.org